corona virus btn
corona virus btn
Loading

' আমি তোমার ঠাকুমার বয়সি', ৮৬-এর বৃদ্ধার আর্ত চিৎকার অগ্রাহ্য করে ধর্ষণ করল যুবক

' আমি তোমার ঠাকুমার বয়সি', ৮৬-এর বৃদ্ধার আর্ত চিৎকার অগ্রাহ্য করে ধর্ষণ করল যুবক
Representative image

ফের নৃশংসতা দিল্লিতে! ধর্ষণের শিকার ৮৬ বছরের বৃদ্ধা...

  • Share this:

#দিল্লি: ফের নৃশংসতা দিল্লিতে! ধর্ষণের শিকার ৮৬ বছরের বৃদ্ধা! দক্ষিণ পশ্চিম দিল্লির ছাওলার একটি নির্জন এলাকায় অশীতিপর বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করে বছর ৩৭-এর এক যুবক! রেওলা খানপুরের বাসিন্দা, পেশায় প্লাম্বার, সোনু নামে ওই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার ফের আরেকটি পাশবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল দিল্লি! পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সেদিন সন্ধ্যায় নিকটবর্তী একটি গ্রামে পৌঁছে দেওয়ার অজুহাতে বৃদ্ধাকে বাইকে তোলে অভিযুক্ত এবং তারপর গন্তব্যে না গিয়ে, বৃদ্ধাকে নিয়ে যায় একটি নির্জনস্থানে। সেখানেই বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করে সোনু নামে অভিযুক্ত যুবক।

দ্বারকার ডেপুটি কমিশনার অফ পুলিশ সন্তোষ কুমার মীনা জানান, বৃদ্ধার অভিযোগের ভিত্তিতে IPC-র ৩৭৬ ধারায় (ধর্ষণ) ছাওয়া থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে অভিযুক্ত যুবককে ।'' বৃদ্ধার মেডিক্যাল পরীক্ষা ও বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, বৃদ্ধার শারীরিক অবস্থা স্থীতিশীল, তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

দিল্লির মহিলা কমিশন, DCW এই মামলাটিকে 'চরম বিরক্তিকর' ঘটনা হিসেবে উল্লেখ করেছে। বৃদ্ধার বয়ান অনুযায়ী, সোমবার বিকেল ৫টা নাগাদ তিনি রাস্তায় দুধওয়ালার জন্য অপেক্ষা করছিলেন। সেই সময় অভিযুক্ত সেখানে আসে এবং জানায়, দুধওয়ালা আসবে না, সে তাকে কাছেই একটা জায়গায় নিয়ে যেতে পারে, যেখানে দুধ পাওয়া যায়। যুবকের কথায় রাজি হয়ে যান বৃদ্ধা। এর পরই বৃদ্ধাকে বাইকে তুলে একটি নির্জন ফার্মে নিয়ে যায় যুবক, সেখানেই তাঁকে পাশবিকভাবে ধর্ষণ করে।

বৃদ্ধা কাঁদতে থাকেন, চিৎকার করতে থাকেন 'আমি তোমার ঠাকুমার বয়সি'... শরীরের সবটুকু শক্তি দিয়ে যুবককে আটকাতে যান , কিন্তু তাতেও কোনও ফল হয়না! বেধরক মারধর, সারীরিক অত্যাচারের পর বৃদ্ধাকে ধর্ষণ করে যুবক! বৃদ্ধার আর্ত চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসেন। হাতেনাতে 'কালপ্রিট'কে ধরে ফেলে গ্রামবাসীরাই! এরপর নিগৃহীতার কাছ থেকে তাঁর ছেলের ফোন নম্বর নিয়ে বাড়িতে খবর দেন। খবর দেওয়া হয় পুলিশকেও। জানা যায়, রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বৃদ্ধাকে, তিনি ট্রমায় চলে গিয়েছিলেন। মেডিক্যাল পরীক্ষায় দেখা যায় শরীরে একাধিক আঘাত ও ক্ষত রয়েছে।

দিল্লি মহিলা কমিশনের প্রধান স্বাতী মালিওয়াল ও প্যানেলের সদস্য বন্দনা সিং নির্যাতিতার সঙ্গে বাড়িতে দেখা করতে যান। স্বাতী জানান,'' ছ-মাসের শিশুকন্যা থেকে ৯০-এর বৃদ্ধা-- দিল্লিতে কেউ নিরাপদ নন। আমি বৃদ্ধার সঙ্গে দেখা করেছি! তিনি অসম সাহসী, বর্তমানে যে ট্রমার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন, তাতে বোঝা যায়, এই ধরনের অপরাধ যারা করে, তারা মানুষ নয়! আমরা আস্বস্ত করছি, তিনি সুবিচার পাবেন। মামলাটিকে দ্রুত বিচারে নিয়ে গিয়ে ৬ মাসের মধ্যে রায় ঘোষণার ব্যবস্থা করতে হবে।''

Published by: Rukmini Mazumder
First published: September 11, 2020, 5:00 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर