• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • হাজারেরও কম ভোটে ফয়সলা হল ৮ টা আসনের, দু’হাজারের কম ভোটে হারজিত আরও ১২ টির

হাজারেরও কম ভোটে ফয়সলা হল ৮ টা আসনের, দু’হাজারের কম ভোটে হারজিত আরও ১২ টির

News18

News18

গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি বিজয়ের হাসি হাসলেও, এই জয় যে সহজে আসেনি তা হারে হারে বরং বলা ভালো ‘হাতে’ হাতে বুঝতে পেরেছে বিজেপি শিবির ৷

  • Share this:

    #আমেদাবাদ: গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি বিজয়ের হাসি হাসলেও, এই জয় যে সহজে আসেনি তা হারে হারে বরং বলা ভালো ‘হাতে’ হাতে বুঝতে পেরেছে বিজেপি শিবির ৷ নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার শুরু থেকেই প্রায় প্রতিটি আসনেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াই নজরে এসেছিল বিজেপি-কংগ্রেসের ৷ হিসেব বলছে বেশিরভাগ আসনেই নোটায় ভোটের সংখ্যা অনেকটাই ৷ যা নাকি বিজেপি বা কংগ্রেসের খাতায় পড়লে গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলটা অন্যরকমই হতে পারত৷

    প্রত্যেক ভোট কেন্দ্রেই একাধিক মানুষ NOTA-এ ভোট দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে ৷ বিজেপি (৪৯.১%), কংগ্রেস (৪১.৪%) এবং নির্দল (৪.৩%)-এর পরেই চতুর্থ স্থানে রয়েছে NOTA (১.৮ %) ৷ যা বিএসপি (০.৭%) , এনসিপি-র (০.৬% ) মতো অন্যান্য অনেক রাজনৈতিক দলের চেয়ে বেশি !

    শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত টানটান প্রতিযোগিতা। পিছিয়ে পড়েও বারবার ফিরে এল কংগ্রেস। ফল গুজরাতে একশো আসনের নীচেই থামতে হল বিজেপিকে। গুজরাতে ভোটগণনা যত এগিয়েছে, ততই জোরদার হয়েছে লড়াই। বিজেপির ভোটব্যাঙ্কে ফাটল স্পষ্ট হয়। ২২ বছর ধরে ক্ষমতায় আসা গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে অসন্তোষ স্পষ্ট ইভিএমে। ফলপ্রকাশের পর তাই নরেন্দ্র মোদি - অমিত শাহকে ভাবতে হচ্ছে বিকল্প মডেলের কথা।

    শুধু তাই নয় গুজরাতের ৮ টি আসনে বিজেপি ও কংগ্রেসের লড়াইয়ে মার্জিন চোখে পড়ার মতো৷ হাজারেরও কম ভোটে ফয়সলা হল ৮ টা আসনের, দু’হাজারের কম ভোটে হারজিত আরও ১২ টির ৷

    যেমন, গোধরায় কংগ্রেস পরাজিত হয়েছে ২৫৮ টি ভোটে ৷ অন্যদিকে মোরাসা কেন্দ্রে কংগ্রেস জিতেছে ১৪৩ টি ভোটে, কাপড়াডাতে কংগ্রেস জিতেছে ১৭০ টি ভোটে ৷ মানসাতে কংগ্রেসের জিতেছে ৫২৪ টি ভোট মার্জিনে ৷ ডাং কেন্দ্রে ৭৬৮ টি ও দেওদরে ৯৭২ টি ভোটে বিজেপিকে হারিয়ে কংগ্রেস জিতে নিয়েছে আসন ৷ অন্যদিকে আবার বোটাড়ে ৮০৬ টি ভোটের মার্জিনে, ধোলকাতে ৩২৭ টি ভোটের দুরত্বে বিজেপির কাছে হার স্বীকার করেছে কংগ্রেস ৷

    মোদি ঝড় উধাও। থেমে গেল বিকাশ রথও। গুজরাতে ১০০ আসনের আগেই থামতে হল বিজেপিকে। ৯৯ টি আসন পেয়েই সরকার গড়ছে গেরুয়া শিবির। ৮০ টি আসন নিয়ে ঘাড়ের কাছে নিঃশ্বাস কংগ্রেসের। গত ২২ বছরে সবচেয়ে খারাপ ফল বিজেপির। রাহুল গান্ধির নেতৃত্বে এই প্রথম কোনও নির্বাচনে চমক দিল কংগ্রেস।

    প্রাথমিক ট্রেন্ডে বেশ কিছুটা ব্যবধান ছিল। তারপর সময় যত এগিয়েছে ব্যবধান কমিয়েছে কংগ্রেস। একসময় গেরুয়া শিবিরকে প্রায় ছুঁয়েই ফেলেছিল তারা। গত লোকসভা ভোটের তুলনায় ১০ শতাংশ ভোট কমল। শহরে বিজেপির ভোটব্যঙ্ক অটুট থাকাতেই এযাত্রা মুখরক্ষা হল নরেন্দ্র মোদি- অমিত শাহের।

    বিজেপির পক্ষে ১ কোটি ৪৭ লক্ষ ভোট কংগ্রেসের ভোট ১ কোটি ২৪ লক্ষ নোটায় ৫ লক্ষের বেশি ভোট গতবারের থেকে ১৬ টি আসন কমল বিজেপির দলছুটদের ধরলে ২২ টি আসন কমেছে সৌরাষ্ট্রে বড় ধাক্কা গেরুয়া শিবিরের মোট ভোটের হার বাড়লেও ৪৫ শতাংশ আসনেই ভোট কমেছে

    পটেল, পতিদার ইস্যু, জিএসটি-নোট বাতিল, গ্রামীণ এলাকায় তীব্র বৈষম্য - একাধিক ফ্যাক্টরও বারবার বাধা হয়েছে বিজেপির পথে। গ্রামীণ গুজরাতে বঞ্চনার অভিযোগ নিয়ে অস্বস্তি ছিল বিজেপি। ইভিএমেও তারই প্রতিফলন স্পষ্ট।

    ৪৩ টি আসনে ভোট বাড়িয়েছে কংগ্রেস এর মধ্যে ৩১ টি গ্রামীণ এলাকায় ২৪ টি আসনে ভোট বেড়েছে বিজেপির ৯ টি শক্ত ঘাঁটিতে হার বিজেপির ৫ হাজারের কম ভোটে হার ১৪ প্রার্থীর হাজারের কম ভোটে হার ৮ প্রার্থীর

    প্রবল চাপের মুখে জয় এলেও একে হাতিয়ার করেই এগোতে চাইছে বিজেপি। মোদির গড়ে চ্যালেঞ্জ এত কঠিন হবে তা কয়েক মাস আগেও ভাবা যায়নি। একের পর এক ব্যর্থতার পর গুজরাত থেকে উদয় হল আক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের। ভবিষ্যতে যাই হোক, রাহুল গান্ধির সঙ্গে এই নির্বাচন ঘিরে জড়িয়ে গেল রাহুল গান্ধির নাম। ঠিক যেমনভাবে ১৫ বছর আগে গুজরাতে উত্থান হয়েছিল নরেন্দ্র মোদির।

    First published: