সপ্তম পে কমিশনের সুপারিশে মোদি সরকার ৪ শতাংশ ডিএ বাড়াতে পারে

সপ্তম পে কমিশনের সুপারিশে মোদি সরকার ৪ শতাংশ ডিএ বাড়াতে পারে
সপ্তম পে কমিশনের সুপারিশে মোদি সরকার ৪ শতাংশ ডিএ বাড়াতে পারে

৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী ও ৬১ লক্ষ পেনশনভোগীদের জন্য সুখবর৷ সপ্তম পে কমিশনের সুপারিশে নরেন্দ্র মোদির সরকার মহার্ঘ ভাতা বাড়াতে পারে৷ কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিয়েছে মুদ্রাস্ফীতির বর্তমান হার ২৮ শতাংশ ধরেই ডিএ ও ডিআর বাড়াবে৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী ও ৬১ লক্ষ পেনশনভোগীদের জন্য সুখবর৷ সপ্তম পে কমিশনের সুপারিশে নরেন্দ্র মোদির সরকার মহার্ঘ ভাতা বাড়াতে পারে৷ কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিয়েছে মুদ্রাস্ফীতির বর্তমান হার ২৮ শতাংশ ধরেই ডিয়ারনেস অ্যালোয়েন্স (ডিএ) ও ডিয়ারনেস রিলিফ (ডিআর, অবসরপ্রাপ্তদের জন্য) বাড়াবে৷ এমনটাই রিপোর্ট৷

    বর্তমানে বেসিক পে বা পেনশনের ১৭ শতাংশ ডিএ হিসেবে দেওয়া হয়৷ এই ১৭ শতাংশের উপর আরও ৪ শতাংশ বেশি ডিএ দেওয়ার কথা চলছে৷ ফলে ১৭ শতাংশ থেকে ডিএ বেড়ে হতে চলেছে ২১ শতাংশ৷ মনে করা হচ্ছে জানুয়ারি থেকেই বর্ধিত ডিএ দেওয়া হতে পারে৷ কিন্তু এই ব্যাপারে কেন্দ্র থেকে এখনও কোনও নোটিশ দেওয়া হয়নি৷আগে জানা গিয়েছিল যে, কনফেডারেশন অফ সেন্ট্রাল গর্ভানমেন্ট এমপ্লয়িজ অ্যান্ড ওয়ার্কার্স-এর কর্মীরা সরকারি কোষাগারের স্থিতি দেখেই কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনকে অনুরোধ করেছিলেন, মুদ্রাস্ফীতির বর্তমান হার ২৮ শতাংশ ধরেই ডিএ ও ডিআর দেওয়ার জন্য৷ কিন্তু গতবছর এপ্রিলে করোনা মহামারির কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্র ৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারী ও ৬১ লক্ষ পেনশনভোগীদের মহার্ঘ ভাতা আটকে দেওয়া হয়৷


    ব্যয় অধিদফতর তখন একটি সরকারি স্মারকলিপি প্রকাশ করে জানিয়েছিন যে, কোভিড সঙ্কটের কারণে কেন্দ্র সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে ১ জানুয়ারি ২০২০ থেকে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের প্রাপ্য ডিএ ও পেনশনভোগীদের ডিআর-এর অতিরিক্ত কিস্তি প্রদান করা হবে না। আরও বলা হয়েছিল যে, ১ জুলাই ২০২০ এবং ১ জানুয়ারি ২০২১ সালের বকেয়া থেকে ডিএ এবং ডিআর-এরও অতিরিক্ত কিস্তি প্রদান করবে না সরকার৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published: