Covid second wave: করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে ভারতে অনাথ হয়েছে বহু শিশু, মর্মান্তিক তথ্য কেন্দ্রের

এই মহামারীতে বহু শিশুরও মাথার উপর থেকে ছাদ সরে গিয়েছে। বহু শিশুর মা বাবা দুজনেরই প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মারণ ভাইরাস।

এই মহামারীতে বহু শিশুরও মাথার উপর থেকে ছাদ সরে গিয়েছে। বহু শিশুর মা বাবা দুজনেরই প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মারণ ভাইরাস।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনার (Corona) দ্বিতীয় ঢেউতে ভয়াবহ অবস্থা দেখেছে ভারতের মানুষ। আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা প্রায় প্রতিদিনই নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে। এই মহামারীতে বহু শিশুরও মাথার উপর থেকে ছাদ সরে গিয়েছে। বহু শিশুর মা বাবা দুজনেরই প্রাণ কেড়ে নিয়েছে মারণ ভাইরাস। সরকারি তথ্য অনুযায়ী, করোনা মহামারারী জেরে ৫৭৭ জন শিশু অনাথ (Orphan) হয়েছে।

    জানা যাচ্ছে, এই শিশুরা এই মুহূর্তে তাদের আত্মীয় ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে রয়েছে। করোনায় অনাথ হওয়া শিশুদের কেন্দ্র খেয়াল রাখছে বলে জানা গিয়েছে। রাজ্য সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করে এই শিশুদের সম্পর্কে কেন্দ্র খবরাখবর রাখছে।

    ভারতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ইতিমধ্যেই ৩ লক্ষের গণ্ডি ছাড়িয়েছে। বিশ্বের যে দেশগুলিতে করোনায় মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি তাদের মধ্যে ভারত রয়েছে তৃতীয় স্থানে। তার আগেই রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিল। ভারতের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্য়ার তথ্য রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলি থেকে সংগ্রহ করেছে। এই শিশুদের জন্য কেন্দ্রের 'নন ইনস্টিটিউশনাল চাইল্ড কেয়ার' ফান্ডের মাধ্যমে জেলা প্রতি ১০ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হয়েছে। তবে এই অনাথ শিশুরা যাতে কোনও ভাবে পাচারের শিকার না হয় সেদিকে নজর রাখছে কেন্দ্র এবং রাজ্যগুলিকেও সতর্ক থাকতে বলেছে।

    কোনও তথ্য প্রমাণ ছাড়া অনাথ শিশুদের সম্পর্কে তথ্য ছড়াতেও সাধারণ মানুষকে নিষেধ করেছে কেন্দ্র। যে মুহূর্তে কোনও শিশু তার মা ও বাবাকে হারাবে, সেই মুহূর্তেই যাতে জেলা প্রশাসনকে খবর দেওয়া হয়, সেই নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। এর ফলে শিশুদের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা করা যাবে।

    প্রসঙ্গত, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালও অনাথ শিশুদের জন্য বিশেষ ঘোষণা করেছেন। যে শিশুরা করোনায় মা ও বাবাকে হারিয়েছে তাদের বিনামূল্যে শিক্ষা প্রদান করার ঘোষণা করেছেন তিনি। অন্যদিকে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী জগনমোহন রেড্ডিকরোনা কালে অনাথ হওয়া প্রত্যেক শিশুর জন্য ১০ লক্ষ টাকা ফিক্সড ডিপজিট করেছেন।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: