৪ মিনিটে চিনে নিল ১৫০ দেশ, রাজধানী ও তার পতাকা! ৫ বছরে বিশ্ব রেকর্ড রাজস্থানের শিশুর!

৪ মিনিটে চিনে নিল ১৫০ দেশ, রাজধানী ও তার পতাকা! ৫ বছরে বিশ্ব রেকর্ড রাজস্থানের শিশুর!

লকডাউনে পড়াশোনা ও নিজের দক্ষতা দিয়ে একসঙ্গে ১৫০টি দেশের নাম আর তার রাজধানী বলল সে। চিনিয়ে দিল সবক'টি দেশের পতাকা।

লকডাউনে পড়াশোনা ও নিজের দক্ষতা দিয়ে একসঙ্গে ১৫০টি দেশের নাম আর তার রাজধানী বলল সে। চিনিয়ে দিল সবক'টি দেশের পতাকা।

  • Share this:

এ যেন বিস্ময় বালিকা! মাত্র পাঁচ বছর বয়সে রাজস্থানের এই শিশু করে ফেলল বিশ্ব রেকর্ড। নিজের অজান্তেই হয় তো মুগ্ধ করল বহু মানুষকে। লকডাউনে শেখা পড়াশোনা দিয়েই এই বাজিমাত তার।

লকডাউনের অনেক খারাপ দিক দেখেছে দেশ। অনেক মৃত্যু, ঘরবন্দী জীবন কাঁদিয়েছে আমাদের। ২০২০-কে 'বিষে বিশ' ছাড়া আর কোনও আখ্যা দেওয়া সম্ভব হয়নি অনেকের পক্ষেই। কিন্তু এই শিশুর মতো অনেকের কাছে আবার ২০২০ স্মরণীয়। লকডাউন তাঁদের কাছে শিক্ষার এর অন্য দরজা খুলে দিয়েছে।

রাজস্থানের উজ্জয়নীর প্রেশা খেমানি। বয়স মাত্র পাঁচ। কিন্তু কাজ পঁচিশ বা তারও বেশি বয়সের মানুষজনের মতো। লকডাউনে পড়াশোনা ও নিজের দক্ষতা দিয়ে একসঙ্গে ১৫০টি দেশের নাম আর তার রাজধানী বলল সে। চিনিয়ে দিল সবক'টি দেশের পতাকা। মাত্র ৪ মিনিট ১৭ সেকন্ডে এই কাজ করে দেখানোর ফলে বিশ্ব রেকর্ড গড়ল প্রেশা। সব চেয়ে ছোট সদস্য হিসেবে জিতে নিল ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস ইন্ডিয়া বুকের খেতাব।

জানা গিয়েছে, প্রেশার বাবা পেশায় চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেড। রাজস্থানের আদি বাসিন্দা হলেও বর্তমানে প্রেশা ও তাঁর পরিবার থাকে পুণেতে। সেখানেই লকডাউনে তাঁর পড়াশোনা শুরু হয় ভূগোল নিয়ে।

এ বিষয়ে সংবাদসংস্থা IANS-কে প্রেশার মা জানিয়েছেন, ওর ভূগোল নিয়ে জানার প্রতি ইচ্ছে আমাদের নজরে আসে। শুধু তাই নয়, ওর বিভিন্ন দেশের পতাকার প্রতিও আগ্রহ দেখতে পাই। ও প্রায়ই আমায় জিজ্ঞাসা করে কোন পতাকাটা কোন দেশের। এই সব দেখে আমি ওকে পতাকা চিনিয়ে দিতে শুরু করি।

প্রেশার মা আরও জানান, এই সবের মাঝেই লকডাউনের আগে তাঁদের একজন বন্ধু প্রেশাকে একটি বই উপহার দেন। সেখান থেকেই সে ১৫০টি দেশ, তাদের রাজধানী ও পতাকা সম্পর্কে পড়াশোনা শুরু করে। গোটা লকডাউনে সে এই নিয়ে পড়তে থাকে।  এবং এক এক সপ্তাহে একটি করে প্রদেশ পড়ে শেষ করে।

দ্য শিলং টাইমস-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে প্রেশার মা জানান, তাঁরও ভূগোল ও বিশ্বের বিভিন্ন জায়গা সম্পর্কে জানার প্রতি আগ্রহ রয়েছে। একই আগ্রহ প্রেশার মধ্যেও তিনি লক্ষ্য করেন। আর তাই সেই দিকেই এগোতে তাঁকে সাহায্য করেন।

এদিকে, একটি বিশ্ব রেকর্ডেই থেমে থাকতে চায় না প্রেশা। এবার সে বিভিন্ন দেশের টাকা ও রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীদের নাম নিয়ে পড়াশোনা শুরু করবে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমকে।

Published by:Elina Datta
First published: