গণধর্ষণের শিকার ৫ স্বেচ্ছাসেবী কর্মী, ক্যামেরাবন্দি সেই নির্মম দৃশ্য

Representational Image

ঝাড়খণ্ডের রাস্তায় পথনাটিকায় ব্যস্ত তখন নামজাদা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ৷ সেই সময় আচমকাই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পাঁচ মহিলার উপর হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী ৷

  • Share this:

    #পটনা: ঝাড়খণ্ডের রাস্তায় পথনাটিকায় ব্যস্ত তখন নামজাদা স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ৷ সেই সময় আচমকাই  স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার পাঁচ মহিলার উপর হামলা চালায় একদল দুষ্কৃতী ৷ রাস্তা থেকে তাদের জঙ্গলের ভিতরে টেনে নিয়ে গিয়ে তাদের উপর হামলা চালানো হয় ৷ ধর্ষণের পর সেখানেই তাদের তিনঘণ্টা ফেলে রাখা হয় ৷ এমনকী, গোটা ঘটনাটি মোবাইলে ক্যামেরাবন্দি করে রাখা হয় বলে পুলিশ সূত্রে খবর ৷

    আরও পড়ুন: উপত্যকার সন্ত্রাস নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য, গুলাম নবি আজাদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের দাবি বিজেপির

    জানা গিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত গত মঙ্গলবার ৷ ঝাড়খণ্ডের আদিবাসী অঞ্চলগুলিতে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে আসতেই কাজ করছিল এই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি ৷ ঝাড়খণ্ডের খুন্তি জেলা প্রধানত আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকা ৷ সেখানেই মানব পাচার চক্রের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়িয়ে তুলতে পথ নাটিকার আয়োজন করেছিল স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি ৷ সেই সময়ই তাদেরকে ওই রাস্তা থেকে পাশের জঙ্গলের ভিতরে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে দুষ্কৃতীরা ৷ এমনকী, গোটা ঘটনাটি ক্যামেরাবন্দি করে রাখে তারা ৷ সেই ভিডিওগুলোকে হাতিয়ার করেই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার কর্মীদের ভয় দেখাত অভিযুক্ত ব্যক্তিরা ৷ হুমকির ভয়ে পুলিশের কাছে কোনও অভিযোগও দায়ের করেননি নির্যাতিতারা ৷ এমনটাই জানিয়েছেন নিগৃহীতারা ৷

    স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন নিগৃহীতা মহিলারা ৷ তাদের প্রত্যেকের বয়স ২০ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে বলে জানা গিয়েছে ৷ পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্তরা এখনও অবধি পলাতক ৷ পাশাপাশি, নিগৃহীতাদের পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য স্থানীয় হাসপাতালেই একটি মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে ৷ সেই মেডিক্যাল বোর্ডের রিপোর্টেই মিলেছে ধর্ষণের প্রমাণ ৷

    First published: