দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

Delhi Violence: মাত্র ৫ ঘণ্টায় পশ্চিম দিল্লি থেকে পুলিশের কাছে ৪৮১ প্যানিক কল!

Delhi Violence: মাত্র ৫ ঘণ্টায় পশ্চিম দিল্লি থেকে পুলিশের কাছে ৪৮১ প্যানিক কল!
সংগৃহীত ছবি

রবিবারের ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে রিপোর্ট পাঠিয়েছে পুলিশ।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: মাত্র পাঁচ ঘণ্টাতেই পুলিশের কাছে ৪৮১ ফোন।

রবিবার দিল্লিতে হিংসা ছড়িয়ে পড়ার খবর দিয়ে পুলিশ কন্ট্রোলরুমে শতাধিক ফোন এসেছিল। শুধুমাত্র পশ্চিম দিল্লিতেই সন্ধ্যা ৭টা থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত মাত্র ৫ ঘণ্টায় ৪৮১টি প্যানিক কল এসেছিল। রবিবারের ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে রিপোর্ট পাঠিয়েছে পুলিশ।

পশ্চিম দিল্লিতে ১২টি থানা রয়েছে। সেখানেই এই বিপুল সংখ্যায় ফোন এসেছে। ৪৮১টি ফোনের মধ্যে ১৪৮টি ফোন করা হয়েছিল তিলক নগর এলাকা থেকে। ১৪৩টি ফোন করা হয়েছিল খায়ালা থানা এলাকা থেকে। এছাড়াও রাজৌরি গার্ডেন থেকে ৯৬, পঞ্জাবি বাগ এলাকা থেকে ২৬টি, হরি নগর থেকে ২৪, মোতি নগর থেকে ১৭ ও জনকপুরী থেকে ১১টি ফোন যায় পুলিশের কন্ট্রোলরুমে। দিল্লি পুলিশের দাবি, সেই সব ফোনেই সবাই দাবি করে তাঁদের এলাকায় সাম্প্রদায়িক হিংসা শুরু হয়েছে। যদিও পুলিশের এক শীর্ষ কর্তার দাবি, 'সব ফোন মিথ্যে ছিল।' তবে শহরজুড়ে যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল, তা জানিয়েছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ওইদিন সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ খায়ালা এলাকার একটি জুয়ার ঠেকে তল্লাশি চালানো হয়। তারপর থেকেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। পুলিশের এক আধিকারিকের কথায়, ' তল্লাশির সময় সেখানে উপস্থিত সকলে এদিক ওদিক দৌড়াদৌড়ি শুরু করেন। শুরু হয় চিৎকার- চেঁচামেচি। কেউ বলতে শুরু করেন পুলিশকে লক্ষ করে কেউ গুলি চালিয়েছে। কিছু চ্যানেলে দেখানো হয় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট ছোড়া হয়েছে। কিন্তু সম্পূর্ণ ঘটনাই মিথ্যে ছিল।'

রাজধানীতে হিংসার গুজব রুখতে কড়া পদক্ষেপ করে দিল্লি পুলিশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় গুজব ও আতঙ্ক ছড়ানো থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানানো হয়। গুজব ছড়ানোর অভিযোগে রবিবার রাতে মোট ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গুজব ছড়িয়ে পড়তেই দিল্লি মেট্রো তিলকনগর, নাঙ্গলই, সূরজমাল স্টেডিয়াম, বদরপুর, তুঘলকাবাদ, উত্তমনগর ওয়েস্ট এবং নওয়াদা মেট্রো স্টেশনের প্রবেশ এবং প্রস্থান গেট বন্ধ করে দেওয়া হয়।

দিল্লি পুলিশের তরফে জানা গিয়েছে, ২৭ ফেব্রুয়ারি জাহাঙ্গীরপুরী থানায় রাত ৮.৪৭ মিনিট থেকে ১১.০৭ মিনিটের মধ্যে ২৮৬টি ফোন এসেছিল। তার মধ্যে ২২৪জন ফোন করে হিংসা ছড়াচ্ছে আশঙ্কা প্রকাশ করেন। তবে শুধু ফোনেই নয়, সোশ্যাল মিডিয়াতেও ইংসার খবর ছড়িয়ে পড়েছিল নিমেষের মধ্যে।

Published by: Shubhagata Dey
First published: March 2, 2020, 2:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर