পঞ্জাবে বিষমদ খেয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৮, চোলাই মদের ঠেক ভাঙার অভিযান শুরু

Representative Image

তর্ন তরন জেলায় মারা গিয়েছেন ১৩ জন, অমৃতসরে ১১ ও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বাটালা জেলায়৷ পঞ্জাবের ডিজিপি দীপঙ্কর গুপ্তা জানিয়েছেন, প্রথমে গত ২৯ জুলাই রাতে অমৃতসরের দুটি গ্রাম থেকে বিষমদ খেয়ে ৫ জনের মৃত্যুর খবর আসে৷

  • Share this:

    #চণ্ডীগড়: বিষ মদ খেয়ে পঞ্জাবে মৃত্যু হল ৩৮ জনের৷ পঞ্জাবের তিনটি জেলায় এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে৷ ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং৷ বুধবার রাত থেকে অমৃতসর, বাটালা ও তর্ন তরন জেলা মিলিয়ে বিষমদ খেয়ে মৃত্যু হয়েছে মোট ৩৮ জনের৷ আরও বেশ কয়েকজন গুরুতর অসুস্থ৷

    তর্ন তরন জেলায় মারা গিয়েছেন ১৩ জন, অমৃতসরে ১১ ও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বাটালা জেলায়৷ পঞ্জাবের ডিজিপি দীপঙ্কর গুপ্তা জানিয়েছেন, প্রথমে গত ২৯ জুলাই রাতে অমৃতসরের দুটি গ্রাম থেকে বিষমদ খেয়ে ৫ জনের মৃত্যুর খবর আসে৷ তারপর মৃতের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে৷ শুক্রবার রাতে তা বেড়ে ৩৮ হয়ে যায়৷

    পুলিশ ইতিমধ্যে অমৃতসরের মুছাল গ্রাম থেকে বলবিন্দর কউর নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে৷ মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন, ঘটনায় দোষীদের কড়া শাস্তি হবে৷ একই সঙ্গে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন, রাজ্যজুড়ে বেআইনি মদের ঠেক ভাঙার অভিযান চালানোর জন্য৷

    অমরেন্দ্র সিংহ শুক্রবার টুইট করেন, 'বিষমদে মৃত্যুর ঘটনায় ম্যাজিস্ট্রেট পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছি। জলন্ধর ডিভিশনের কমিশনার এই তদন্ত পরিচালনা করবেন। সংশ্লিষ্ট জেলাগুলির এসএসপি এবং অন্য প্রশাসনিক আধিকারিকরা তাঁকে সহায়তা করবেন। দোষীদের রেহাই মিলবে না।'

    স্থানীয বাসিন্দাদের অভিযোগ, পুলিশের সঙ্গে যোগসাজশেই এলাকায় চোলাই মদের কারবার চলছে দীর্ঘদিন ধরে৷

    Published by:Arindam Gupta
    First published: