• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • 3 WOMEN GIVEN ANTI RABIES SHOTS INSTEAD OF COVID VACCINE IN UP SANJ

যোগী রাজ্যে করোনা টিকার বদলে তিন বৃদ্ধাকে দেওয়া হল জলাতঙ্কের টিকা!

ভ্যাকসিন বিভ্রাট প্রতীকী ছবি

বৃহস্পতিবার শামলির একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে টিকাকরণ কর্মসূচি চলছিল। সেখানে টিকা নিতে গিয়েছিলেন তিন বৃদ্ধা।

  • Share this:

    #উত্তরপ্রদেশ : করোনা টিকার জায়গায় জলাতঙ্কের টিকা দেওয়ার অভিযোগ উঠল উত্তরপ্রদেশের (Uttarpradesh) শামলিতে। বৃহস্পতিবার শামলির একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে টিকাকরণ (vaccination) কর্মসূচি চলছিল। সেখানে টিকা নিতে গিয়েছিলেন সরোজ নামে বছর সত্তরের এক বৃদ্ধা। টিকা দেওয়ার পরই তাঁর ঝিমুনি ভাব আসে। শারীরিক অস্বস্তি বাড়তে শুরু করলে তাঁর পরিবার হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করেন। পরে স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে দেওয়া প্রেসক্রিপশন খতিয়ে দেখে চিকিৎসকরা জানান কোভিড টিকার (Covid-Vaccine) বদলে তাঁকে দেওয়া হয়েছে জলাতঙ্কের টিকা। এরপর দেখা যায়, আরও দুই বৃদ্ধা আনারকলি (‌৭২)‌ এবং সত্যবতীর (‌৬২)‌ প্রেসক্রিপশনেও একই কথা লেখা হয়েছে। বিষয়টি সামনে আসতেই শোরগোল পড়ে যায়।

    ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তোলেন বৃদ্ধাদের পরিবার। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক (CMO) সঞ্জয় আগরওয়াল জানিয়েছেন, ওই স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপর এবং নীচের তলায় টিকাকরণ কর্মসূচি চলছিল। তার মধ্যে একটিতে কোভিডের টিকা দেওয়া হচ্ছিল। অন্যটিতে চলছিল জলাতঙ্কের টিকা দেওয়ার কাজ। কীভাবে এই ভুল হল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। এই ঘটনায় কারও গাফিলতি ছিল কি না তা–ও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। জেলাশাসক জসজিৎ কৌর বলেন, ‘‌গোটা ঘটনার তদন্ত করা হবে। যদি কোনও আধিকারিকের গাফিলতি প্রমাণিত হয়, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।' প্রাথমিক তদন্তে মনে করা হচ্ছে ওই তিন বৃদ্ধা করোনা ভ্যাকসিন নিতে যান। কিন্তু তাঁরা ভুল করে ওপিডি লাইনে (Outpatient department) দাঁড়িয়ে পড়েন। সেখানেই তাঁরা টিকা নেওয়ার আর্জি করেন। ভুল লাইনে দাঁড়ানোতেই নাকি তাঁদের রেবিজ-এর ভ্যাকসিন দিয়ে দেন কর্তব্যরত স্বাস্থ্যকর্মী।'‌

    আপাতত সুস্থ ওই তিন বৃদ্ধা। তবে ভুল লাইনে দাঁড়ালেও বৃদ্ধাদের ঠিক করে জিজ্ঞাসা না করেই কেন টিকা দেওয়া হল, তাই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। গোটা বিষয়ের তদন্তের আশ্বাস দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: