বিপাকে যাদব পরিবার, পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির ঝামেলার মাঝেই এবার ক্ষমতার অপব্যবহারের নয়া অভিযোগ

বিপাকে যাদব পরিবার, পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির ঝামেলার মাঝেই এবার ক্ষমতার অপব্যবহারের নয়া অভিযোগ

বিপাকে যাদব পরিবার, পশু খাদ্য কেলেঙ্কারির ঝামেলার মাঝেই এবার ক্ষমতার অপব্যবহারের নয়া অভিযোগ

  • Share this:

#পটনা: সমস্ত ‘আইনকানুন’ মেনেই গত আট দিন ধরে আরজেডি প্রধান লালু প্রসাদ যাদবের বাড়ি ডিউটিতে রয়েছেন সরকারি চিকিৎসক ও নার্সদের একটি দল ৷ তবুও এই নিয়েই উঠছে বিতর্ক ৷ ফের যাদব পরিবারের বিরুদ্ধে উঠেছে প্রশাসনিক ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ ৷

প্রায় গত এক সপ্তাহ ধরে তিনজন সরকারি চিকিৎসক ও দুই জন নার্স লালুপ্রসাদের বাড়িতে ২৪ ঘণ্টার দায়িত্বে পোস্টেড ৷ এই ঘটনাই ফের জন্ম দিয়েছে বিতর্কের ৷ আসলে আরজেডি সুপ্রিমোর বড় ছেলে তেজ প্রতাপ যাদব রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ৷ বিরোধীদের অভিযোগ, সেই ক্ষমতাকেই কাজে লাগিয়ে সরকারি চিকিৎসকদের মন্ত্রীর আত্মীয়ের স্বাস্থ্য পরিচর্যার কাজে লাগানো হচ্ছে ৷

প্রবীণ বিজেপি নেতা সুশীল মোদি বলেন, ইন্দিরা গান্ধি ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স অর্থাৎ (IGIMS)-এর মতো সরকারি হাসপাতালের গুরুত্বপূর্ণ তিন চিকিৎসক ও নার্সদের ব্যক্তিগত কাজে নিযুক্ত করার মতো নিন্দাজনক কাজ লালু প্রসাদ ও তার পরিবারের পক্ষেই সম্ভব ৷

এতেই শেষ নয় তিনি আরও বলেন, IGIMS-এর গর্ভনিং বডির সভাপতি তেজ প্রতাপ নিশ্চিতভাবে অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের উপর চাপ সৃষ্টি করেছে ৷ চাপের মুখে পড়েই সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসককে মন্ত্রীর বাড়ির ব্যক্তিগত কাজে নিযুক্ত করতে বাধ্য হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ৷ সরকারি হাসপাতালে হাজার হাজার রোগীকে ফেলে রেখে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বাড়িতে একজন রোগীর দেখভাল করছেন চিকিৎসক ও নার্স ৷ তাঁর প্রশ্ন, ‘তেজ প্রতাপ যাদব কি জানেন না ডাক্তারের অভাবে সঠিক সময় চিকিৎসা না পেয়ে সরকারি হাসপাতালে কত মানুষ মরতে বসেছেন?’

তবে এই বিতর্কে জেডিইউ পার্টির তরফ থেকে কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি ৷ লালুর পরিবারকে ঘিরে ওঠা এই বিতর্ক থেকে নিজেদের দূরে সরিয়ে রেখেছে জেডিইউ ৷ দলের মুখপাত্র রাজীব রঞ্জন জানিয়েছেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী তেজ প্রতাপ যাদব এবং তাঁর মন্ত্রক ৷ বিহারে এই মুহূর্তে সরকারে রয়েছে আরজেডি, জেডিইউ ও কংগ্রেস জোট ৷

অন্যদিকে, আরজেডি পার্টির মুখপাত্র শক্তি যাদব জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে তেজ প্রতাপ যাদব তাঁর পরিবারের কোনও সদস্যকে দেখার জন্য সরকারি চিকিৎসককে অনুরোধটুকুই করতে পারেন কিন্তু এরকম কোনও অর্ডার তিনি কখনই দেননি ৷ সবই বিরোধীদের চক্রান্ত বলে অভিযোগ আরজেডির ৷

উল্লেখ্য, যাদব পরিবারের কোন সদস্যের অসুস্থতার জন্য সরকারি চিকিৎসক দলকে সেখানে পাঠানো হয়েছিল তা জানা যায়নি ৷ তবে এই বিতর্কের পরই যাদব বাসভবন থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে চিকিৎসক দলকে ৷

মেডিক্যাল টিমে ছিলেন, ডাঃ নরেশ কুমার ( জেনারেল মেডিসিন বিভাগীয় প্রধান), ডাঃ কৃষ্ণা গোপাল (অ্যাসোসিয়েট সুপারিটেন্ডেন্ট), ডাঃ আমান কুমার (ডেপুটি সুপারিটেন্ডেন্ট), অনিল সাইনি (CCU স্টাফ নার্স) এবং বিক্রম চরণ (OT স্টাফ নার্স) ৷

নিউজ ১৮-এর কাছে IGIMS হাসপাতালের সুপারিটেন্ডের সাক্ষর করা সেই চিঠির কপিও আছে, যেখানে ওই তিন চিকিৎসক ও দুই নার্সকে আরজেডি সু্প্রিমোর বাড়ি থেকে অবিলম্বে নিজেদের দফতরে যোগ দিতে বলা হয়েছে ৷

First published: 06:11:45 PM Jun 14, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर