• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • অধিবেশন শুরু হতেই কৃষি আইন বিরোধিতায় উত্তাল রাজ্যসভা, সাসপেন্ড তিন আপ সাংসদ

অধিবেশন শুরু হতেই কৃষি আইন বিরোধিতায় উত্তাল রাজ্যসভা, সাসপেন্ড তিন আপ সাংসদ

রাজ্যসভায় ব্যাপক গোলমাল। সাসপেন্ড তিন আপ সাংসদ। ফাইল চিত্র।

রাজ্যসভায় ব্যাপক গোলমাল। সাসপেন্ড তিন আপ সাংসদ। ফাইল চিত্র।

পরিস্থিতি সামাল দিতে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু সাসপেন্ড করলেন তিন আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং, এনডি গুপ্ত, সুশীল গুপ্তকে। r

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: কৃষি আইন নিয়ে অধিবেশনের শুরুতেই ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল রাজ্যসভা। পরিস্থিতি সামাল দিতে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু সাসপেন্ড করলেন তিন আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং, এনডি গুপ্ত, সুশীল গুপ্তকে।

    এদিন সকাল নটায় রাজ্যসভা‌য় অধিবেশন শুরু হয়। গত দুদিনের মতোই বিরোধী সাংসদরা কৃষি আইনের বিরোধিতায় স্লোগান দিতে শুরু করেন। বেঙ্কাইয়া নাইডু তাঁদের সতর্ক করে চেয়ারে ফিরে যেতে বললেও কাজ হয়নি। আম আদমি পার্টির তিন সাংসদ এই সময় ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন। সঞ্জয় সিং, এনডি গুপ্ত, সুশীল গুপ্তকে এই সময় নাম ধরেই বেরিয়ে যেতে বলেন নাইডু। পাঁচ মিনিটের জন্য সভা মুলতুবি হয়।

    ফের সভা শুরু হতে দেখা যায় সঞ্জয় সিং-রা রাজ্যসভা ত্যাগ করেননি। চেয়ারম্যান মার্শাল ডেকে তাঁদের বের করে দিতে বলেন। তারপরে রাজ্যসভায় অভিভাষণ পর্ব শুরু হয়।

    কৃষিআইন নিয়ে মোট দশঘণ্টা আলোচনার কথা ছিল। কিন্তু লাগাতার বিরোধিতার জেরে আরও পাঁচ ঘণ্টা সময় বা়ড়িয়ে দেওয়া হয় আলোচনার জন্য। সেক্ষেত্রে আগামী দুদিন রাজ্যসভায় কোনও প্রশ্নোত্তর পর্ব হবে না। মোট পনেরো ঘণ্টা আলোচনা হবে।

    রাজ্যসভায় বিরোধী দলনেতা গুলাম নবি আজাদ বলেন, সরকার আমাদের প্রস্তাবে সম্মত হয়েছে। আমরা বিষয়টিনিয়ে আলোচনায় রাজি। গুলাম নবি আজাদ আরও বলেন, আমরা চেয়েছিলাম মোশন অফ থ্যাংকস বা অভিভাষণের আগেই বিষয়টি আলোচনা হোক। তা যখন হয়নি তাহলে তা অভিভাষণের পরেই এই অতিরিক্ত সময় দেওয়া হোক।

    প্রসঙ্গত এদিন গুলাম নবী আজাদ সাধারণ তন্ত্র দিবসের হিংসার ঘটনার সমালোচনাও করেন। তিনি বলেন, "সেদিন যা হয়েছে তা গণতন্ত্রের পরিপন্থী। কিন্তু যে কৃষক নেতারা এর সঙ্গে জড়িত নন, তাঁদের অকারণে হেনস্তা করা উচিত নয়। যারা ঘটনায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নিতে হবে। মনে রাখতে হবে সেনা এবং কৃষক এই দুই স্তম্ভ ছাড়া আমাদের কোনও অস্তিত্বই নেই। ফলে কৃষকদের বিপদে ফেলে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া চলবে না। অধিকারের লড়াই দীর্ঘদিন ধরেই লড়ছেন কৃষকরা।"

    Published by:Arka Deb
    First published: