Goa: মধ্যরাতে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ২৬ জন করোনা রোগীর মৃত্যু গোয়ার হাসপাতালে! তদন্ত চাইছেন রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী

একই সঙ্গে মৃত্যু হলো ২৬ জন করোনা রোগীর। কিন্তু ঠিক কী কারণে মৃত্যু হলো তা নিয়ে তদন্ত চাইছেন গোয়ার স্বাস্থ্য়মন্ত্রী বিশ্বজিৎ রানে।

একই সঙ্গে মৃত্যু হলো ২৬ জন করোনা রোগীর। কিন্তু ঠিক কী কারণে মৃত্যু হলো তা নিয়ে তদন্ত চাইছেন গোয়ার স্বাস্থ্য়মন্ত্রী বিশ্বজিৎ রানে।

  • Share this:

    #পানাজি: গোটা দেশে করোনার দ্বিতীয় (Second wave corona) ঢেউয়ে পরিস্থিতি বেলাগাম। হাসপাতালে বেড থেকে অক্সিজেনের ঘাটতির (Oxygen crisis) জন্য জেরবার মানুষ। তার মধ্যেই বড় অঘটন ঘটে গেল গোয়া (Goa) মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালে। একই সঙ্গে মৃত্যু হলো ২৬ জন করোনা রোগীর। কিন্তু ঠিক কী কারণে মৃত্যু হলো তা নিয়ে তদন্ত চাইছেন গোয়ার স্বাস্থ্য়মন্ত্রী বিশ্বজিৎ রানে। সোমবার রাত ২টো থেকে মঙ্গলবার ভোর ৬টার মধ্যেই প্রত্যেকের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। কিন্তু ঠিক কী কারণে মৃত্যু তা নিয়ে তিনি কিছু বলেননি।

    গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত ঘটনার পরে হাসপাতালে আসেন। তিনি বলেছেন, যে ওয়ার্ডে কোভিড রোগীরা ছিল সেখানে অক্সিজেন পৌঁছতে বেশি সময় লেগে থাকলে এই ঘটনার পিছনে সেটি একটি কারণ হতে পারে। যদিও রাজ্যে অক্সিজেনের কোনও ঘাটতি নেই বলেই তিনি দাবি করেছেন।

    প্রমোদ সাওয়ান্ত হাসপাতাল ঘুরে যাওয়ার পরে স্বাস্থ্য়মন্ত্রী রানে বলেছেন, মৃত্যুর পিছন কী কারণ রয়েছে তা হাইকোর্টের খতিয়ে দেখা উচিত। এছাড়াও তিনি বলছেন, সোমবার ১২০০ অক্সিজেন সিলিন্ডারের প্রয়োজন ছিল। যেখানে মাত্র ৪০০ টি সরবরাহ করা হয়। তিনি জানান গোয়া মেডিকেল কলেড অ্যান্ড হসপিটালে কেমন করোনা চিকিৎসা হচ্ছে তা দেখার জন্য তিনজন নোডাল অফিসারের একটি দল গঠন করা হয়েছে। এখান থেকে প্রাপ্ত তথ্য মুখ্যমন্ত্রীকে দেওয়া হবে।

    আজ সকালেই পিপিই কিট পরে হাসপাতালে আসেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং সেখানে রোগী ও তাঁদের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। তাঁদের সঙ্গে কথা বলেই তিনি জানান, অক্সিজেন নিয়ে কিছু সমস্যা রয়েছে। এই বিষয়ে তিনি বলছেন, চিকিৎসকরা রোগী দেখতে ব্যস্ত। তাঁদের অক্সিজেন জোগাড় করার কথা নয়। আমি একটি বৈঠক করব যাতে রোগীগের কাছে নির্দিষ্ট সময়ে অক্সিজেন পৌঁছয়।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: