• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • ধর্ষণের দায়ে বৃন্দাবনের তান্ত্রিকের ২৫ বছরের জেল ২৫ হাজার টাকা জরিমানা

ধর্ষণের দায়ে বৃন্দাবনের তান্ত্রিকের ২৫ বছরের জেল ২৫ হাজার টাকা জরিমানা

Photo Collected

Photo Collected

এক মহিলা ২৫ বছরের মহিলা পেটের ব্যাথা থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য স্বামী সন্তানকে নিয়ে এক তান্ত্রিকের কাছে যান । তান্ত্রিকের যৌন নিগ্রহ ও ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে ঐ তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে ঘটনাটি ঘটেছে বৃন্দাবনের এক আশ্রমে

  • Share this:
    #মথুরা: এক মহিলা ২৫ বছরের মহিলা পেটের ব্যাথা থেকে নিষ্কৃতি পাওয়ার জন্য স্বামী সন্তানকে নিয়ে এক তান্ত্রিকের কাছে যান । তান্ত্রিকের যৌন নিগ্রহ ও ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে ঐ তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে ঘটনাটি ঘটেছে বৃন্দাবনের এক আশ্রমে । গত বছরের ২২ জুলাই বৃন্দাবনে এসে বাবা দ্বারকাদাসের বিরুদ্ধে এফআইআর করে নির্যাতিতার পরিবার । ঐ তান্ত্রিকের বিরুদ্ধে ফাস্ট ট্র্যাক আদালতে মামলা দায়ের করা হলে আদালত ২৫ বছরের কারদণ্ডের নির্দেশ ও ২৫ হাজার টাকার জরিমানার নির্দেশ দেয় । টাকা না দিতে পারলে আরও ২৭ মাসের আতিরিক্ত কারাবাস হবে ঐ তান্ত্রিকের । জানা গেছে মহিলাকে তন্ত্র প্রয়োগে করে সুস্থ করার জন্য ঐ আশ্রমের ৩ তলায় নিয়ে যাওয়া হয় । মহিলার স্বামীকে নিচে পাঠিয়ে হাতে একটি জ্বলন্ত প্রদীপ দিয়ে বলা হয় যতক্ষণ ঝাড়ফুক চলবে ততক্ষণ যেন প্রদীপ না নেভে । তারপর অভিযুক্ত তান্ত্রিক বাবা দ্বারকাদাস পাশবিকতা ও অমানবিকতার চূড়ান্ত নিদর্শন রাখেন । ঐ মহিলাকে ধর্ষণ করে বলে অপশক্তির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য এমনটাই করতে হয় । পরর দিন আবার তন্ত্র প্রয়োগের নামে আবার ধর্ষিতা হয় ঐ মহিলা । নির্যাতিতাকে মুখ বন্ধ রাখার হুমকি দেওয়া হয়, না হলে তার পরিবারকে মেরে ফেলবে । বিচার প্রক্রিয়ার শেষের দিকে এসে নির্যাতিতা জানান অন্য কোনও ব্যক্তি তাঁকে ধর্ষণ করেন । ঐ মহিলার বয়ানের ভিত্তিতে বাবা দ্বারকাদাসকে ২০ বছরের কারাডণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদেশ দেয় চাকা না দিতে পারলে অতিরিক্ত দেড় বছরের কারাবাস । এছাড়াও জানা গেছে হুমকি দেওয়ার অভিযোগে ৪ বছরের অতিরিক্ত জেল ও ৪ হাজার টাকা জরিমানা । জরিমানার টাকা না দিতে পারলে অতিরিক্ত ৬ মাসের জেল । প্রতারণরা দায়ে অতিরিক্ত ১ বছরের কারদণ্ড ও ১ হাজার টাকা জরিমানা টাকা না দিতে পারলে ৩ মাসের অতিরিক্ত জেলের সাজা শোনায় আদালত । আদালতের রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে জানা গেছে ঘোষিত সব শাস্তিই আলাদা অপরাধের জন্য আলাদা আলাদা ভাবে কার্যকর থাকবে ।
    First published: