টি-শার্ট পরে স্কুটি চালানোয় খুন!

টি-শার্ট পরে স্কুটি চালানোয় খুন!
  • Share this:

#নৈহাটি: নৈহাটির মালঞ্চপাড়ায় মহিলার রহস্যমৃত্যু। টিশার্ট ও ট্রাউজার পরে স্কুটি চালানোয় শ্বশুরবাড়িতে অশান্তি। তার জেরেই মহিলাকে মারধরের পর শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ। শ্বশুরবাড়ির পালটা দাবি, খুন নয়, আত্মহত্যা করেছেন পরিবারের ছোট বউমা। গ্রেফতার তিন।

নৈহাটির মালঞ্চপাড়ায় শ্বশুরবাড়িতে উনিশ বছরের কেয়া দাসের মৃত্যু ঘিরে টানাপোড়েন। ২০১৮ সালের অগাস্টে পল্টু দাসের সঙ্গে বিয়ে হয় হরিনগর কলোনির কেয়ার। শুক্রবার শ্বশুরবাড়ি থেকে উদ্ধার হয় কেয়ার ঝুলন্ত দেহ। শ্বশুরবাড়ির দাবি, আত্মহত্যা করেছেন কেয়া। পালটা খুনের অভিযোগ তুলেছেন কেয়ার বাপেরবাড়ির সদস্যরা। তাঁদের অভিযোগ,

মেয়েকে আধুনিক পোষাক পরতে দেওয়া হত না শ্বশুরবাড়িতে। বাপেরবাড়িতে এসে টি-শার্ট ও ট্রাউজার পরে ভাইয়ের কাছে স্কুটি চালানো শিখছিলেন কেয়া। তাঁর এক জা কেয়াকে দেখে শ্বশুরবাড়িতে জানিয়ে দেন। তাই নিয়েই অশান্তির জেরে কেয়াকে খুন করে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়।

কেয়ার দেহ উদ্ধারের পর বাপেরবাড়িতে খবরও দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। নৈহাটি থানায় খুনের অভিযোগ করেন তাঁরা।শ্বশুরবাড়ির পালটা দাবি, পরিবারের ঐতিহ্য মেনে জিনস, টিশার্ট, স্কার্ট নিয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও, এই নিয়ে বাড়ির ছোট বউমার উপর কোনওরকম অত্যাচার করা হয়নি। তাঁদের অভিযোগ, আত্মহত্যা করেছেন কেয়া।

কেয়ার মৃত্যু ঘিরে শুক্রবার রাতে উত্তেজনা ছড়ায় মালঞ্চপাড়ায়। দেহ রাস্তায় রেখে অভিযুক্তদের গ্রেফতারের দাবিতে গরুফাঁড়ি মোড়ে অবরোধ করে মৃতার পরিবার। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে নৈহাটি থানার পুলিশ।ঘটনায় গ্রেফতার শ্বশুর, কাকা শ্বশুর ও বড় জা ।

First published: June 30, 2019, 6:25 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर