• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • গৃহবন্দি ‌থাকার নির্দেশ দেওয়ার পরেও ‌পুণের মসজিদ থেকে পালিয়ে গেলেন ১১ জামাত সদস্য

গৃহবন্দি ‌থাকার নির্দেশ দেওয়ার পরেও ‌পুণের মসজিদ থেকে পালিয়ে গেলেন ১১ জামাত সদস্য

ভারতের অধিকাংশ রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতেই থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস৷ কিন্তু এখনও এমন কয়েকটি রাজ্য রয়েছে, যারা করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে যথেষ্টই সফল হয়েছে৷ এমন কিছু রাজ্য রয়েছে যেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ বা ২, আবার এমন রাজ্যও আছে যেখানে কোনও করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলেনি৷ রবিবার বিকেল চারটে পর্যন্ত কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সেরকমই কিছু রাজ্যের নামের তালিকা তৈরি করা হলো৷ PHOTO- FILE

ভারতের অধিকাংশ রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতেই থাবা বসিয়েছে করোনা ভাইরাস৷ কিন্তু এখনও এমন কয়েকটি রাজ্য রয়েছে, যারা করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে যথেষ্টই সফল হয়েছে৷ এমন কিছু রাজ্য রয়েছে যেখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ বা ২, আবার এমন রাজ্যও আছে যেখানে কোনও করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলেনি৷ রবিবার বিকেল চারটে পর্যন্ত কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী সেরকমই কিছু রাজ্যের নামের তালিকা তৈরি করা হলো৷ PHOTO- FILE

পুলিশ জানিয়েছে গত ২২ ফেব্রুয়ারি তাঁরা পুণে এসেছিলেন।

  • Share this:

    #‌পুণে:‌ ১১ জামাত সদস্য পালিয়ে গেলেন পুণের শিরুর তাহসিলের একটি মসজিদ থেকে। শুক্রবার পুণের পুলিশ জানিয়েছে, তাঁদের হাতে ‘‌হোম কোয়ারেন্টাইন’‌ স্টাম্প দিয়ে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল গৃহবন্দি থাকতে। কিন্তু তাও পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে গেলেন তাঁরা।

    পুলিশ জানিয়েছে এই ১১ জনের কেউই দিল্লির নিজামুদ্দিন দরগা তাবলিঘি জামাতের জমায়েতে অংশ নেননি। কিন্তু তবু সুরক্ষার খাতিরে এই ১১ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইন স্টাম্প দিয়ে আলাদা করে থাকতে বলা হয়েছিল। কিন্তু এই সুরক্ষার নির্দেশ তাঁরা মানেননি। পুলিশ প্রশাসনের চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে গিয়েছেন। এরা মধ্যপ্রদেশ এবং রাজস্থান হরিয়ানা বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে।

    পুলিশ জানিয়েছে গত ২২ ফেব্রুয়ারি তাঁরা পুণে এসেছিলেন। ছয় মাস পর্যন্ত ছিলেন প্রাথমিকভাবে তাঁরা ছিলেন নানাপিঠ এলাকায়। সেখান থেকে পড়ে শিরুরের একটি মসজিদে তাঁদেরকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। দিল্লির ঘটনা সামনে আসার পরেই ১১ জনকে আলাদা করে রাখা হয়েছিল শিরুরের একটি মসজিদে। পরে তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা করা হয় এবং তাঁদের হাতে স্ট্যাম্প দিয়ে দেওয়া হয়। বলা হয় গৃহবন্দি থাকার জন্য।

    যেদিন তাঁদের প্রাথমিক পরীক্ষা করে ঘরে থাকতে বলা হয়েছিল, সেদিনই কোনও এক সময় একটি গাড়িতে তাঁরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায় বলে অভিযোগ। শুক্রাবর যখন পুলিশ তাঁদের খোঁজ করতে গিয়েছিল, আর তাদের পাওয়া যায়নি। এই ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে এবং খোঁজখবর চালাচ্ছে পুলিশ।

    এখনও পর্যন্ত দেশে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে। দিল্লির নিজামুদ্দিন দরগায় আয়োজিত জমায়েতে গিয়ে বিপুল সংখ্যক মানুষ যে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, তা ইতিমধ্যে জানিয়েছে প্রশাসন। আক্রান্তদের বেশিরভাগই রয়েছেন তামিলনাড়ুতে। সেই কারণে এক ধাক্কায় অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে দেশে করোন আক্রান্তের সংখ্যা।

    Published by:Uddalak Bhattacharya
    First published: