Covid-19: দেশ জুড়ে ১০টি জেলায় করোনা সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে, তালিকায় রয়েছে দিল্লিও

Covid-19: দেশ জুড়ে ১০টি জেলায় করোনা সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে, তালিকায় রয়েছে দিল্লিও

দেশের ১০টি জেলায় করোনা সংক্রমণ উদ্বেগ বাড়াচ্ছে, তালিকায় রয়েছে দিল্লিও

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ ভূষণ জানিয়েছেন এই মুহূর্তে দেশের ১০টি জেলায় সক্রিয় কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এবং এই ১০টি জেলার মধ্যে রয়েছে দিল্লিও।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ক্রমশ চিন্তা বাড়াচ্ছে করোনা (Covid 19)। দেশের বিভিন্ন জায়গায় বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এমনই জানিয়েছে দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রক। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ ভূষণ জানিয়েছেন এই মুহূর্তে দেশের ১০টি জেলায় সক্রিয় কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। এবং এই ১০টি জেলার মধ্যে রয়েছে দিল্লিও।

    এই ১০টি জেলার মধ্যে রয়েছে- পুণে, মুম্বই, নাগপুর, থানে, নাসিক, ঔরঙ্গাবাদ, বেঙ্গালুরু আরবান, নান্দেদ, দিল্লি এবং আহমেদনগর। দেশের এই জেলাগুলিতেই ক্রমশ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এই এলাকাগুলিতে RT-PCR পরীক্ষা যাতে বাড়ানো হয় সেই দিকে নজর দিতে বলা হয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রক থেকে।

    করোনা পরিস্থিতি সামলাতে যাঁরা আক্রান্ত এবং তাঁদের সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন তাঁদের অবিলম্বে আইসোলেশনের নির্দেশ দিচ্ছে কেন্দ্র। এই এলাকাগুলিতে যাতে ভিড় না হয় এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকে সেই দিকে নজর দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। বয়স অনুযায়ী যাতে কোভিডের টিকা বাড়ানো হয় সেই দিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

    করোনা সংক্রমণ ৫ গুণ বেড়ে গিয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। এই মুহূর্তেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আনলে সব কিছু হাতের বাইরে চলে যাবে। এখনই পরিস্থিতি বেশ চিন্তার বলেই জানাচ্ছে কেন্দ্র। স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানাচ্ছে, পঞ্জাবে পর্যাপ্ত পরিমাণে টেস্ট হচ্ছে না এবং তাই কারা পজিটিভ তা জেনে তাদের আইসোলেট করা যাচ্ছে না। দিল্লির সংক্রমণও অবিলম্বে নিয়ন্ত্রণে না আনলে পরিস্থিতি আরও হাতের বাইরে চলে যাবে।

    প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে নাইট কারফিউ। লাগু হয়েছে একগুচ্ছ বিধি-নিষেধ। কিন্তু তাতেও ঠেকানো যাচ্ছে না মহারাষ্ট্রের করোনা সংক্রমণের হার। পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপের দিকে এগোচ্ছে। দৈনিক সংক্রমণ বৃদ্ধির জেরে গত বছরের মতো হয়ত লকডাউনের পথে হাঁটতে পারে প্রশাসন। তেমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে মহারাষ্ট্র সরকার।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: