Home /News /murshidabad /
Murshidabad News: ফরাক্কায় বন্ধ ফেরিঘাট পরিষেবা, সমস্যায় পড়েছেন শ'দেড়েক গ্রামের মানুষ

Murshidabad News: ফরাক্কায় বন্ধ ফেরিঘাট পরিষেবা, সমস্যায় পড়েছেন শ'দেড়েক গ্রামের মানুষ

Ferry [object Object]

যোগাযোগের ক্ষেত্রে অসুবিধা হবে বলে ক্যানাল খননের সময় আপত্তি তুললে ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ আশ্বাস দিয়েছিলেন যাতায়াতের জন্য ফিডার ক্যানালের উপর ১০টি জায়গায় সেতু গড়ে দেবেন তারা।

  • Share this:

    #মুর্শিদাবাদ: মুর্শিদাবাদ জেলার ফরাক্কা ব্লকের ফিডার ক্যানালের পারাপারের একাধিক ফেরিঘাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় চরম সংকটে পড়েছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। ফেরিঘাটের নতুন ইজারাদার নিয়োগ নিয়ে গণ্ডগোলের জেরে ফরাক্কার ফিডার ক্যানালে পারাপারের একাধিক ফেরিঘাট বন্ধ হয়ে যায়। এর ফলে সকাল থেকে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন আশপাশের গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য চার দশক আগে ফরাক্কা ব্যারাজ তৈরির সময় ৩৮ কিলোমিটার দীর্ঘ একটি ফিডার ক্যানাল খনন করে ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ। এই ক্যানাল দিয়েই ফরাক্কা থেকে গঙ্গার জল গিয়ে মিশেছে সুতির আহিরণ সংলগ্ন গঙ্গায়। এই ক্যানালের দুই পাড়ে প্রায় শ'দেড়েক গ্রাম রয়েছে।

    যোগাযোগের ক্ষেত্রে অসুবিধা হবে বলে ক্যানাল খননের সময় আপত্তি তুললে ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ আশ্বাস দিয়েছিলেন যাতায়াতের জন্য ফিডার ক্যানালের উপর ১০টি জায়গায় সেতু গড়ে দেবেন তারা। যতদিন সেতু গড়া না হয় ততদিন যাত্রীদের বিনা পয়সায় নদী পেরোবার জন্য ফেরিঘাট চালাবে ফরাক্কা ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ। যদিও চার দশক পেরিয়ে গেলেও সেতু তৈরি করেনি ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ। ফলে যাতায়াতের জন্য ফেরিঘাটই ভরসা এলাকার গ্রামবাসীদের। সেই চুক্তি অনুসারে সুতি থেকে ফরাক্কার ঘোড়াইপাড়া , নিশিন্দ্রা, মালঞ্চা, শঙ্করপুর, বল্লালপুর, আমুহা, বালিয়াঘাটি, বামুহা সহ ওই এলাকায় আজও ১০টি ফেরিঘাট সার্ভিস চালু রেখেছেন ফরাক্কা ব্যারাজ। সরকারি শর্ত মেনে প্রতিবছর ফেরিঘাটগুলিতে নিঃখরচায় পারাপারের জন্য নিলাম ডাকা হয়। প্রায় আড়াইশো মাঝি রয়েছেন ওই দশটি ফেরিঘাটে।

    আরও পড়ুন - যন্ত্রণার নাম রেলগেট! মুক্তি চায় পাঁশকুড়াবাসী

    কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষণা অনুযায়ি মাঝিদের নূন্যতম হারে মজুরি, ছুটির দরুণ বাড়তি, বছরে ৮.৩৩ শতাংশ হারে বোনাস সহ যাবতীয় খরচ বাবদ ওই ১০টি ঘাট চালাতে বছরে ঠিকাদারদের প্রায় ৭কোটি টাকা মেটায় ফরাক্কা ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ। ৭ জন স্থানীয় ইজারাদার এই ঘাটগুলির জন্য এত দিন নিলাম ডাকতেন। এবারে কলকাতার দুটি সংস্থা এই ১০টি ফেরিঘাট ইজারা পেয়েছেন টেন্ডার ডেকে। সেইমত ফরাক্কা ব্যারাজ কর্তৃপক্ষ দুটি সংস্থাকেই ওয়ার্ক অর্ডারও দিয়েছেন ৪ জুলাই। পুরনো ইজারাদারদেরকেও ঘাট ছেড়ে চলে যাওয়ার কথা বলা হয়। কিন্তু হঠাৎই ফরাক্কা ব্যারাজের তরফে এক্সিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার একটি চিঠি দিয়ে স্থানীয় ইজারাদারদের জানায়, তাদের আরও একমাস ফেরিঘাট গুলি চালাতে হবে।

    আরও পড়ুন - Weather Update Today: ভাসছে উত্তর, দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি ঘাটতি ৪০%! আজকের কলকাতার ওয়েদার আপডেটে ভোলবদলের আশা কতটা

    আর এতেই পুরনো ইজারাদারদের কয়েকজন ঘাট ছেড়ে চলে গেছেন। ফলে বন্ধ হয়ে পড়েছে পারাপার। আহিরণ, শঙ্করপুর সহ একাধিক ঘাটে এই অচলাবস্থা চলছে। ঘাট পেরোতে না পারায় ওই এলাকার শ'দেড়েক গ্রামের মানুষের সবরকম যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়েছে। অবিলম্বে সমস্যা সমাধানের দাবি করেছেন এলাকার বাসিন্দারা। যদিও এই প্রসঙ্গে ফরাক্কা ব্যারেজ কর্তৃপক্ষ কোন কিছু বলতে চাননি।

    Kaushik Adhikary
    Published by:Debalina Datta
    First published:

    Tags: Berhampore, Farakka, Murshidabad

    পরবর্তী খবর