গোয়েন্দা গিন্নিকে তো দেখেছেন, এবার চিনে নিন, দেশের প্রথম মহিলা গোয়েন্দাকে !– News18 Bengali

গোয়েন্দা গিন্নিকে তো দেখেছেন, এবার চিনে নিন, দেশের প্রথম মহিলা গোয়েন্দাকে !

News18 Bangla
Updated:Nov 26, 2018 06:35 PM IST
গোয়েন্দা গিন্নিকে তো দেখেছেন, এবার চিনে নিন, দেশের প্রথম মহিলা গোয়েন্দাকে !
News18 Bangla
Updated:Nov 26, 2018 06:35 PM IST

‘কেউ জন্ম থেকেই গোয়েন্দা হয় না, তাকে গোয়েন্দা হয়ে উঠতে হয়’- রজনী পণ্ডিত

#মুম্বই: সিনেমায় দেখেছেন ববি জাসুস সেজে বিদ্যা বালনকে অভিনয় করতে ৷ টিভি সিরিয়ালে ইন্দ্রাণী হালদার গোয়েন্দা গিন্নি ৷ কিংবা গল্পের বইয়ে মিতিন মাসি ! মহিলা গোয়েন্দা মানে কী শুধুই সিনেমার পর্দা বা গল্পের বইয়ের পাতায়? হয়তো দেশের প্রথম মহিলা রজনী পণ্ডিতের সঙ্গে আলাপ না হলে এটাই মনে হত !

হ্যাঁ, রজনী পণ্ডিত ৷ দেশের প্রথম মহিলা গোয়েন্দা ৷ মাত্র ২২ বছর বয়সে যিনি প্রথম রহস্যের সমাধান করেছিলেন ৷ রজনীর বাবা সিআইডি ছিলেন ৷ ছোটবেলা থেকেই বাবার থেকে নানা রহস্য, সমাধানের গল্প শুনতেন রজনী ৷ আর তা থেকেই গোয়েন্দা হওয়ার শখ !

newspaper-11

মহারাষ্ট্রেই জন্ম ও বড় হওয়া রজনীর ৷ রজনীর বয়স এখন ৫০ ৷ রজনী কথায় কথায় জানিয়েছেন, আজ পর্যন্ত প্রায় ৮০ হাজারটার বেশি রহস্যের সমাধান করেছেন তিনি ৷ রজনী ‘হিউম্যানস অফ বোম্বে’কে নিজের গোয়েন্দা হওয়ার কথা জানিয়েছেন ৷

Loading...

newspaper

রজনীর কথায়, ‘আমি কলেজে পড়ার সময়ই প্রথম কেস সলভ করি ৷ কলেজে ফার্স্ট ইয়ারের পড়ার সময়ই ক্লার্কের চাকরি করেছি ৷ আর সেই অফিসের এক কলিগের বাড়িতে চুরি হওয়ার কথা শুনেই, আমার ভিতরের গোয়েন্দা জেগে ওঠে ৷ আমার কলিগ জানিয়েছিল, তাঁর ছেলের বউয়ের ওপর সন্দেহ হচ্ছিল ৷ তবে আমি কলিগের কথা খুব একটা শুনিনি ৷ বরং নিজেই শুরু করি রহস্যের সমাধান ৷ জানতে পারি আমার কলিগের ছেলেই ব্যাগ চুরি করেছে ৷ এরপর থেকেই মনে হয়, গোয়েন্দাগিরিকেই পেশা হিসেবে বেছে নেব !’

যে সময় রজনী তাঁর গোয়েন্দাগিরি শুরু করে, সেই সময় না ছিল ইন্টারনেট, না ছিল সোশ্যাল মিডিয়া ৷ নিজের বুদ্ধিমত্তা, আশে-পাশের লোকজনের সঙ্গে কথা বলেই রহস্যের সমাধান করতেন রজনী ৷ রজনী লিখেছেন, ‘গোয়েন্দা হওয়াটা খুব একটা সহজ কাজ নয় ৷ বেশ কঠিন ৷ এমনকী, আমার মা-বাবাও প্রথমে জানতেন না, আমি এরকম ধরনের কোনও কাজ করছি ৷ তবে বাবা যখন জানতে পারে আমার গোয়েন্দাগিরির কথা ৷ তখন আমাকে বলেছিল, খুব সাবধান ৷ গোয়েন্দা হওয়াটা খুব সাহসের কাজ ৷ তবে পরের দিকে আমাকে নানা বিষয়ে বাবা সাহায্যও করেছেন ! আমি ভালোবেসে ফেলেছি আমার পেশাকে! ’

এতদিন মিডিয়ার থেকে দূরেই ছিলেন রজনী ৷ তবে একটি হত্যা রহস্যের সমাধান করে সবার নজরে এলেন রজনী ৷ এই রহস্য সমাধানের জন্য রজনী পরিচারিকাও সেজে ছিলেন ৷ রজনী লিখেছেন, ‘এক ব্যক্তি নিজের স্ত্রী ও মেয়েকে হত্যা করেছিল৷ তার কাছে পৌঁছনোর জন্য পরিচারিকা সাজা ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না !’

First published: 05:30:37 PM Nov 26, 2018
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर