'মাকড়শার রস!' কামড় পড়তেই প্রস্রাব বন্ধ হয়ে গেল ব্যক্তির

'মাকড়শার রস!' কামড় পড়তেই প্রস্রাব বন্ধ হয়ে গেল ব্যক্তির
ব্ল্যাক উইডো মাকড়শা -- ছবিটি সংগৃহীত

সন্ধেয় বন্ধ হয়ে গেল প্রস্রাবও৷ ব্যক্তির কথায়, 'প্রস্রাব পাচ্ছে৷ বুঝতে পারছি৷ কিন্ত‌ু কিছুতেই করতে পারছি না৷ যৌনাঙ্গ অবশ হয়ে গিয়েছে৷ অনবরত ঘামছি৷ তলপেটে ব্যথা করছে৷ সারা রাত ঘুম হয়নি৷ প্রথমে স্থানীয় ডাক্তার ভেবেছিলেন, কিডনিতে স্টোন হয়েছে৷'

  • Share this:

#ওন্টারিও: বিষয়টিকে প্রথমে পাত্তা দেননি বছর ৫০-এর ওই ব্যক্তি৷ সমস্যা শুরু হয় রাতে৷ প্রস্রাব পাচ্ছে৷ কিন্ত‌ু করতে পারছেন না৷ শরীরের নানা পেশিতে অসহ্য যন্ত্রণা৷ অনবরত ঘাম হচ্ছে৷ ভিজে যাচ্ছে বিছানা৷ আর দেরি করেননি৷ সোজা হাসপাতাল৷ পরে বুঝলেন ওই ক্ষুদ্র এবং অতিশয় বিষধর মাকড়শাটির কামড়েই শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে বিষ৷

ঘটনাটি ঘটেছে কানাডার ওন্টিরিওতে৷ বাড়ি থেকে বেরিয়ে খালি পায়ে বাগানে হাঁটছিলেন৷ তখনই পায়ে কামড় দেয় বিষধর ব্ল্যাক উইডো মাকড়শা৷ কোনও ব্যথা হয়নি তখন৷ ফলে বিষয়টি নিয়ে মাথা ঘামাননি ওই ব্যক্তি৷ কিন্ত‌ু দিন যতই গড়াতে থাকল, অনুভব করলেন শরীর ধীরে ধীরে ক্লান্ত হয়ে পড়ছে৷ সন্ধেয় বন্ধ হয়ে গেল প্রস্রাবও৷ ব্যক্তির কথায়, 'প্রস্রাব পাচ্ছে৷ বুঝতে পারছি৷ কিন্ত‌ু কিছুতেই করতে পারছি না৷ যৌনাঙ্গ অবশ হয়ে গিয়েছে৷ অনবরত ঘামছি৷ তলপেটে ব্যথা করছে৷ সারা রাত ঘুম হয়নি৷ প্রথমে স্থানীয় ডাক্তার ভেবেছিলেন, কিডনিতে স্টোন হয়েছে৷'

উত্তর আমেরিকায় সবচেয়ে বিষধর মাকড়শার মধ্যে পয়লা নম্বরে রয়েছে ব্ল্যাক উইডো স্পাইডার৷ এই মাকড়শা কামড়ালে প্রথমেই ব্লাড প্রেসার বেড়ে যায়৷ কিন্ত‌ু কানাডায় এই মাকড়শা কোথা থেকে এল, তা নিয়ে চিন্তিত পরিবেশবিদরা৷ কারণ, ব্ল্যাক উইডো সাধারণত একটু গরম জলবায়ুতে থাকে৷ কানাডায় বেশ ঠান্ডা৷

তলপেটে প্রচণ্ড যন্ত্রণা নিয়ে প্রথমে ওই ব্যক্তি যান স্থানীয় হাসপাতালে৷ কিন্ত‌ু চিকিত্‍‌সকরা রোগ ধরতে পারেননি৷ প্রবল কষ্ট নিয়েই বাড়ি ফেরেন৷ তারপর আরও কিছু শারীরিক পরীক্ষা করাতে ওটাওয়ায় যান৷ সেখানেই ধরা পড়ে, ব্ল্যাক উইডো-র কামড়ে বিষাক্ত হয়ে গিয়েছে শরীর৷ ততক্ষণে মুখ ফুলে গিয়েছে৷ প্রস্রাবের থলি ফুলে লাল হয়ে গিয়েছে৷

ক্যাথেটার দিয়ে শেষ পর্যন্ত প্রস্রাব করাতে হয়৷ প্রায় ১ লিটার প্রস্রাব হয়েছে৷ সিটি স্ক্যান রিপোর্টে দেখা যাচ্ছে, ব্লাড প্রেসার অত্যন্ত বেশি৷ ব্ল্যাক উইডো স্পাইডারের লালায় থাকে মারাত্মক বিষ আলফা-ল্যাট্রোটক্সিন৷

First published: December 31, 2018, 11:40 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर