Home /News /malda /
Malda News- মালদহবাসীর জন্য দারুণ খবর! বিশ্বের দরবারে জেলার আম পেল নিজস্ব পরিচিতি!

Malda News- মালদহবাসীর জন্য দারুণ খবর! বিশ্বের দরবারে জেলার আম পেল নিজস্ব পরিচিতি!

জিআই

জিআই তকমা পেল মালদহের তিনটি প্রজাতির আম

মালদহের তিনটি প্রজাতির আম জিআই তকমা পেল- লক্ষণভোগ, হিমসাগর ও ফজলী।

  • Share this:

    #মালদহ- জিআই তকমা পেল মালদহের তিনটি প্রজাতির আম। গতবছর এই তিনটি প্রজাতির আমকে জিআই তকমা দেওয়া হয়েছে। জিআই তকমা হওয়ায়, এ তিন প্রজাতির আম মালদহের নিজস্ব আম হিসেবে পরিচিতি লাভ করল। কোন ফল বা খাদ্যসামগ্রী থেকে অন্যান্য সামগ্রীর জিআই তকমা দেওয়া হয় তার ভৌগলিক অবস্থানের ওপর নির্ভর করে। যে ভৌগলিক স্থানে কোন জিনিসের জন্ম বা উৎপন্ন হয় সেই এলাকা তার জিআই ট্যাগ পাওয়ার অগ্রাধিকার পেয়ে থাকে।

    প্রাচীনকাল থেকেই মালদহর আম বিখ্যাত। জগৎজোড়া নাম রয়েছে মালদহের বিভিন্ন প্রজাতির আমের। ভৌগলিক অবস্থানের ওপর ভিত্তি করে মালদহ জেলা উদ্যানপালন দফতরের পক্ষ থেকে জিআই ট্যাগ-এর জন্য আবেদন জানানো হয়। সেই আবেদনকে সিলমোহর দিয়েছে সংশ্লিষ্ট দফতর। মালদহের ফজলি, লক্ষণভোগ ও হিমসাগর, এই তিনটি প্রজাতির আম ইতিমধ্যে জিআই ট্যাগ-এর অন্তর্ভুক্ত। জিআই ট্যাগ পেয়ে যাওয়ায় আম বিক্রির ক্ষেত্রে অনেকটাই সুবিধা হবে এমনটাই দাবি জেলার ব্যবসায়ী থেকে আম চাষিদের।

    আরও পড়ুন- মালদহ মেডিক্যাল কলেজ চত্বরে এ কী কাণ্ড! বিপদে রোগীর আত্মীয়রা!

    লক্ষণভোগ (জি. আই- ১১১)- আনুমানিক একশত বছরের পূর্বে মালদহ জেলায় চাষ শুরু হয়েছিল লক্ষণভোগ আমের। কথিত আছে, মালদহের ইংরেজবাজার ব্লকের চন্ডিপুরের আমচাষি লক্ষণ মন্ডলের নাম অনুসারে এই আমের নামকরণ। স্থানীয় প্রচলিত নাম লখনা। এ আম দেখতে সুন্দর, বাজারে চাহিদাও ব্যাপক। ফলন ভালো হয়। খুব টানটান গায়ের উপরিভাগ। এই আম ডাঁটা নরম, ঝড়ে পরে যায় সহজে।

    আরও পড়ুন- পড়ুয়াদের নিয়ে আলোচনা সভা আন্তর্জাতিক সংগ্রহশালা দিবসে

    হিমসাগর (জি আই- ১১২)- সুমিষ্টি আম। গোলাকৃতি আম, আঁটি ছোট‌, আঁশহীন। জৈষ্ঠ মাসের শেষ সপ্তাহের দিকে এই আম পাকতে শুরু করে। পাকলে রং হলুদ হয়। বাজারে চাহিদা বেশি। ৩০০ থেকে ক্ষেত্র বিশেষে ৩৫০ গ্রাম পর্যন্ত হয় এই আমের ওজন।

    ফজলী (জি.আই- ১১৩)- মালদহের পরিচয় ফজলী আমের মধ্যে দিয়েই।প্রাচীনকাল থেকেই ফজলী মালদহের সর্বস্বীকৃত আম। ফজলী আমের আঁশ নেই, সুস্বাদু আম। এই আমের আঁটি পাতলা। ওজন ক্ষেত্র বিশেষে ৫০০ গ্রাম থেকে এক কেজি পর্যন্ত হয়। ফজলী লম্বাটে ধরণের আম। সাধারণত আষাঢ় মাসে পাকে। মালদহ জেলায় দুই ধরনের ফজলী আম পাওয়া যায়, সাধারণ ফজলী ও সুরমা ফজলী। স্বাদে সুরমা ফজলী শ্রেষ্ঠ‌। তবে দেখতে সুরমা ফজলি সুশ্রী নয়। সাধারণ ফজলীর থেকে আকারে ছোট হয়।

    মালদহ জেলা উদ্যানপালন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এই তিন প্রজাতির আমের লোগো বানানোর প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। আমের গায়ে লাগানো হবে সেই লোগো। সেখানে লেখা থাকবে জিআই ট্যাগ নম্বর সহ আমের নাম। লোগোতে আমের নাম থাকবে মালদহের ফজলী, মালদহের হিমসাগর ও মালদহের লক্ষণভোগ। এতে আমের মধ্যে দিয়ে জেলার পরিচিতি বাড়বে। পাশাপাশি দেশের বাজারেও মালদহের আম নামেই পরিচিত হবে লক্ষণভোগ, হিমসাগর ও ফজলী আম। এই বছর আশ্বিনা প্রজাতির আমের জিআই ট্যাগ পাওয়ার জন্য আবেদন জানানো হয়েছে জেলা উদ্যানপালন দফতরের পক্ষ থেকে।

    Harashit Singha

    Published by:Samarpita Banerjee
    First published:

    Tags: Malda, Mangoes

    পরবর্তী খবর