Home /News /local-18 /
West Medinipur Tiger Panic : ঝাড়গ্রামের পর এবার শালবনীর কন্যাবালিতে বাঘ আতঙ্ক, উঠোনে মিললো পায়ের ছাপ। বাঘ নয় নেকড়ে, দাবি বনদফতরের

West Medinipur Tiger Panic : ঝাড়গ্রামের পর এবার শালবনীর কন্যাবালিতে বাঘ আতঙ্ক, উঠোনে মিললো পায়ের ছাপ। বাঘ নয় নেকড়ে, দাবি বনদফতরের

কন্যাবালি গ্রামে বাঘের আতঙ্ক।

কন্যাবালি গ্রামে বাঘের আতঙ্ক।

মেদিনীপুর বনবিভাগের আধিকারিক (DFO) সন্দীপ বেরিয়াল জানিয়েছেন, আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। শীতের সময়ে বন্য প্রাণীদের বিচরণ দেখা যায়।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর- ঝাড়গ্রামের পর এবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় বাঘের আতঙ্ক! আতঙ্কে জঙ্গলে যাওয়াও বন্ধ করলেন গ্রামবাসীরা। খুব প্রয়োজন না থাকলে, জঙ্গলে ভয়ে ঢুকতে চাইছেন না কেউ! গবাদি পশুও সব গোয়ালেই বেঁধে রেখেছেন তারা (West Medinipur Tiger Panic )। সোমবার সকালে নতুন করে এই অজানা জন্তু (বাঘ কিংবা ভারতীয় নেকড়ে)'র পায়ের ছাপ দেখা যায় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী থানার, কন্যাবালি গ্রামের আশিস মাহাতোর বাড়ির উঠোনে। তারপরই, জেলা জুড়ে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যদিও বন দফতর এখনও একে "নেকড়ের পায়ের ছাপ" বলতে চাইলেও, এলাকার স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, ২০১৮ সালেও বন দফতর প্রথমে নেকড়ে বলে চালিয়ে দিতে চেয়েছিল! শেষ অবধি বেরিয়েছিল বাঘ! তাই, রীতিমতো আতঙ্কে এলাকাবাসী। তবে, বন দফতরের পক্ষ থেকে সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

    উল্লেখ্য যে, ঝাড়গ্রাম জেলার লালগড় থানার সীমান্ত লাগোয়া, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার শালবনী থানার বেশ কয়েকটি গ্রামে গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরে এই অজানা জন্তুর পায়ের ছাপ দেখে আতঙ্ক ছড়িয়েছে এলাকা জুড়ে (West Medinipur Tiger Panic )। সোমবারও মনে করা হচ্ছে ভোরের দিকে জল খেতে ওই বন্য জন্তুটি গ্রামে এসেছিল! রাতে বৃষ্টি হওয়ায় ভিজে মাটিতে পায়ের ছাপ স্পষ্ট দেখতে পাওয়া যায় আজ (২৪ জানুয়ারি)। পাশাপাশি, গ্রামের এক বাসিন্দা একঝলক দেখতে পান, জন্তুটিকে। তাঁর মতে, এটা বাঘ হতে পারে। বনদফতর সমগ্র বিষয়টির উপর নজর রাখছে। খাঁচা, নেট সমস্ত কিছুই প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। মৃত ছাগলের মৃতদেহ পাঠানো হয়েছে। পশ্চিম মেদিনীপুরের এক বন্য প্রাণী গবেষক রাকেশ সিংহ দেব জানিয়েছেন, "ভারতীয় ধূসর নেকড়ে (Indian Grey Wolf) হলে পায়ের ছাপের সামনের দিকে নখের নাগ পাওয়া যাবে, কারণ নেকড়ে হল 'কুকুর' প্রজাতির। আর, বাঘ (Tiger) হলে ছাপ আকারে একটু বড়, গোল ও নখের দাগ বিহীন হবে।" তবে, দফতরের কর্মীরাও এখনো সম্পূর্ণভাবে নিশ্চিত নন, বাঘ নাকি নেকড়ে বাঘ।

    মেদিনীপুর বনবিভাগের আধিকারিক (DFO) সন্দীপ বেরিয়াল জানিয়েছেন, আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। শীতের সময়ে বন্য প্রাণীদের বিচরণ দেখা যায়। পরিস্থিতির দিকে নজর রেখেছে বন দফতর। ওই পায়ের ছাপ দেখে প্রাথমিকভাবে আমাদের নেকড়ে বলেই মনে হচ্ছে। (West Medinipur Tiger Panic )

    Partha Mukherjee

    Published by:Samarpita Banerjee
    First published:

    Tags: Salboni, Tiger news, West Medinipur

    পরবর্তী খবর