Home /News /local-18 /
Durgapur: কয়েকশো বছরের পুরনো গাছ কেটে জমি সরকারি দখলের অভিযোগ, বিক্ষোভ স্থানীয়দের

Durgapur: কয়েকশো বছরের পুরনো গাছ কেটে জমি সরকারি দখলের অভিযোগ, বিক্ষোভ স্থানীয়দের

বহু পুরনো এই গাছটি কেটে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ।

বহু পুরনো এই গাছটি কেটে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ।

স্থানীয়দের অভিযোগ রাতের অন্ধকারে বহু পুরনো গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। তারপর সেই জমি প্লট বানিয়ে বেআইনিভাবে বিক্রি করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা।

  • Share this:

    নয়ন ঘোষ, দুর্গাপুর : নির্বিচারে কেটে ফেলা হচ্ছে গাছ। অবৈধভাবে দখল করে প্লট বানিয়ে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে সরকারি জমি। এমনই অভিযোগ উঠল দুর্গাপুরে। বিক্ষোভ দেখালেন স্থানীয় মানুষ।

    দুর্গাপুরের আমরাইয়ের ঋষি অরবিন্দ পল্লী এলাকায় বহু পুরনো গাছ কেটে ফেলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা। স্থানীয়দের অভিযোগ রাতের অন্ধকারে বহু পুরনো গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে। তারপর সেই জমি প্লট বানিয়ে বেআইনিভাবে বিক্রি করছেন অসাধু ব্যবসায়ীরা। যে জমি বিক্রি করা হচ্ছে, তা দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানা কর্তৃপক্ষের অধীনে রয়েছে বলেও দাবি করেছেন অনেকে। তাদের দাবি, প্রায় এক বছর ধরে চলছে এই বেআইনি ব্যবসা। প্রশাসনিক পদক্ষেপের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় মানুষজন।

    ঘটনার সূত্রপাত হয় রবিবার গভীর রাতে। কয়েক শ' বছরের একটি পুরনো গাছ কেটে ফেলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়ায়। রাতারাতি কয়েকশো বছরের পুরনো গাছটি কেটে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন স্থানীয়রা। বহু পুরনো গাছটি কেটে ফেলার খবর ছড়াতেই স্থানীয় মানুষজন সেখানে জড়ো হন। তাদের অভিযোগ, কিছু অসাধু ব্যবসায়ী এইভাবে পরিবেশের ক্ষতি করছে। পাশাপাশি মুনাফা লাভের আশায় সরকারি জমি অবৈধ ভাবে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে।

    স্থানীয়দের অভিযোগ, দুর্গাপুর আমরাই গ্রামের পাশেই রয়েছে দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানা কর্তৃপক্ষের ফাঁকা জমি। সেই জমি গুলি অবৈধভাবে প্লট বানিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে জমি বিক্রি করার জন্যই কেটে ফেলা হচ্ছে গাছ। বিগত কয়েক মাসে এই ভাবে বেশ কয়েকটি গাছ কেটে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ জানিয়েছেন তারা। স্থানীয় মানুষজন সকলেই বলছেন, দীর্ঘদিন ধরে তারা যে গাছগুলি দেখছেন, সেগুলি হঠাৎ করেই কেটে ফেলা হচ্ছে।

    যেখানে বনদপ্তর থেকে প্রশাসন বারবার বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নিচ্ছে, গাছ বাঁচাতে কর্মসূচি নিচ্ছে, সেখানে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী এইভাবে বৃক্ষ নিধন করছে। দুর্গাপুর শহরাঞ্চলে এমনিতেই গাছগাছালির পরিমাণ কম। তারওপর এই ভাবে গাছ কেটে ফেলায় পরিবেশের ব্যাপকহারে ক্ষতি হচ্ছে। তা ছাড়াও অবৈধভাবে জমি বিক্রি করার ফলে কারখানা কর্তৃপক্ষ গুলির ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। যার প্রভাব পড়ছে গোটা শহরের মানুষের ওপর।

    কয়েকশো বছরের যে পুরনো গাছটি কেটে ফেলা হয়েছে, সেখানে হাজির হন বহু মানুষ। তাদের অভিযোগ, গাছ কাটতে বাধা দেওয়া হলে, তাদের হুমকির মুখে পড়তে হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে দেরিতে পৌঁছেছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। যদিও গাছ কেটে ফেলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনার খবর পেয়ে, এলাকায় পৌঁছয় পুলিশ। তবে তা কিছুটা দেরিতে। সেখানে হাজির হন বনদপ্তর আধিকারিকরাও। তাদের সামনে ক্ষোভ উগড়ে দেন স্থানীয় মানুষজন নির্বিচারে বৃক্ষ নিধন এবং এইভাবে জমি দখল করা অসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করার আর্জি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Durgapur, Pollution, West Bardhaman

    পরবর্তী খবর