Home /News /local-18 /
Paschim Bardhaman: করলা চাষে স্বনির্ভর হচ্ছেন আদিবাসী কৃষকরা

Paschim Bardhaman: করলা চাষে স্বনির্ভর হচ্ছেন আদিবাসী কৃষকরা

বিশেষ

বিশেষ ধরনের মাচা তৈরি করে করলা চাষ হচ্ছে ফারকিডাঙা গ্রামে।

কাঁকসার ফারাকি ডাঙ্গা আদিবাসী গ্রামে রয়েছে প্রায় ৫০টি আদিবাসী পরিবারের বসবাস। অধিকাংশ পরিবার কৃষিকাজ এবং দিনমজুরের কাজের উপর নির্ভরশীল।

  • Share this:

    কাঁকসা, পশ্চিম বর্ধমান : কাঁকসার ফারাকি ডাঙ্গা আদিবাসী গ্রামে রয়েছে প্রায় ৫০টি আদিবাসী পরিবারের বসবাস। অধিকাংশ পরিবার কৃষিকাজ এবং দিনমজুরের কাজের উপর নির্ভরশীল। তাই বিকল্প হিসাবে রোজগারের পথ বেছে নিয়েছেন গ্রামেরই কুড়ি জন মানুষ। দিনমজুরের কাজের পাশাপাশি বিকল্প রোজগার হিসাবে তারা ৮ বিঘা জমির ওপর করলা চাষ শুরু করেছন। এমনিতেই কাঁকসা জুড়ে গ্রীষ্মকালে প্রবল গরম অনুভূত হয়। অন্যদিকে করলার ভালোই চাহিদা থাকে বাজারে। সেই কথাকে মাথায় রেখে কুড়ি জন আদিবাসী মানুষ করলা চাষ শুরু করেন ঊষর মুক্তি প্রকল্পের মাধ্যমে। প্রায় তিন মাস আগে শুরু করা করলা চাষ বর্তমানে বেশ লাভজনক ব্যবসা হয়ে দাঁড়িয়েছে তাদের কাছে। প্রতি আট দিন বাদে তারা তাদের জমির ফসল দুর্গাপুরের মামরা বাজার ও আশেপাশের বাজারে বিক্রি করে লাভের মুখ দেখছেন। এক কৃষক জানিয়েছেন, তারা স্থানীয় পঞ্চায়েত এবং পঞ্চায়েত সমিতির সহযোগিতায় করলা চাষ শুরু করেছিলেন গত ৩ মাস আগে। বর্তমানে সেই ফলন বেশ লাভজনক ব্যবসা হয়ে দাঁড়িয়েছে তাদের কাছে। প্রতি আট দিন পর তারা তাদের উৎপাদিত ফসল দুর্গাপুর সহ আশেপাশের বাজারগুলিতে বিক্রি করে ভাল লাভের মুখ দেখছেন। এর ফলে গ্রামের অনেকেই স্বনির্ভর হয়েছেন। আগামী দিনে তাদের পরিকল্পনা রয়েছে, এই চাষ আরও বড় জায়গায় করার, যাতে এলাকার আরও বেশ কিছু মানুষ বা যুবক চাষের মাধ্যমে স্বনির্ভর হতে পারেন। আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষদের স্বনির্ভর করার চেষ্টা চলছে এবং পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতির পক্ষ থেকে সব রকমভাবে তাদের সাহায্য করা হচ্ছে বলে জানান স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রতিনিধি। Nayan Ghosh

    First published:

    Tags: Durgapur, Paschim bardhaman

    পরবর্তী খবর