সঠিক পরিচর্যার জন্য এবার দত্তক দেওয়া হল গাছ

পরিবেশকে বাঁচাতে ও সবুজায়ন ফিরিয়ে আনতে আম, জাম, লিচু সমেতবিভিন্নফলের গাছ দত্তক দেওয়া হল

পরিবেশকে বাঁচাতে ও সবুজায়ন ফিরিয়ে আনতে আম, জাম, লিচু সমেতবিভিন্নফলের গাছ দত্তক দেওয়া হল

  • Share this:

     #এগরা: অনাথ শিশুদের দত্তক নেওয়া বা দেওয়া ঘটানায় আমরা সবাই জানি। কিন্তু গাছেদের দত্তক দেওয়া বা নেওয়ার ঘটনা হয়তো আমরা কেউ শুনিনি। আশ্চর্য হলেও এই ঘটনা ঘটলো পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরা শহরে। শহরের উই কেয়ার নামে একটি সংস্থার তরফ থেকে শনিবার ৫ই জুন পরিবেশ দিবস উপলক্ষে পরিবেশকে বাঁচাতে ও সবুজায়ন ফিরিয়ে আনতে আম, জাম, লিচু সমেতবিভিন্নফলের গাছ দত্তক দেওয়া হল।

    গতবছর আম্ফান এবংসম্প্রতি ইয়াস ঘূর্ণিঝড়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় প্রচুর গাছ নষ্ট হয়েছে। এছাড়াও নগরায়ণের কারণে মানুষের প্রয়োজনে প্রচুর গাছ কেটে ফেলা হয়।।অন্যদিকে অবশ্য গোটাবছর ধরে বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে গাছ-পালা লাগানোও হয়ে থাকে।তবে এক্ষেত্রে অনেক গাছই লাগানোর পর কার্যত বেওয়ারিশ বাঅনাথ হয়ে সঠিক পরিচর্যার অভাবে নষ্ট হয়ে যায় বা মারা যায়।

    ঠিক এই কারণে গাছের সঠিক পরিচর্যার ভাবনা থেকে এগরা 'উই কেয়ার' সংস্থা বেশকিছু গাছদত্তক দেয় এদিন। এগরা পৌর প্রশাসক স্বপন নায়েক, চিত্রশিল্পী সোমনাথ তামিলী, বাচিক শিল্পী মৌমিতা দাস ও অধ্যাপক দেবাশীষ সাহা প্রমুখের হাতে আম, জাম, লিচু গাছ দত্তক দেওয়া হয়।

    এগরা পৌরসভার প্রশাসক স্বপন নায়েক জানিয়েছেন, "গাছ লাগিয়েই আমাদের দ্বায়িত্ব পালন হয় না। গাছকে বড়ো করে তোলার দায়িত্বও আমাদের। গাছ বড়ো করে তুলতে না পারলে গাছ লাগানোর উদ্দেশ্যই ব্যর্থ হয়ে যায়।"

    উই কেয়ার সংস্থার সভাপতি সুভাষ নন্দ জানিয়েছেন, "সরকার, স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও বৃক্ষপ্রেমীরা বছরের নানান সময় প্রচুর গাছ লাগান। দেখা যায় সঠিক পরিচর্যার অভাবে তা নষ্ট হয়ে যায়। গাছ যাতে সঠিক পরিচর্যা পায়, অনাথ না হয়, সেই ভাবনা থেকে আমরা প্রত্যেককে গাছ দত্তক দেওয়ার কর্মসূচী গ্রহণ করে থাকি। আমাদের পরিবারের সৈনিক ও শুভানুধ্যায়ীদের সংস্থার পক্ষ থেকে প্রত্যেককে অনুরোধ করা হয় নিজের এলাকা, বাড়িতে গাছ লাগান ও সঠিক পরিচর্যার মাধ্যমে গাছ বড়ো করে তুলুন।"

    সৈকত শী
    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: