• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • local-18
  • »
  • THEFT INCIDENT INCREASED IN NORTH 24 PARGANA AMID LOCKDOWN SDG

বাড়ছে চুরির ঘটনা, তবে কি লকডাউনে কর্মহীন হয়ে অন্য পথ বেছে নিচ্ছে মানুষ? উঠছে প্রশ্ন...

প্রতীকী ছবি।

করোনা মহামারীর কারণে দেশের অর্থনীতি বেশকিছুটা ধাক্কা পাওয়ার ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দেশের বিভিন্ন এলাকার মানুষজন।

  • Share this:

    #হাবড়া: করোনা মহামারীর কারণে দেশের অর্থনীতি বেশকিছুটা ধাক্কা পাওয়ার ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন দেশের বিভিন্ন এলাকার মানুষজন। পরিস্থিতির কমবেশি খানিকটা শিকার হয়েছে পশ্চিমবঙ্গও। গতবছর লকডাউনেও অনেক মানুষ হারিয়েছেন তাদের কাজ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বর্তমানেদেশ তথা রাজ্যের অবস্থা আর্থিকভাবে বেশসংকটের মুখে। অন্যদিকে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন রুখতে রাজ্য সরকারের নির্দেশে লকডাউন জারি করা হয়েছে। এর ফলে নতুন করে বেড়েছে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা। কেউ কেউ এই অবসাদে আত্মঘাতীও হয়েছেন বলে খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। কেউ আবার রোজগারের জন্য বেছে নিয়েছেন অন্ধকারের পথ। কেউ কাজ হারিয়ে সবজি বিক্রি করছেন কিম্বা বিক্রি করছেন ফল। অনেকে আবার হোম ডেলিভারি করছেন খাবার। তবে এই কর্মহীনতায় অনেক মানুষ বেছে নিয়েছে ভুল পথও।

    ইদানীংকালে বেড়ে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলা জুড়ে চুরির ঘটনা। প্রশ্ন উঠছে তবে কী লকডাউনে কর্মহীন হয়ে অন্য পথ বেছে নিচ্ছেন কেউ কেউ? যখন লকডাউনে স্কুল-কলেজ এবং বিভিন্ন সরকারি দপ্তর প্রায় এক বছরেরও বেশি বন্ধ, সেই সুযোগটাই কাজে লাগাচ্ছে কিছু সংখ্যক অপরাধ প্রবণ মানুষ। গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম যেমন কম্পিউটার, ল্যাপটপ এ ছাড়াও স্কুলের সবুজ সাথী সাইকেল মিড ডে মিলের গ্যাস সিলিন্ডার থেকে শুরু করে বিভিন্ন সরঞ্জামের চুরি হওয়ার ঘটনা ঘটে চলেছে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে। এ দিন এমন একটিঘটনা ঘটল উত্তর ২৪ পরগনার বাগদার কানিয়ারা দুই নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতে। দফতরের একাধিক তালা ভাঙা হয় এ দিন। পাশাপাশি, প্রধান, এনএস-এর ঘরের আলমারি ভেঙে চুরির চেষ্টা করা হয়। কম্পিউটার সমেত একাধিক গুরুত্বপূর্ণ নথি থেকে শুরু করে চুরি হয় অনেক কিছুই। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বোঝা না গেলেও পরিমাণ যে যথেষ্ঠবেশি তা মনে করছেন পঞ্চায়েত সদস্যরা।

    তাদের মতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ঠিক কতটা তা একমাত্র আধিকারিকরাই বলতে পারবেন। ঘটনার অভিযোগ জানানো হয়েছে বাগদা থানায়। দিনকয়েক আগেও জেলার অশোকনগর থানার অন্তর্গত কাজলা রবীন্দ্র শিক্ষা নিকেতন স্কুলে ঘটেছে এক দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা। চারটি কম্পিউটার সমেত মিড ডে মিল এর গ্যাস সিলিন্ডার, বিভিন্ন বাসনপত্র এবং দুটি সবুজ সাথী সাইকেলও চুরি হয় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। প্রধান শিক্ষকের মতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় দেড় লক্ষ টাকার মতো। ছিল না কোন নাইট গার্ড। প্রায় এক বছর ধরে বন্ধ স্কুল। এর আগেও কয়েকবার চুরির ঘটনা ঘটে ঐ স্কুলে। ঘটনায় অশোকনগর থানার পুলিশ তদন্তে নেমেছে। পুলিশের অনুমান এই লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়েছে অনেক মানুষ, যার ফলে অনেকে বেছে নিয়েছে এই পথ। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এই সমস্থ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। তবে পরিস্থিতির গুরুত্ব পর্যালোচনা করে জেলার বিভিন্ন ধর্মীয় স্থান, স্কুল-কলেজ এবং সরকারি দফতরে পুলিশের তরফে টহলদারির মাধ্যমে নজর রাখা হচ্ছে। আগামীদিনে যাতে এমন ঘটনা না হয় তা মাথায় রেখেই চলছে কড়া নজরদারি, এমনটাই দাবি জেলা পুলিশের।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: