• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • School Reopen|| খুলল স্কুল, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল চালানোই শিক্ষক শিক্ষিকাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ

School Reopen|| খুলল স্কুল, স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্কুল চালানোই শিক্ষক শিক্ষিকাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

School Reopens in South 24 Parganas: শিক্ষক শিক্ষিকাদের উপরই দায়িত্ব বর্তাচ্ছে স্কুলের ভেতরে ছাত্র ছাত্রীদের করোনা স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে পালনের।

  • Share this:

    #সোনারপুর: দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর খুলেছে স্কুল, কলেজ। করোনার প্রভাব কিছুটা কমতেই, রাজ্য সরকার স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নেয়। তবে করোনার স্বাস্থ্যবিধি নির্দিষ্টভাবে মানা স্কুল গুলির পক্ষে কতটা সম্ভব হবে তা নিয়েই উঠছে প্রশ্ন! স্কুল খোলার আগেই শিক্ষা কমিশনার ও সমগ্র শিক্ষা মিশনের রাজ্য প্রকল্প অধিকর্তা এবং ডিআইদের মধ্যে ভিডিও কনফারেন্স হয়েছিল। তাতে স্কুলের সামনে ভীড় এড়াতে এবং যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল স্কুলগুলিকে। পাশাপাশি, জেলার প্রতিটি স্কুলকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, স্কুলের বাইরে চার পাঁচ ফুট দূরত্বে বৃত্ত এঁকে দিতে। স্কুলে ঢোকার সময় সেখানে দাঁড়াবে পড়ুয়ারা। স্কুলেরই তিনজন শিক্ষক থাকবেন দায়িত্বে।

    একজন শিক্ষক দেখবেন, স্কুলে ঢোকা পড়ুয়াদের মুখে ঠিকঠাক মাস্ক আছে কি না। অন্যজন থার্মাল গান দিয়ে পড়ুয়াদের শরীরের তাপমাত্র দেখবেন। বাকি শিক্ষকের দায়িত্ব থাকবে পড়ুয়াদের হাতে স্যানিটাইজার স্প্রে করা হচ্ছে কিনা তা সঠিক ভাবে দেখার। যেহেতু এখনো রাজ্যে ১৮ বছরের নিচে ভ্যাকসিন চালু হয়নি, তাই ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে সংক্রমণের একটা আশঙ্কাও থেকেই যাচ্ছে। স্কুল খোলার দ্বিতীয় দিনেই দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন স্কুলে স্বাস্থ্য বিধি মানার ক্ষেত্রে ঢিলেমির অভিযোগ উঠেছে। বহু ছাত্র ছাত্রী স্কুলে সবসময়ের জন্য সঠিক ভাবে মাস্ক পড়ছে না বলেও কেউ কেউ তাদের অভিভাবকদের জানিয়েছে। পরিকাঠামো গত কিছু সমস্যাও রয়েছে অনেক স্কুলেই। স্কুল খোলার আগে পরিকাঠামোর উন্নয়নে শিক্ষা দফতর যে-সব স্কুলের জন্য অর্থ বরাদ্দ করেছিল, সেই ধরনের অনেক প্রতিষ্ঠানে এখনও টাকা পৌঁছয়নি বলে শিক্ষক সংগঠনগুলির একাংশের অভিযোগ।

    দক্ষিণ ২৪ পরগনায় পরপর দুটি ঘূর্ণিঝড়ে নামখানা ব্লকের স্কুল গুলিতে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছিল। পরিকাঠামোর উন্নয়নে শিক্ষা দফতর ৬৬,৪৩৮ টাকা মঞ্জুরও করেছিল। কিন্তু এখনও তা মেলেনি বলে স্কুলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি, পরিকাঠামো গত উন্নয়নে এটি পর্যাপ্ত অর্থ নয় বলেও অভিমত প্রকাশ করেছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। এই অবস্থায় ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুলের ভিতর সঠিক ভাবে করোনা স্বাস্থ্য বিধি মানছে কিনা তা দেখার দায় ভার একপ্রকার স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের উপরই পড়ে যাচ্ছে। ছাত্র ছাত্রীদের শারীরিক সুস্থতার কথা মাথায় রেখে, তাই স্কুলের পরিচালন কমিটি গুলিকে করোনা স্বাস্থ্য বিধি কঠোর ভাবে মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন অভিভাবকরা। তবে আগামী দিনে কতটা শক্ত হাতে করোনা স্বাস্থ্য বিধি মেনে স্কুল গুলির পঠন পাঠন চালানো যায় এখন সেটাই দেখার।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: