• হোম
  • »
  • খবর
  • »
  • local-18
  • »
  • SILIGURI WB JALPAIGURI FANINDRADEB INSTITUTE ALUMNI HANDS OVER 15 LAKH RUPEES TO WELFARE ORGANIZATION SR

অতিমারিতে স্বেচ্ছাসেবীদের 'ছায়াসঙ্গী' প্রাক্তনীরা, নজির জলপাইগুড়িতে

অতিমারিতে স্বেচ্ছাসেবীদের 'ছায়াসঙ্গী' প্রাক্তনীরা, নজির জলপাইগুড়িতে

জলপাইগুড়ি শহরের বিখ্যাত ও স্বনামধন্য স্কুলের মধ্যে অন্যতম ফণিন্দ্রদেব বিদ্যালয়। করোনাকালে শহরের স্বেচ্ছাসেবীদের আর্থিক সাহায্যে এগিয়ে এলেন এই স্কুলেরই প্রাক্তনীরা।

  • Share this:

    ভাস্কর চক্রবর্তী, জলপাইগুড়ি: করোনার আতঙ্কে ঘরবন্দি আমরা। এককালে প্রাণোচ্ছ্বল এই শহর, এখন স্তব্ধ। থমকে গিয়েছে আড্ডা, নেই দোকানে আগের মতো ভিড়। স্কুলগুলো এখন ছাত্র-ছাত্রীশূন্য। এই সময়ে পাশে এসে আর্তদের হাত শক্ত করে ধরে রেখেছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলি। কিন্তু স্বেচ্ছাসেবীদেরও তো আশ্রয় প্রয়োজন। সেই আশ্রয় দিতে এগিয়ে এল প্রাক্তনীরা। জলপাইগুড়ি শহরের বিখ্যাত ও স্বনামধন্য স্কুলের মধ্যে অন্যতম ফণিন্দ্রদেব বিদ্যালয়। করোনাকালে শহরের স্বেচ্ছাসেবীদের আর্থিক সাহায্যে এগিয়ে এলেন এই স্কুলেরই প্রাক্তনীরা। জলপাইগুড়ি ফণিন্দ্রদেব বিদ্যালয়ের ২০০১ মাধ্যামিক ব্যাচের তরফে জলপাইগুড়ি শহরের চারটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার হাতে দেড় লক্ষ টাকা তুলে দেওয়া হল। শহর ও শহর লাগোয়া এলাকায় করোনা সংক্রামিতদের সাহায্যে ও তাঁদের উন্নয়নের স্বার্থে এই টাকা খরচ করা হবে। শহরের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাগুলির মধ্যে শ্রদ্ধা ফাউন্ডেশন, গ্রীন জলপাইগুড়ি, জলপাইগুড়ি ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন এবং স্টুডেন্টস হেলথ হোম রয়েছে। এদের হাতে আর্থিক সাহায্য তুলে দিয়েছেন প্রাক্তন এই ছাত্ররা। শুধুমাত্র আর্থিক সাহায্য নয়, জলপাইগুড়ির আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া পরিবারগুলোর জন্য বিভিন্নরকম পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে প্রাক্তনীদের তরফে। শহরের তিস্তা পাড় সংলগ্ন এলাকার দুঃস্থদের জন্য কমিউনিটি কিচেন, ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য পড়াশোনার ব্যবস্থা করার উদ্যোগ নেবেন বলে জানা যায় প্রাক্তনীদের তরফে। এ ভাবেই শহরবাসীদের পাশে থাকার অঙ্গীকার নিয়েছেন প্রাক্তনীরা। বিখ্যাত চিত্রশিল্পী দীপঙ্কর বসু বিশ্বাস এদিন গ্রিন জলপাইগুড়ির হাতে নিজের হাতে আঁকা একটি ছবি তুলে দিয়েছেন। সেই ছবিতে অতিমারীতে ভয়ার্ত মানুষের সেবায় গ্রীন জলপাইগুড়ি সংস্থা যেভাবে বিনামূল্যে অ্যাম্বুলেন্স দান করছে, সেই দৃশ্য তুলে ধরা হয়েছে। দীপঙ্করবাবু জানান, আগামী দিনেও তিনি মানুষের সামনে এমন ছবি তুলে ধরবেন। অন্যদিকে, ফণিন্দ্রদেব বিদ্যালয়ের ২০০১ মাধ্যমিক ব্যাচের প্রাক্তনীরা জানান, আগামী সময়ে আরও অনেক সমাজসেবামূলক কাজের মাধ্যমে শহরের পাশে থাকবেন তাঁরা। এই শহর থেকে যা পেয়েছেন, সেগুলো তাঁদের কাজের মাধ্যমে ফেরৎ দিচ্ছেন তাঁরা। প্রাক্তনীদের মধ্যে দেবমাল্য বসু বলেন, 'সংস্থাগুলিকে আর্থিক সাহায্য করা ছাড়াও আমরা দুঃস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের খাতা-বই দান করব। চা বাগান সংলগ্ন এলাকাগুলিতেও কাজ করার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। শহরবাসীদের পাশে আমরা রয়েছি, আগামীতেও থাকব।' প্রাক্তনীদের এই কাজ শহরবাসী থেকে প্রশাসন সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছে।

    Published by:Simli Raha
    First published: