Home /News /local-18 /
East Medinipur News- কোর্টের নির্দেশে সরকারি জায়গায় গড়ে ওঠা  মার্কেট কমপ্লেক্স ভাঙার কাজ শুরু হয়েছে

East Medinipur News- কোর্টের নির্দেশে সরকারি জায়গায় গড়ে ওঠা  মার্কেট কমপ্লেক্স ভাঙার কাজ শুরু হয়েছে

Mahisadal Block

Mahisadal Block

হলদিয়া - মেচেদা রাজ্য সড়ক সংলগ্ন মহিষাদলের সিনেমা মোড়ে বেআইনি দোকান ভাঙা শুরু হল। আদালতের নির্দেশে এই কাজ শুরু করেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন 

  • Share this:

    #মহিষাদল: হলদিয়া - মেচেদা রাজ্য সড়ক সংলগ্ন মহিষাদলের সিনেমা মোড়ে, বেআইনি দোকান ভাঙা শুরু হল (East Medinipur News)। আদালতের নির্দেশে এই কাজ শুরু করেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। স্থানীয় সূত্রে খবর, ২০১৪ সালে সিনেমা মোড়ে পূর্ত দফতরের জমিতে মার্কেট কমপ্লেক্স গড়ে তোলার কাজ শুরু করে মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতি। তবে ওই বছর হলদিয়ার মহকুমা শাসকের নির্দেশে কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৫ সালে অবশ্য তিনতলা মার্কেট কমপ্লেক্স গড়ে তোলা হয়। ২০ দোকানঘর দীর্ঘমেয়াদী লিজ দেয় মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতি।

    ২০১৫ সালে প্রদীপ দাস নামে এক ব্যক্তি কলকাতা হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেন। অভিযোগ, নয়ানজুলি ভরাট করে, নিকাশি বন্ধ করে বেআইনি মার্কেট কমপ্লেক্স তৈরি করা হয়েছে(East Medinipur News)। হাইকোর্ট বেআইনি নির্মানটি ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দেয় মহকুমা শাসককে। সেই মতো ২০১৬ সালের ২৩ মে মহকুমা শাসক ওই মার্কেট কমপ্লেক্স ভাঙার নির্দেশ দিলে, তা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে আপিল করে মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতি। ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে, হাইকোর্ট, পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসককে ওই বেআইনি নির্মান ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেন। পঞ্চায়েত সমিতি আবার সুপ্রিম কোর্টে যায়। তবে সুপ্রিম কোর্ট হাইকোর্টের নির্দেশেই বহাল রাখে।

    হাইকোর্টে মামলাকারী প্রদীপ দাসের অভিযোগ, হাইকোর্টের নির্দেশ পালনের জন্য জেলা শাসকের কাছে তিনি একাধিকবার আবেদন করেছেন। কিন্তু জেলা প্রশাসন সাড়া দেয়নি। এরপর ২০২১ সালে জেলা শাসকের বিরুদ্ধেই হাইকোর্টে আদালত অবমাননার মামলা করেন প্রদীপ দাস(East Medinipur News)। তার প্রেক্ষিতে, গত ২০ জানুয়ারি হাইকোর্ট নির্দেশ দেয়, সাত দিনের মধ্যে বেআইনি মার্কেট কমপ্লেক্স ভেঙে রিপোর্ট দিতে হবে হাইকোর্টের রেজিস্টারকে। এরপরই শুরু হয় ভাঙার কাজ।

    প্রদীপবাবু জানান, "নয়ানজুলি ভরিয়ে মার্কেট কমপ্লেক্স করা হয়েছে। ফলে এলাকার নিকাশি ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। যেসব সরকারি আধিকারিকের স্বাক্ষরে বেআইনি মার্কেট কমপ্লেক্স হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধেও আদালতে যাব।" তৃণমূলের মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির ব্লকের সহ - সভাপতি তাপস মল্লিকও জানান, "জনগনের লক্ষ লক্ষ টাকা কেন অপচয় করা হল, তার উত্তর পেতে ইতিমধ্যেই জেলা সভাপতিকে বিষয়টি জানানো হয়েছে।"

    Saikat Shee

    First published:

    Tags: East Medinipur, Mahishadal

    পরবর্তী খবর