Home /News /local-18 /
অতিবৃষ্টিতে নষ্ট ক্ষেতের সবজি, ঋণের বোঝায় জর্জরিত চাষিরা

অতিবৃষ্টিতে নষ্ট ক্ষেতের সবজি, ঋণের বোঝায় জর্জরিত চাষিরা

photo source news 18 local

photo source news 18 local

পাঁশকুড়ার বিস্তীর্ন এলাকার চাষের জমি জলের তলায় থাকায় ক্ষতির মুখে চাষিরা।

  • Share this:

    #পাঁশকুড়া:  একদিকে যখন বাজারে সবজির দাম আগুন। অন্যদিকে করুণ অবস্থায় সবজি চাষিদের। কারণ খেতে বেশিরভাগ সবজি অতিবৃষ্টির কারণে নষ্ট হয়ে যাওয়ায় সমস্যায় পড়েছে চাষিরা। কারণ সবজি চাষিদের চাষ করতে বাজারে ঋণ করতে হয়েছে। কিন্তু চাষে প্রভূত ক্ষতি হওয়ায় ঋণ শোধ কিভাবে করা যাবে সেই চিন্তায় চোখের ঘুম উড়েছে চাষিদের। পাঁশকুড়া ব্লকের মাইশোরা, নস্করদিঘী, পাটনা, সাহালাজপুর, মাট যশোড়া সহ পাঁশকুড়ার বিস্তীর্ন এলাকার চাষের জমি জলের তলায় থাকার কারনে ব্যাপক হারে নষ্ট হওয়ায়  প্রভূত ক্ষতির মুখে চাষিরা। পাঁশকুড়া ব্লকের বিভিন্ন অঞ্চলে অতিবৃষ্টির কারণে সবজি চাষ, অর্থাত ঝিঞে, বরবটি, বেগুন, শসা  ও ভেন্ডী সহ বিভিন্ন সবজি চাষে ব্যাপক হারে ক্ষতি হয়েছে। বেশিরভাগ চাষীরা ঋণ নিয়ে সবজি চাষ করেছিল। চাষ করতে কীটনাশক রাসায়নিক সার প্রয়োগ করতে বিদ্যাপতি চাষিদের লাগে কয়েক হাজার টাকা। কোন কোন চাষিদের নিজের জমি না থাকায় জমির মালিকদের কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে জমিতে চাষ করে। ক্ষেত থেকে কুইন্টাল কুইন্টাল ফসল উঠত, সেখানে তিন ভাগের এক ভাগও ফসল ঠিক মতো পায়নি তারা, কারন জমিতেই নষ্ট ফসল। যে কারনে গ্রামের চাষিরা সরকারের মুখ চেয়ে বসে আছে, যদি তারা ক্ষতপূরণ হিসেবে একটু আর্থিক সহযোগীতা পান, তারা চাইছেন রাজ্য সরকার তাদের যদি একটু সহযোগীতা করেন তাতে করে তারা দ্বিতীয় বার ফের চাষ করবেন। চাষই তাদের জীবিকা, চাষেই তাদের সংসার চলে, সে কারনে তারা কাতর আবেদন করে সরকারী সহযোগীতার। পাঁশকুড়ার এক বেগুন চাষি জানিয়েছে, এক বিঘা  বেগুন চাষ করতে খরচ হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা। চাষের খরচ চালাতে বেশিরভাগ টাকা ঋণ নিতে হয়েছে। ফসল বিক্রি করে হাতে আসত প্রায় এক লাখ থেকে এক লাখ ১০ হাজার টাকা। কিন্তু তিন ভাগেরও বেশি ফসল ক্ষেতে বৃষ্টির কারণে নষ্ট হয়ে গেছে। ফলে চাষের খরচটুকু উঠে আসছে না। এই অবস্থায় সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে চাষিরা। সেখানে আবার মাথাচাড়া দিয়েছে ঋণের বোঝা। তাদের দাবি সরকার যদি একটু সহানুভূতি সঙ্গে পাশে দাঁড়ায়। দ্বিতীয় বার চাষ করে ফসল ফলিয়ে ঋণের বোঝা থেকে মুক্তি পেতে পারে। কৃষিনির্ভর ভারতবর্ষে নানান সমস্যার সম্মুখীন হয় বারবার কৃষকরাই। কখনো অতিবৃষ্টিতে ফসল নষ্ট। কখনো আবার খরায় জলের অভাবে মাঠেই শুকিয়ে যায় ক্ষেতের ফসল। আর সব মিলিয়ে প্রায় কৃষক আত্মহত্যার ঘটনা খবরের শিরোনামে উঠে আসে। কৃষকের দুরবস্থা দূর করতে কেন্দ্র ও রাজ্য উভয়ই সরকার নানা পদক্ষেপ নিলেও কৃষকদের সমস্যা নিয়ে অতলে ভাবনার সময় স্বাধীনতার ৭৫ বছর পরও ভেবে দেখেনি কোন সরকার। তাই পাঁশকুড়ার সবজি চাষিদের কাতর আবেদন সরকার তাদের পাশে দাঁড়াক।

    Saikat Shee

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Farmer, Panshkura, Purba medinipur, Vegetable

    পরবর্তী খবর