Home /News /local-18 /
East Bardhaman- ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে কৃষকদের শস্যবিমার আওতাভুক্ত হওয়ার অনুরোধ জেলাশাসকের

East Bardhaman- ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে গিয়ে কৃষকদের শস্যবিমার আওতাভুক্ত হওয়ার অনুরোধ জেলাশাসকের

দুদিনের নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ফের  ভয়াবহ ক্ষতির মুখে শস্য গোলা পূর্ব বর্ধমান। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা ঘুরে দেখলেন জেলাশাসক। 

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান :  দুদিনের নিম্নচাপের বৃষ্টিতে ফের ভয়াবহ ক্ষতির মুখে শস্য গোলা পূর্ব বর্ধমান। একটানা বৃষ্টির জেরে কেবলমাত্র পাকা ধানে মই নয়, অন্যান্য ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে জেলায়। বৃষ্টি কিছুটা থামতেই ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা ঘুরে দেখলেন পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সভাধিপতি শম্পা ধাড়া, জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ মহম্মদ ইসমাইল, জেলা কৃষি আধিকারিক জগন্নাথ চট্টোপাধ্যায় সহ জনপ্রতিনিধিরা।চাষীদের পাশে থাকার আশ্বাস দেওয়ার পাশাপাশি, চাষীদেরকে শস্যবিমার আওতাভুক্ত হওয়ার ব্যাপারে বিশেষ ভাবে আগ্রহী হওয়ার বার্তা দেন তাঁরা। জেলা কৃষি দফতর সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী জেলায় চাষের ক্ষতি হয়েছে এবছর গোটা জেলায় মোট ৪৮০০ হেক্টর এলাকার মধ্যে, ৩৮২০ হেক্টর এলাকায় পিঁয়াজ চাষ হয়েছে। তার মধ্যে ২৯৬০ হেক্টর এলাকা এই বৃষ্টির জেরে ক্ষতির মুখে পড়েছে। এরই পাশাপাশি এবছর গোটা জেলায় ৭৪০০০ হেক্টর এলাকার মধ্যে এখনও পর্যন্ত আলু চাষ হয়েছিল ৪১ হাজার ২৭৫ হেক্টর এলাকা। নিম্নচাপের বৃষ্টির জেরে, ক্ষতির মুখে পড়েছে প্রায় ৩৬০৭৫ হেক্টর এলাকার আলু চাষ। এদিকে এখনও পর্যন্ত গোটা জেলায় ৬৫০৫৪ হেক্টর এলাকায় ধান কাটা বাকি। আর এরই মধ্যে নিম্নচাপের বৃষ্টির জেরে ক্ষতির মুখে প্রায় ৫০ হাজার হেক্টর এলাকার জমি। যার মধ্যে প্রায় ৪০ হাজার হেক্টর এলাকায় ধান কাটার পর মাঠেই পড়েছিল, যা তোলা যায়নি। এবিষয় জেলা সভাধিপতি শম্পা ধাড়া জানান, এই নিম্নচাপের বৃষ্টির জেরে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে জামালপুর, রায়না, খণ্ডঘোষ, বর্ধমান উত্তর বিধানসভা এলাকা। এছাড়াও ক্ষতির মুখে পড়েছেন গলসী বিধানসভার কৃষকরাও। তিনি জানিয়েছেন, গোটা জেলা জুড়েই এই ক্ষয়ক্ষতির হিসাব করা হচ্ছে। পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পাওয়ার পর তা রাজ্য সরকারের কাছে পাঠানো হবে চাষীদের ক্ষতিপূরণের জন্য। উল্লেখ্য, সম্প্রতি নভেম্বর মাসেই অকাল বৃষ্টির জেরে আমন ধানে রোগ পোকার আক্রমণে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাষীরা। সেই ক্ষতিপূরণের মাঝেই যাঁরা আলু, পিঁয়াজ, সরষে চাষ শুরু করেছিলেন, এই নিম্নচাপের বৃষ্টির জেরে ফের ভয়াবহ ক্ষতির মুখে পড়েছেন চাষীরা।ফলে ক্ষতিপূরণের আশায় বসে আছেন চাষীরা।

    First published:

    Tags: East Bardhaman, Farmer, Farming, Rain

    পরবর্তী খবর