• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • PURBA BARDHAMAN FRAUD IN SELLING GOLD COINS GUSKARA THREE ARRESTED PBD

সোনার মুদ্রা বিক্রির নামে জালিয়াতি গুসকরায়, গ্রেফতার তিন

সোনার মুদ্রা বিক্রির নামে জালিয়াতি গুসকরায়, গ্রেপ্তার তিন

পুরানো আমলের সোনার মুদ্রা বিক্রির নামে জালিয়াতির অভিযোগ, গুসকরা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার তিন

  • Share this:
    পূর্ব বর্ধমান : পুরানো আমলের সোনার মুদ্রা বিক্রির নামে জালিয়াতির অভিযোগ পূর্ব বর্ধমানের গুসকরা এলাকায়। ঘটনায় গ্রেফতার তিন জন। অভিযোগের ভিত্তিতে গুসকরা ফাঁড়ির পুলিশ গ্রেফতার করে সাগর মণ্ডল, খোকন সাহা ও  শেখ মেহেরকে।  ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে এক লাখ  ১৪ হাজার টাকা, নাম্বারপ্লেটবিহীন একটি মোটরসাইকেল  ও  ছটি মোবাইল ফোন। পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের মধ্যে সাগর ও খোকন এর  বাড়ি আউশগ্রামের ভেদিয়াতে। আর শেখ মেহের  সাঁইথিয়ার ভ্রমরকোল গ্রামের বাসিন্দা। ভেদিয়া এলাকা থেকে এই তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ সূত্রে আরও খবর, পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর এলাকার বাসিন্দা বিমল কুমার মাল  গুসকরা ফাঁড়িতে অভিযোগ দায়ের করেন। তার অভিযোগের ভিত্তিতেই ওই তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বিমলবাবু জানান,  "বেশকিছুদিন আগে রাজীব দাস নাম এক ব্যক্তি তাঁকে ফোন করেন। তিনি বলেন, পুরানো আমলের  ২০০ টি সোনার মুদ্রা রয়েছে। তিনি সেগুলি বিক্রি করতে চান। কম দামেই বিক্রি করবেন বলেও জানান।"  বিমল কুমার বলেন," আমি প্রথমে গুরুত্ব দিইনি। বারবার ফোন করার পর আমি গত ১৬ জুলাই গুসকরা বাসস্ট্যান্ডে এলে সাগর, খোকন, শেখ মেহের আমাকে একটি মোহর দেখায়। সেটি নিয়ে গিয়ে একটি সোনারূপোর দোকানে পরীক্ষা করাই। ওই মোহরটি  সোনার বলে জানতে পারি। তখন বিশ্বাস হয় আমার। এরপর আমি ওই ২০০ টি মুদ্রা নিতে রাজি হই। দাম ঠিক হয় তিন লক্ষ টাকা। টাকা নিয়ে ২০০ টি মুদ্রা নিয়ে টাকা দিয়ে দিই। গুসকরা শহরেই একটি দোকানে গিয়ে ওই মুদ্রাগুলি পরীক্ষা করতেই জানতে পারি সব নকল।" তৎক্ষণাৎ পুলিশকে জানাই। উপযুক্ত শাস্তি হোক দোষীদের এমনটাই দাবি বিমল কুমারের। গোটা ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে  গুসকরা শহরে। গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই মুদ্রা গুলি কোথা থেকে পেল ধৃতরা, আর কে কে জড়িত রয়েছে এই কাজের সঙ্গে। জিজ্ঞাসাবাদ করে সবটা জানার চেষ্টা চালাচ্ছে গুসকরা থানার পুলিশ।
    Published by:Pooja Basu
    First published: