Home /News /local-18 /

East Bardhaman- পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ছেলের, সধারণ মানুষকে সচেতন করতে পোস্টার দিলেন শোকাহত বাবা

East Bardhaman- পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে ছেলের, সধারণ মানুষকে সচেতন করতে পোস্টার দিলেন শোকাহত বাবা

দুর্ঘটনার কবলে পরে মৃত্যু হয়েছিল ছেলের তাই দুর্ঘটনা এড়াতে মানুষকে সচেতন করতে এগিয়ে এলেন শোকাহত বাবা। 

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান :দুর্ঘটনার কবলে পড়ে মৃত্যু হয়েছিল ছেলের। তাই, দুর্ঘটনা এড়াতে মানুষকে সচেতন করতে এগিয়ে এলেন বাবা। ছেলের দুর্ঘটনাস্থলে নিজের মৃত ছেলের ছবি দিয়ে সচেতনতার পোস্টার দিলেন শোকাহত বাবা। পূর্ব বর্ধমানের মেমারির বিনয়পল্লী এলাকায় জি.টি রোডের ধারে, এক তরুনের ছবি সহ বিশাল পোস্টার। পুলিশ প্রশাসনের সহযোগিতায় সচেতনতার পোস্টার লাগানো হল এদিন।উপস্থিত ছিলেন, মেমারী থানার অফিসার ইন চার্জ সুদীপ্ত মুখোপাধ্যায়। পোস্টারে লেখা "দয়া করে আস্তে গাড়ি চালান। এই জায়গাতে এ্যাক্সিডেন্টে আমি আমার ছেলেকে হারিয়েছি।" দুর্ঘটনায় আর কোনও বাবা মা সন্তান হারান, চান না মেমারির তাতারপুরের বাসিন্দা আবুল সালাম মন্ডল। ২০১৮ সালে ৬ই অক্টোবর পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল ছেলে আমির সোহেল মন্ডলের। সেই দুর্ঘটনাস্থলেই, মেমারী পুলিশের সহযোগিতায় ছেলের ছবি দিয়ে পোস্টার লাগালেন আবুল বাবু। ছেলের সেই মৃত্যুর পরও মোটর বাইক নিয়ে ছেলে মেয়েদের বেপরোয়া দাপাদাপি,  প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনায় মৃত্যুর খবর খবরের কাগজে দেখে, বারে বারে আঁতকে ওঠেন তিনি। আবার হয়তো তাঁর মতো কারোকে পুত্রশোক বুকে নিয়ে কাটাতে হবে সারাটা জীবন- এই আশঙ্কা তাড়িয়ে বেড়ায় মেমারীর তাতারপুরের বাসিন্দা পেশায় ব্যবসায়ী আবুল সালাম মন্ডলকে। আবুল সালাম মন্ডল বলেন, "বাইক দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে আমার ছেলের। আমি চাই বেপরোয়া বাইক চালানো ছেলেমেয়েরা এই পোস্টার দেখুক। আমির সোহেলের পরিণতির কথা ভেবে তারা একটু সচেতন হোক।" এনিয়ে স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, ছেলেমেয়েরা সব সময় বেপরোয়াভাবে লরি ও অন্যান্য যানবাহন নিয়ে ছুটছে। দুর্ঘটনা ঘটছে প্রায়ই। এই পোস্টার দেখে গাড়ি, মোটর সাইকেল চালকরা সচেতন ভাবে গাড়ি চালালে উপকৃত হবেন সকলে। পূর্ব বর্ধমানের পুলিশ সুপার কামনাশীস সেন জানান, মেমারী থানা এলাকার মতো অনান্য থানা এড়িয়াতেও, এই উদ্যোগ নেওয়া হবে।অন্যদিকে ডিএসপি ট্রাফিক অতনু ব্যানার্জি বলেন, প্রতিনিয়ত বেপরোয়া গাড়ি চালানোর বিরুদ্ধে জেলা পুলিশের অভিযান চলছে। কিন্তু মেমারীর আবুল সালাম মন্ডলের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

    First published:

    Tags: Accident, Bardhaman news, East Bardhaman, Father, Poster

    পরবর্তী খবর