• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • PURBA BARDHAMAN CORONAVIRUS UPDATE MANKARE MICRO CONTAINMENT ZONE

মানকরে মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন

মানকরে মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন

মানকরের ভট্টাচার্য পাড়ায় হল মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন। এলাকায় সংক্রমণের হার বেশি। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর প্রশাস?

  • Share this:

    মালোবিকা বিশ্বাস,  পূর্ব বর্ধমান: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের পর দীর্ঘ দেড় মাস যাবৎ করোনার কঠোর বিধিনিষেধ চলছে।  কিছু ক্ষেত্রে শিথিলতা থাকলেও এখনও চালু হয়নি লোকাল ট্রেন। এখনও বেশ কিছু বিধিনিষেধ জারি রয়েছে। তবে কিছুটা সংক্রমণ নিম্নমুখী হওয়াতে অনেক মানুষই  বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। সে ক্ষেত্রে সেই সমস্ত \"বেয়াদপ\" দের সবক শেখাতে কঠোর হাতে হাল ধরেছে প্রশাসন। আর তার মধ্যেই মাথাচাড়া দিচ্ছে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের আছড়ে পড়ার আশঙ্কা। আর সেই সময় মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন হল মানকরের ভট্টাচার্য্য পাড়ায়। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ১৫ দিনের জন্য এই মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন করা হয়েছে জানা গিয়েছে।

    প্রশাসন সূত্রে খবর, ওই এলাকায় সংক্রমণের হার বেশি। ফলে এই জায়গাটি নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছিল প্রশাসন। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মানকরের ভট্টাচার্য পাড়া মূলত ঘনবসতিপূর্ণ অঞ্চল। মানকরের অন্যতম আভিজাত্য এলাকা এই ভট্টাচার্য্য পাড়া, সেখানে ১০৬-১০৭ নম্বর কে মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যেই সেখানে কোভিডের কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। এই জেলায় সংক্রমণ বাড়ছে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর। অন্য এলাকায় যাতে সংক্রমণ ছড়িয়ে না পড়ে তার জন্যই এই  কনটেইনমেন্ট জোনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন। যেভাবে করোনা সংক্রমণ নিম্নমুখী হচ্ছে সেই ধারা যাতে বজায় থাকে এছাড়াও  যাতে জেলার পরিস্থিতি কোনভাবেই খারাপ না হয়ে যায় এ যাবতীয় সব কথা মাথায় রেখেই সিদ্ধান্ত প্রশাসনের।

    প্রসঙ্গত এর আগেও, করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী হতেই বর্ধমান জেলায় মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন করতে দেখা গিয়েছে। এছাড়াও রীতিমত নিয়ম করে পুলিশ আধিকারিকরা রাস্তায় বেরোচ্ছেন। রাজ্য সরকারের দেওয়া বিধি-নিষেধ সাধারণ মানুষ মানছেন কিনা তা দেখতে  অভিযান চালাচ্ছে বর্ধমান পুলিশ। তার মধ্যেই  মানকরের ভট্টাচার্য্য পাড়া হল মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোন। যার জেরে সমস্যায় পড়েছেন এলাকার মানুষজন। তবে সাধারণ মানুষ যাতে কোনো অসুবিধা হয় না পড়ে তার জন্য সব রকম ভাবে সাহায্য করা হবে এমনটাই আশ্বাস পুলিশের।

    রাজ্য সরকারের পাশাপাশি জেলা প্রশাসনও কড়া ব্যবস্থা নিচ্ছে। সাধারণ মানুষ যদি সচেতন না হয় যদি করোনা সংক্রমণ নিম্নমুখী না হয় তাহলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে এভাবেই কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে স্পষ্ট বুঝিয়ে দিল এই মাইক্রো কনটেইনমেন্ট জোনের সিদ্ধান্ত।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: