Home /News /local-18 /
Purba Bardhaman: চুপির পাখিরালয়ে পাখিদের গণনা আগামী রবিবার

Purba Bardhaman: চুপির পাখিরালয়ে পাখিদের গণনা আগামী রবিবার

পূর্বস্থলীর চুপির পাখিরালয়ের পাখিদের গণনা করবে বনদপ্তরের আধিকারিকরা

  • Share this:

    পূর্ব বর্ধমান : পূর্বস্থলীর চুপির পাখিরালয়ের পাখিদের গণনা (Enumeration) করবে বনদপ্তরের আধিকারিকরা। আগামী রবিবার গণনা (Enumeration) হবে পরিযায়ীদের। এনিয়ে ইতিমধ্যেই করা হল মাইকিং। বন বিভাগের তরফে মাইকিং করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, গণনা (Enumeration) হবে সকাল সাতটা থেকে যা চলবে দুপুর দুটো পর্যন্ত। ওই দিন সমস্ত বোটিং (Boating) বন্ধ থাকবে বলেও জানা গিয়েছে। কোন পরিযায়ী কত সংখ্যায় এসেছিল তা যেমন জানা যায়, তেমনই নতুন প্রজাতির কোনও পরিযায়ী এসেছিল কি না, তাও জানা যায় এই গণনায়।

    শীত পড়লেই নানা প্রান্ত থেকে পরিযায়ীরা আসতে শুরু করে চুপির চরে। ভিড় জমায় লেসার হুইসলিং, লিটল গ্রিবের, পার্পল হেরন, পার্পল মুরহেনসের মতো একাধিক পরিযায়ীরা৷ সাইবেরিয়া (Siberia), আফ্রিকা (Africa) থেকে কয়েক মাসের জন্য বেড়াতে আসে পাখিরা৷ কয়েকটি প্রজাতির পাখি আবার এই সময়ই প্রজনন সেরে ফেলে৷ এই নিরিবিলি স্থান, স্বচ্ছ জলে থাকা শ্যাওলা, জলজ উদ্ভিদের মতো খাবারের টানে প্রতিবছরই ঝাঁকে ঝাঁকে পাখির ঠিকানা হয়ে ওঠে এই চুপির চর। আর যার টানে ভ্রমণ পিপাসুরা চলে আসেন এই পাখিরালয়ে। নিরিবিলিতে প্রকৃতির কোলে নানা প্রজাতির পাখি দেখে সময় কাটান অনেকেই। তবে যদি এই রবিবার আসার কথা ভাবেন তাহলে তা বাতিল করুন। নাহলে যে আসাটাই বৃথা হয়ে যাবে। কারণ বোটিং ছাড়া যে পাখিদের দর্শন পাওয়া মুশকিল।

    উল্লেখ্য, মার্চের মাঝামাঝি বেশিরভাগ পরিযায়ীরা বিদায় নেয় এখান থেকে৷ এপ্রিল মাসে আর পাখিরা থাকে না বললেই চলে৷ মাঝে পরিযায়ীর সংখ্যা খানিকটা কমে গেলেও গণনায় দেখা গিয়েছে, গত দু'-তিন বছরে পাখিদের সংখ্যা বেড়েছে৷ গার্গানি আর রেড ক্রেস্টেড পোচার্ডের উপস্থিতি অনেক বেশি। ২০০৮ সাল থেকে প্রতিবছরপাখি গণনার কাজ করতো স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা বনবিধী। তবে তার পর সেই দায়িত্ব নেয় বন বিভাগের কর্মীরাই। ২০১৯ সাল থেকে পাখি গণনার কাজ করে আসছেন বন বিভাগের কর্মীরা। তারপর থেকেই প্রতিবছর পাখি গণনা করছেন তাঁরা।

    First published:

    Tags: Purba bardhaman

    পরবর্তী খবর