Home /News /local-18 /
East Bardhaman News- অবশেষে শুরু হল বর্ধমান সাহিত্য পরিষদ ভবন সংস্কারের কাজ।

East Bardhaman News- অবশেষে শুরু হল বর্ধমান সাহিত্য পরিষদ ভবন সংস্কারের কাজ।

বর্ধমানের মহারাজা বিজয় চাঁদ মহতাবের আমলে প্রতিষ্ঠিত বর্ধমান সাহিত্য পরিষদ ভবনের সংস্কারের কাজ অবশেষে শুরু করল সংস্থার বর্তমান সদস্য বৃন্দ।

  • Share this:

    #পূর্ব বর্ধমান : বর্ধমানের মহারাজা বিজয় চাঁদ মহতাবের আমলে প্রতিষ্ঠিত বর্ধমান সাহিত্য পরিষদ ভবনের সংস্কারের কাজ অবশেষে শুরু করল সংস্থার বর্তমান সদস্য বৃন্দ। শতবর্ষ প্রাচীন এই সংস্থা এক সময় বর্ধমান শহরের সাহিত্যপ্রেমী মানুষের অন্যতম গন্তব্যস্থান হয়ে উঠেছিল (East Bardhaman News)। শহরের খোসবাগানে সংস্থার ভবনে, সে সময় বহু দিকপাল সাহিত্য অনুরাগী মানুষ তাদের সাহিত্য চর্চা করতেন। কিন্তু পরবর্তীকালে ওই ভবনে অবস্থিত একটি সঙ্গীত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ে এই সাহিত্য সংস্থা, যা গড়ায় আদালত পর্যন্ত। যার ফলস্বরূপ দীর্ঘদিন বন্ধ হয়ে পড়ে থাকে সংস্থার কক্ষ। তবে সম্প্রতি উদয়চাঁদ গ্রন্থাগারে সংস্থার উদ্যোগে এক মিলন উৎসবের আয়োজন করা হয়। যেখানে স্থির করা হয় এই ভবনটি পুনরায় খোলা হবে। সংস্কার করে বর্ধমানের সাহিত্যপ্রেমী মানুষদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। সেই মোতাবেক শুরু হল ভবন সংস্কারের কাজ।

    এই প্রসঙ্গে সংস্থার সম্পাদক কাশীনাথ গাঙ্গুলী বলেন, "দীর্ঘদিন ধরে আইনি জটিলতার কারণে ভবন সংস্কারের কাজ করা যায়নি। সেই জটিলতা থেকে কিছুটা মুক্তি মিলতেই সংস্কারের কাজে হাত দেওয়া হয়েছে। গ্রন্থাগারের বহু বই চুরি হয়ে গিয়েছে। আগামী দিনে নতুন বই কিনে যাতে সংস্থার গ্রন্থাগারকে সাজিয়ে তোলা সম্ভব হয় এবং সংস্থার ভবনটি যাতে দ্বিতল করা যায়, তা নিয়ে বর্ধমানের জেলাশাসকের মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও অনুরোধ জানানো হবে বলে।" (East Bardhaman News)

    সংস্থার সভাপতি মুরারী মোহন কোঙার জানান, "নিতাই মুখার্জি, সুজিত চক্রবর্তী, ডঃ দেবেশ ঠাকুর সহ সকল সদস্যের মিলিত প্রচেষ্টায়, আগামী দিনে এই ভবন সম্পূর্ণ সংস্কার হয়ে বর্ধমানের সাহিত্য অনুরাগী মানুষের কাছে নতুনভাবে তুলে দেওয়া সম্ভব হবে বলে আমাদের বিশ্বাস।" (East Bardhaman News)

    উল্লেখ্য, ১৩১২ বঙ্গাব্দে তৎকালীন রাজা বিজয় চাঁদ মহতাবের আমলে প্রতিষ্ঠা হয় এই ভবনটির। বহু দুষ্প্রাপ্য বই ছিল গ্রন্থাগারে। এরপর ২০১১ সালে সিপিএমের পার্টি অফিস করা হয় এই স্থানে। তবে এই বছরই তৎকালীন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায় বর্ধমান সাহিত্য পরিষদ ভবনের সদস্যদের হাতে ভবনের দায়িত্ব তুলে দেয়। সংস্কারের কাজ শুরু হতেই হঠাৎ নানা আইনী জটিলতায় পরে গিয়ে বন্ধ হয়ে যায় ভবন সংস্কারের কাজ। তবে অবশেষে সব জটিলতা কাটিয়ে শুরু হয়েছে ভবনটি সংস্কারের কাজ। সব ঠিক থাকলে ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই পুনরায় চালু হবে বর্ধমান সাহিত্য পরিষদের গ্রন্থাগারটি।

    Malobika Biswas

    First published:

    Tags: East Bardhaman

    পরবর্তী খবর