Home /News /local-18 /
North 24 Parganas: নিউটাউনে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস এর কাজ শুরুর অনুরোধ 'উইপ্রো'-কে

North 24 Parganas: নিউটাউনে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস এর কাজ শুরুর অনুরোধ 'উইপ্রো'-কে

চলছে সাইনবোর্ড লাগানোর কাজ

চলছে সাইনবোর্ড লাগানোর কাজ

নিউটাউনে দ্বিতীয় ক্যাম্পাস এর কাজ শুরু করার অনুরোধ উইপ্রো কে, চিঠি  হিডকোর

  • Share this:

    রুদ্র নারায়ন রায়, উত্তর ২৪ পরগনা: একটানা বার বছরের বেশি সময় ধরে জমি হাতে পেলেও নিউটাউনে (Newtown) দ্বিতীয় ক্যাম্পাস নির্মানের জন্য কাজ শুরু করেনি তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা উইপ্রো (Wipro)। অফিস চালু করা তো দূরের কথা অফিস বিল্ডিং নির্মানও হয়নি। শুধু বাউন্ডারি পাঁচিল দিয়ে ঘেরা আছে ৫০ একর জমি। সেই জমিতে দ্রুত বিল্ডিং নির্মান করে যাতে অফিস চালু করা যায় সেজন্য উইপ্রোকে (Wipro) চিঠি দিয়েছে হিডকো (HIDCO) কর্তৃপক্ষ। উইপ্রোকে দ্রুত কাজ শুরু করার জন্য অনুরোধ করেছেন হিডকোর জয়েন্ট ম্যানেজিং ডিরেক্টর। হিডকোর (HIDCO) এক আধিকারিক বলেন, ‘ইনফোসিস (Infosys) ও উইপ্রো (Wipro) একইসাথে নিউটাউনে (Newtown) জমি পেলেও উইপ্রো কাজ শুরু করেনি। অথচ পুজোর পর থেকে যুদ্ধকালীন গতিতে কাজ করছে ইনফোসিস (Infosys)। উইপ্রো যাতে দ্রুত কাজ শুরু করে সেজন্য হিডকোর পক্ষ থেকে বারবার তাগাদা দেওয়া হচ্ছে।‘

    বাম আমলে ২০০৯ সালে নিউটাউনের একশন এরিয়া তিন এ ভাঙড়ের চাঁদা কাঁঠালবেড়িয়া মৌজাতে ৫০ একর জমি দেওয়া হয় বিখ্যাত তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা উইপ্রোকে। ৭৫ কোটি টাকার বিনিময়ে ৫০ একর জমি পায় উইপ্রো। ঠিক হয় ৯৯ বছরের জন্য লিজ পাওয়া জমির ৭৫ শতাংশ জায়গা জুড়ে তথ্যপ্রযুক্তি বা সেই সম্পর্কিত কাজ করতে হবে। ২০১০ সালে উইপ্রো জমি লিজের প্রথম কিস্তি হিসাবে ১৮.৯ কোটি টাকা দেয় হিডকোকে। এরপর রাজ্যে পালাবদল হলে ২০১৪ সালে তৃণমূল সরকারের আমলে বকেয়া ৫৮.৯ কোটি টাকা দেয় হিডকোকে।যদিও সব টাকা পরিশোধ করলেও কাজ শুরু করতে গড়িমসি করে উইপ্রো। উইপ্রোর পাশে জমি পায় আরও দুটি বড় সংস্থা ইনফোসিস ও আইটিসি ইনফোটেক। ওই দুটি সংস্থা কাজ শুরু করলেও নীরব থাকে উইপ্রো। রাজ্য সরকারের কাছে উইপ্রো দাবি করে, তাদেরকে স্পেশাল ইকনোমিক জোন বা এসইজেডের তকমা দিতে হবে। তা না হলে তারা কাজ শুরু করবেনা।

    রাজ্য সরকার পরিষ্কার জানিয়ে দেয় এসইজেডের মত সমস্ত সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে কিন্তু এসইজেড করা যাবে না। ২০২০ সালের মাঝামাঝি ঠিক হয় উইপ্রো ও ইনফোসিসকে লিজহোল্ডের পরিবর্তে ফ্রিহোল্ড দেওয়া হবে। এর ফলে তারা মোট জমির ৪৯ শতাংশ জায়গা জুড়ে নন আইটি অর্থ্যাত আইটির সঙ্গে সম্পর্কিত নয় এমন কিছু শিল্প করতে পারবে, যেজন্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তর থেকে আলাদা করে কোন অনুমতি নিতে হবেনা। অনেক আগেই এ রাজ্যে সলটলেক সেক্টর ফাইভে তাঁদের প্রথম ক্যাম্পাস তৈরি করে উইপ্রো। যেখানে ইতিমধ্যেই সাড়ে ছ’হাজার তথ্য প্রযুক্তি কর্মী কাজ করেন। রাজারহাট নিউটাউনে নতুন ক্যাম্পাসের জন্য প্রায় এক হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে বলে জানিয়েছে উইপ্রো। শুরুতে এখানে পাঁচশো সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার কাজ পেলেও ভবিষ্যতে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে কয়েক হাজার বেকার যুবকের কর্মসংস্থান হবে।

    অন্যদিকে, কলকাতা বিমানবন্দর থেকে দশ মিনিটের দূরত্বে নিউটাউন ইকো পার্কের চার ও পাঁচ নম্বর গেটের উল্টোদিকে ২০০ একর জমির ওপর বেঙ্গল সিলিকন ভ্যালি তৈরি করেছে রাজ্য সরকার। ২০১৮ সালের ১৩ আগষ্ট এই ভ্যালির উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, প্রয়োজনে উইপ্রো, ইনফোসিস কে আরও জমি দেব। কিন্তু দ্রুত কাজ শুরু করতে হবে। সম্প্রতি সিলিকন ভ্যালিতে ৪০ একর জমির ওপর কাজ শুরু করেছে রিলায়েন্স জিও। হিডকোর ম্যানেজিং ডিরেক্টর দেবাশিস সেন বলেন, উইপ্রো যাতে দ্রুত কাজ শুরু করে সেজন্য ওঁদেরকে বলা হয়েছে।হিডকোর চিঠি পাওয়ার পরই বাউন্ডারি পাঁচিল রঙ করার পাশাপাশি মূল গেটে নতুন হোডিং লাগিয়েছে উইপ্রো।

    First published:

    Tags: Newtown, North 24 Parganas, Wipro

    পরবর্তী খবর