• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • মাধ্যমিকে ৬৯৭ নম্বর পেয়ে ৭৯ জনের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার বনগাঁর দিব্যদ্যুতি-র

মাধ্যমিকে ৬৯৭ নম্বর পেয়ে ৭৯ জনের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার বনগাঁর দিব্যদ্যুতি-র

মাধ্যমিকে ৬৯৭ নম্বর পেয়ে ৭৯ জনের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার বনগাঁর দিব্যদ্যুতি-র

মাধ্যমিকে ৬৯৭ নম্বর পেয়ে ৭৯ জনের মধ্যে প্রথম স্থান অধিকার বনগাঁর দিব্যদ্যুতি-র

৬৯৭ নম্বর নিয়ে ৭৯ জনের মধ্যে প্রথম স্থানের জায়গা করে নিয়েছে দিব্যদ্যুতি।

  • Share this:

     উত্তর ২৪ পরগনা : করোনা মহামারীর কারণে বিপর্যস্ত গোটা দেশ তথা রাজ্য। গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে চলছে এই মহামারী। এর ফলে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আগামী ৩০ জুলাই পর্যন্ত রাজ্যে করা বিধি নিষেধ- এর নির্দেশ দিয়েছে রাজ্য সরকার। কিছুটা ছাড় দিয়ে চলছে বিধি-নিষেধ। তবে বন্ধ এখনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বহুবার স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয় খোলার কথা সরকার ভাবলেও করোনা মহামারী যেভাবে আকার ধারণ করে চলেছে প্রতিনিয়ত, তাতে এখনও পর্যন্ত বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সরকারের পক্ষ থেকে অনেকবারই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল মাধ্যমিক, উচ্চ-মাধ্যমিক পরীক্ষা যাতে সুষ্ঠুভাবে করা যায়, তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যেভাবে বিপর্যস্ত হয়েছে রাজ্য, সেদিক থেকে বারবার পিছিয়ে গিয়েছে সরকারের এই পরিকল্পনা। শেষ পর্যন্ত ছাত্র জীবনের প্রথম সবচেয়ে বড় পরীক্ষা মাধ্যমিক বাতিল করার নির্দেশ দেওয়া হয় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পক্ষ থেকে। সেই অনুযায়ী আজ ২০ জুলাই নির্ধারিত হয়েছিল মাধ্যমিকের ফল ঘোষণার দিন। সেই মতো বেলা ১০ টায় মধ্যশিক্ষা পর্ষদের পক্ষ থেকে সাংবাদিক সম্মেলন করে মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা করা হয়। তবে এবার বেনজির ভাবে পাশের হার ১০০ শতাংশ বলেই জানায় মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। ক্লাস নাইনের মূল্যায়ন অনুযায়ী এবছর মাধ্যমিকের ফল ঘোষণা করা হয়েছে বলেও জানান তারা। মোট ৭০০ নম্বরে সর্বোচ্চ ৬৯৭ নম্বর দেওয়া হয়েছে এবং তা মোট ৭৯ জন এই নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছে। আর এই ৭৯ জনের মধ্যেই উত্তর ২৪ পরগনার বনগাঁর ছয়ঘড়িয়া রাখালদাস হাইস্কুলের ছাত্র দিব্যদ্যুতি রায় জায়গা করে নিয়েছে প্রথম স্থানের। মাধ্যমিকের ভালো ফলে উচ্ছ্বসিত দিব্যদ্যুতি এবং স্কুল কর্তৃপক্ষ। দিব্যদ্যুতি এই নাম্বারে গর্বিত তার বাবা-মা। প্রধান শিক্ষক উজ্জ্বল বিশ্বাস এর মতে পঞ্চম শ্রেণী থেকে ক্লাসে প্রথম হয়ে এসেছে দিব্যদ্যুতি। দিব্যদ্যুতি-এর উপরে আশা ছিল স্কুল কর্তৃপক্ষের। অংক, জীবন বিজ্ঞান, ভৌত বিজ্ঞান, ভূগোলে ১০০ র মধ্যে ১০০ পেয়েছে সে। মাধ্যমিকে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপকদের মধ্যে দিব্যদ্যুতির নাম থাকায় খুশি স্কুলের প্রধান শিক্ষক থেকে শুরু করে অন্যান্য শিক্ষকেরা। যদিও দিব্যদ্যুতি সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপকদের তালিকায় থাকায় খুশি তবুও আক্ষেপের সুরে জানাচ্ছে পরীক্ষা হলে ভালো হত। আগামীদিনে সাইন্স নিয়ে পড়তে চাই সে এবং বাবা-মায়ের নাম উজ্জ্বল করতে চায় বলেও জানায় দিব্যদ্যুতি।

    রাতুল ব্যানার্জি

    Published by:Piya Banerjee
    First published: