Home /News /local-18 /

coronavirus: উৎসব মিটতেই উদ্বেগ বাড়িয়ে জেলায় বাড়ল করোনা সংক্রমণ, তৎপর জেলা প্রশাসন

coronavirus: উৎসব মিটতেই উদ্বেগ বাড়িয়ে জেলায় বাড়ল করোনা সংক্রমণ, তৎপর জেলা প্রশাসন

করণা সংক্রমণ রুখতে তৎপর জেলা প্রশাসন।

করণা সংক্রমণ রুখতে তৎপর জেলা প্রশাসন।

coronavirus: গত ২৪ ঘন্টায় উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৩৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় সুস্থ হয়েছে ১১০ জন। মৃত্যুর সংখ্যা চার।

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগনা : উৎসব কাটতেই উদ্বেগ বাড়িয়ে জেলায় সামান্য বাড়ল করোনা (coronavirus)। করোনার (coronavirus) দাপটে একসময় দিশাহীন হয়ে পড়েছিল সারা দেশ তথা রাজ্য। ক্রমশ বেড়েই চলেছে এল সংক্রমণ। তবে কেন্দ্রীয় সরকার এবং রাজ্য সরকারের উভয়ের প্রচেষ্টায় করোনার প্রথম ঢেউ কে আটকাতে সক্ষম হয়েছিল ঠিকই তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের হাতের বাইরে চলে গিয়েছিল তা।

    করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যে হারে সংক্রমণ (coronavirus)বেড়েছিল তাতে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছিল গোটা দেশ তথা রাজ্যের মানুষ। করোনাকে (coronavirus) আটকাতে বহু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে। তবে স্বাস্থ্য ব্যবস্থার পরিকাঠামো এতটাই দুর্বল ছিল দেশ তথা রাজ্যের সেখানে দাঁড়িয়ে মৃত্যুর মিছিলে পরিণত হয়েছিল দেশের বিভিন্ন রাজ্য তথা পশ্চিমবঙ্গে।

    অক্সিজেনের অভাব, বেডের অভাব যার কারণে বহু মানুষের পরিবার-পরিজনরা মৃত্যুর মুখ দেখেছিল। দ্বিতীয় ঢেউয়ে করোনা (coronavirus) সংক্রমণ আটকাতে যা পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে তা কার্যকর হয়েছিল। যে হারে সংক্রমণ বেড়েছিল তাতে অনেকটাই সংক্রমনের হ্রাস টেনেছে। তবে গতকালের থেকে তুলনায় অনেকটাই বাড়ল করোনা সংক্রমণ।

    গত ২৪ ঘন্টায় উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ১৩৮ জন(coronavirus)। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় সুস্থ হয়েছে ১১০ জন। মৃত্যুর সংখ্যা চার। যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে তাতে আশঙ্কা সেই তৃতীয় ঢেউয়ের। উৎসবের মরসুমে যথেষ্ট তৎপর ছিল প্রশাসন। মাস্ক বিহীন মানুষদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। সে কারণে তুলনায় অনেকটাই কম সংক্রমিত হয়েছে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

    তবে এই উৎসবের মরসুমে যে হারে মানুষ দিশাহীন হয়ে মাক্স ব্যবহার না করে উৎসবে মেতেছেন তার জন্য এই পরিণতি বলে দাবি চিকিৎসক মহলের। তবে কি দেশ তথা রাজ্যে আছড়ে পড়ল করোনার তৃতীয় ঢেউ! এমনই প্রশ্ন সাধারণ মানুষের। চিকিৎসকদের মতে, এখনও পর্যন্ত তৃতীয় ঝড়ের আশঙ্কা না করলেও পরে যে তা হবে না এমনটা নয়। ইতিমধ্যেই তৃতীয় ঢেউকে (Third wave of corona) আটকাতে টিকাকরণকে(vaccine) জোর দিয়েছে সরকার।

    চিকিৎসকদের মতে সংক্রমণ আটকাতে একমাত্র উপায় টিকাকরণ। তবে যেভাবে সংক্রমণ বাড়ছে তাতে আশঙ্কায় রয়েছে সাধারণ মানুষ থেকে চিকিৎসক মহল। তৃতীয় ঢেউয়ে আশঙ্কা শিশুদের সংক্রমনের বেশি। চিকিৎসকদের মতে করোনা থেকে বাঁচতে হলে মেনে চলতে হবে করোনা বিধি। মাস্ক, স্যানিটাইজার বাধ্যতামূলক।

    ইতিমধ্যেই জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে মাস্ক এবং স্যানিটাইজারের ব্যবহারে চলছে লাগাতার প্রচার। সামনে জগদ্ধাত্রী পুজো কোভিড(Corona) বিধি মেনেই দুর্গাপূজা এবং কালী পূজোর মতই করতে হবে জগদ্ধাত্রী পুজো এমনই নির্দেশ প্রশাসনের। এখন দেখার এত কিছু মেনে নেওয়ার পরেও কি আছড়ে পড়বে করোনার তৃতীয় ঢেউ তারই আশঙ্কায় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য থেকে গোটা দেশ।

    রাতুল ব্যানার্জি

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: COVID19, North 24 Parganas, West bengal

    পরবর্তী খবর