Home /News /local-18 /
North 24 Parganas News- বসিরহাটের ঘোজাডাঙ্গা স্থলবন্দরে সীমান্ত বাণিজ্যের সুবিধার্থে গড়ে উঠবে অত্যাধুনিক পার্কিং লট

North 24 Parganas News- বসিরহাটের ঘোজাডাঙ্গা স্থলবন্দরে সীমান্ত বাণিজ্যের সুবিধার্থে গড়ে উঠবে অত্যাধুনিক পার্কিং লট

ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত

ঘোজাডাঙ্গা সীমান্ত

এই অত্যাধুনিক পার্কিং লট হলে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে সময় যেমন অনেকটাই বাঁচবে, পাশাপাশি দীর্ঘক্ষন পণ্য সামগ্রী নিয়ে ট্রাক গুলিকে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগনা: এশিয়ার সর্ববৃহৎ স্থলবন্দর পেট্রাপোল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পণ্যবাহী ট্রাক যাতায়াতের চাপ দিন দিন বাড়ছে। এই জেলারই আর একটি স্থলবন্দর ঘোজাডাঙা সীমান্ত দিয়েও পণ্যবাহী ট্রাক বাংলাদেশে প্রবেশ করে। কিন্তু সেখানে কোনও পরিকাঠামো না থাকায়, রাস্তার উপরেই পণ্যবাহী ট্রাকগুলিকে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়। সেক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়। আর এই সমস্যা সমাধানে এবং বাণিজ্যে গতি আনতে এবার ঘোজাডাঙা সীমান্তেও পার্কিং এলাকা তৈরি সহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরির সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হচ্ছে (North 24 Parganas News)।

    আমদানি–রপ্তানি বাণিজ্যে গতি আনতে পেট্রাপোল সীমান্তের মতো এবার উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বসিরহাট মহকুমার ঘোজাডাঙা সীমান্তেও স্থলবন্দরের পরিকাঠামো গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার(North 24 Parganas News)। ইতিমধ্যে এই ব্যাপারে একাধিক বৈঠকের পাশাপাশি স্থানীয় মানুষদের সঙ্গে কথা বলেছেন প্রশাসনিক কর্তারা। এই পরিকাঠামো পুরোপুরিভাবে তৈরি হয়ে গেলে, এখানে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ মিলবে। আর সেক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি উপকৃত হবেন স্থানীয়রাও।

    প্রাথমিকভাবে সিদ্ধান্ত হয়েছে, ৪৫ একর জমির উপর এই পরিকাঠামো গড়ে তোলা হবে। সীমান্তের জিরো পয়েন্ট থেকে বর্ডার রোড ধরে এই পার্কিং এলাকা তৈরি হবে। এর জন্য প্রাথমিকভাবে জমি চিহ্নিতকরণের কাজ শেষ হয়েছে। এই অত্যাধুনিক পার্কিং লট হলে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে সময় যেমন অনেকটাই বাঁচবে, পাশাপাশি দীর্ঘক্ষন পণ্য সামগ্রী নিয়ে ট্রাক গুলিকে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না। ফলে সারিবদ্ধ ভাবে অনায়াসেই এই পার্কিং লটে পণ্য আদান-প্রদানের সুবিধা ঘটবে বলেও শুল্ক দফতর সূত্রে জানা যায়। যদিও ওই এলাকায় ফাঁকা জমি ও বাগানের পাশাপাশি অনেক বসতবাড়িও রয়েছে। তবে সেগুলি কিভাবে অধিগ্রহণ করা হবে, তা নিয়েই ইতিমধ্যে গ্রামবাসীদের সঙ্গে দফায় দফায় কথা বলছেন প্রশাসনিক আধিকারিকরা(North 24 Parganas News)। এই ক্ষেত্রে স্থানীয় ব্লক ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দফতর, জমির মূল্য নির্ধারণ করবেন। সেই মূল্য যদি নায্য বলে মনে হয়, তাহলেই গ্রামবাসীরা জমি স্বেচ্ছায় দেবেন বলে জানিয়েছেন।

    Rudra Narayan Roy
    First published:

    Tags: Basirhat, North 24 Pargana news

    পরবর্তী খবর