• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • Nadia- জেলা জুড়ে ভ্যাকসিন নিতে অনিচ্ছুক ব্যক্তিদের চলছে ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রচেষ্টা

Nadia- জেলা জুড়ে ভ্যাকসিন নিতে অনিচ্ছুক ব্যক্তিদের চলছে ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রচেষ্টা

ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য লাইন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে

ভ্যাকসিন নেওয়ার জন্য লাইন স্বাস্থ্যকেন্দ্রে

বিভিন্ন ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে কিছু সংখ্যক মানুষ বিভিন্ন রকম অজুহাত দেখিয়ে ভ্যাকসিন নিতে এড়িয়ে যাচ্ছেন

  • Share this:

    #নদিয়া: গত দু'বছর ধরে করোনায় জর্জরিত গোটা দেশ। অতিমারির জেরে সরকার থেকে চালু করা হয়েছিল বিভিন্ন বিধি নিষেধ। লকডাউনে গোটা দেশ গিয়েছিল থমকে। তবে বৈজ্ঞানিকদের তৎপরতায় খুব কম সময়ের মধ্যেই ভ্যাকসিন আবিষ্কার হওয়ার ফলে, আবারও নতুন করে আশার আলো দেখেছে মানুষজন। গোটা দেশের সামাজিক এবং অর্থনৈতিক চাকা চলতে শুরু করেছে ধীরে ধীরে। এই আনন্দের মধ্যেও একটি দুশ্চিন্তা থেকেই যাচ্ছে, তা হল, ভ্যাকসিন নিতে অনীহা। বিভিন্ন ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, কিছু সংখ্যক মানুষ বিভিন্ন রকম অজুহাত দেখিয়ে ভ্যাকসিন নিতে এড়িয়ে যাচ্ছেন। গোটা পৃথিবীকে আবারও স্বাভাবিক ছন্দে ফিরিয়ে আনতে ভ্যাকসিন নেওয়াই একমাত্র উপায়। কিন্তু এখনো জেলার বিভিন্ন জায়গায় শোনা যাচ্ছে মানুষের ভ্যাকসিন নিতে অনীহা। চলতি মাসেই জেলার প্রতিটি ব্লকে ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্য ব্যক্তিকে ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে স্বাস্থ্যদপ্তর। আশা কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে, যারা ভ্যাকসিন পাননি তাদের চিহ্নিত করছেন। বিভিন্ন জায়গায় মেগা ক্যাম্প করে ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

    জেলায় ভ্যাকসিনের একটি ডোজও নেননি এমন ব্যক্তির সংখ্যাটা যথেষ্ট পরিমাণে বেশি। আর সেই জন্যেই চিন্তায় আছেন জেলার স্বাস্থ্য আধিকারিকেরা। স্বাস্থ্য দপ্তরের কথা অনুযায়ী অনেকেই আছেন যারা বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে ভ্যাকসিন নিতে চাইছেন না। প্রযুক্তিগত কারণে অনেকে অনলাইনে ভ্যাকসিন বুক করতেও পারছেন না। জেলা হাসপাতাল গুলোতেও ভ্যাকসিনের লাইন না দেওয়ার জন্য অনেকেই ভ্যাকসিন নিতে আসতে চাইছেন না। এখন প্রধান কাজ হল, সেই সব মানুষকে শনাক্ত করে তাদের ভ্যাকসিন নেওয়ার গুরুত্ব বুঝিয়ে ভ্যাকসিন প্রদান করা। এই মাসের মধ্যেই ভ্যাকসিন নেওয়ার যোগ্য যারা তাদের প্রত্যেককেই ভ্যাকসিন দিতে চাইছেন জেলা স্বাস্থ্যদপ্তর। স্বাস্থ্যদপ্তরে রিপোর্ট অনুযায়ী, এখন জেলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে ভ্যাকসিন রয়েছে। আশা কর্মীদের তালিকা নিয়ে সেই তালিকা ধরেই প্রত্যেক ভ্যাকসিন পাওয়ার যোগ্য লোককে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করা হবে। প্রয়োজনে বিশেষ বিশেষ শিবির এবং মেগা ক্যাম্প করে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে জেলার বিভিন্ন ব্লকে।

    First published: