• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • অল্পসংখ্যক ভক্ত নিয়েই পালিত হল মায়াপুর ইসকনের জগন্নাথ দেবের স্নান যাত্রা উৎসব

অল্পসংখ্যক ভক্ত নিয়েই পালিত হল মায়াপুর ইসকনের জগন্নাথ দেবের স্নান যাত্রা উৎসব

করোনা বিধি পালন করে অল্প সংখ্যক ভক্তকে নিয়েই স্নানযাত্রা পালন করা হচ্ছে।

করোনা বিধি পালন করে অল্প সংখ্যক ভক্তকে নিয়েই স্নানযাত্রা পালন করা হচ্ছে।

করোনা বিধি পালন করে অল্প সংখ্যক ভক্তকে নিয়েই স্নানযাত্রা পালন করা হচ্ছে।

  • Share this:

    #নদিয়া: আজ ছিল জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা। এদিন ভক্তের সমাগম যথেষ্ট পরিমাণে লক্ষ্য করা যায় মায়াপুর ইসকন মন্দিরে। তবে অন্যান্য বারের মতো এবার সেই অর্থে ভিড় লক্ষ্য করা গেল না। করোনার বাড়বাড়ন্তের জেরে সর্বোচ্চ ৫০ জন নিয়ে স্নান যাত্রা উৎসব পালন করা হল মায়াপুর জগন্নাথ মন্দিরে। প্রশাসনের ভূমিকা ছিল তৎপর। যাতে দর্শনার্থীরা ভিড় করতে না পারে তার জন্য রাস্তার মোড়ে মোড়ে ছিল পুলিশি পাহারা। এদিন রীতি ও প্রথা অনুযায়ী নদিয়ার মায়াপুর ইসকন পরিচালিত রাজাপুর জগন্নাথ মন্দিরে পালিত হলো জগন্নাথের স্নান যাত্রা উৎসব। পুরান মতে, স্নানের পরেই জগন্নাথ দেব ধুম জ্বরে কাবু হয়ে তিনি গৃহবন্দি হয়ে থাকবেন। এবং পুনরায় রথের দিন রাজবেশে রাজরথে করে ভক্তদের মাঝে অবতীর্ণ হবেন। স্নান যাত্রা উপলক্ষে সকাল থেকেই ইসকন পরিচালিত রাজাপুর জগন্নাথ মন্দিরে ভক্তদের ঢল নামে।

    করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে সমস্ত সরকারি বিধি মেনেই সম্পন্ন হলো জগন্নাথের স্নান যাত্রা উৎসব। আর স্নান যাত্রার মধ্য দিয়েই শুরু হয়ে গেল রথ যাত্রার প্রস্তুতি। এদিন সকাল থেকেই রাজাপুর জগন্নাথ মন্দিরে ভক্তরা গঙ্গাজল, বিভিন্ন রকমের ফলের রস দিয়ে জগন্নাথ, বলদেব ও সুভদ্রা মহারানীকে স্নান করান। তবে এবার সীমিত ভক্তগণ নিয়েই সম্পন্ন করা হলো জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা। মন্দিরের সদস্য পুরুষোত্তম স্বামীর বক্তব্য অনুযায়ী, করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে এবার জগন্নাথ দেবের বড় বিগ্রহ স্নান করানোর পরিবর্তে ছোট বিগ্রহ দিয়েই স্নানযাত্রা সম্পন্ন করা হয়েছে।

    করোনা বিধি পালন করে অল্প সংখ্যক ভক্তকে নিয়েই স্নানযাত্রা পালন করা হচ্ছে। সাধারণত পঞ্চযজ্ঞ ও পঞ্চামৃত দিয়েই জগন্নাথ দেবকে স্নান করানো হয়। স্নান করানোর পর জগন্নাথ দেবকে সিঙ্গার তথা বেশ পরানো হয়। কথিত আছে জগন্নাথ দেব একটিবার গণেশ রূপ ধারণ করেছিলেন। সেই রীতি অনুযায়ী জগন্নাথ দেবকে গণেশ রুপী গজবেশ পড়ানো হয় আজকের দিনে। তারপরে জগন্নাথ দেবকে দেওয়া হবে ৫৬ ভোগ। তবে আজকের পর ১৫ দিন ৫৬ ভোগ বন্ধ থাকে। ওই ১৫ দিন জগন্নাথ দেবের জ্বরলীলা পালন করা হবে। মানুষের জ্বর হলে যেমন ঔষধ দেওয়া হয় সেরকম জগন্নাথ দেবকেও দেওয়া হবে ওই ১৫ দিন আয়ুর্বেদিক ঔষধ। রথযাত্রা উৎসবের ক্ষেত্রেও রাশ টানা হতে পারে বলে এই দিন জানান তিনি। প্রতি বছরের মতো হয়তো এইবার ভক্তের সমাগম নিয়ে রথযাত্রা পালন করা হবে না। মন্দিরের অল্পসংখ্যক কিছু ভক্ত নিয়েই মন্দির প্রাঙ্গণে রথযাত্রা উৎসব পালন করা হতে পারে বলে জানান তিনি।

     Mainak Debnath

    Published by:Piya Banerjee
    First published: