Home /News /local-18 /
Nadia News- শান্তিপুরের কাপড় বোনার মেশিন অপারেটরকে মারধরের অভিযোগ উঠল মালিক এবং ম্যানেজারের বিরুদ্ধে

Nadia News- শান্তিপুরের কাপড় বোনার মেশিন অপারেটরকে মারধরের অভিযোগ উঠল মালিক এবং ম্যানেজারের বিরুদ্ধে

আহত ওই শ্রমিককে নিয়ে আসা হয়েছে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য

আহত ওই শ্রমিককে নিয়ে আসা হয়েছে হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য

মাসের মাইনে বাবদ তিন মাসের বকেয়া টাকা পাওনা রয়েছে ওই মালিকের কাছে বলে জানা যায়

  • Share this:

    #শান্তিপুর: শ্রমিক-মালিক পক্ষের বিবাদ দীর্ঘদিনের। শ্রমিক-মালিক বিবাদের জেরে একাধিক কলকারখানাও বন্ধ হয়ে যায়। এরকম উদাহরণ খুঁজলে পরে অনেক পাওয়া যায়। দীর্ঘ দুই বছর লকডাউনের ফলে অনেকেই হারিয়েছেন তাদের কাজ। তার ওপর এবার শ্রমিককে মারধরের অভিযোগ উঠল মালিকের বিরুদ্ধে (Nadia News)।নদিয়ার শান্তিপুর মেলার মাঠ অঞ্চলে এক তাঁতের শাড়ি বোনার কারখানা। সেই কারখানার অপারেটরকে ঘরে দরজা বন্ধ করে লোহার রড দিয়ে মারার অভিযোগ উঠল মালিকের বিরুদ্ধে।

    সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা যায়, মালদহ থেকে আগত বাবর মমিম ওই কারখানায় দু'বছর ধরে কাজ করেন। মাসের মাইনে বাবদ তিন মাসের বকেয়া টাকা পাওনা রয়েছে ওই মালিকের কাছে(Nadia News)। আজ তিনি কাজ ছেড়ে দেবেন বলে জানান এবং তার বকেয়া টাকা চায়। বাবরের অভিযোগ, কারখানার আদিত্য, তমাল এবং ঋত্বিক, এই তিনজন মিলে ঘরের দরজা বন্ধ করে গণ প্রহার করে তাকে এবং মেরে ফেলতে উদ্যত হয়। এমন সময় এক কর্মচারী দেখে বাবরের মামা সলমানকে ফোন করে জানায় । মালদহ থেকে এ ধরনের রিপিয়ার মিস্ত্রি কাজ করতে আসা বেশ কয়েক জন বিভিন্ন মেশিন ঘর থেকে ছুটে আসে ওই কারখানায়। সেখান থেকে বাবরকে উদ্ধার করে নিয়ে শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা করায় এবং শান্তিপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানায়(Nadia News)।

    এ বিষয়ে বাবরের মামা সলমান জানান, "আমাদের কাজের ফলে আজকে মালিক দুটো লাভের মুখ দেখে, তাদেরকে ঠকানোর পরেও এভাবে শারীরিক অত্যাচার মেনে নেওয়া যায় না, তাই থানার দ্বারস্থ হচ্ছি আমরা। অবিলম্বে বকেয়া টাকা এবং মালিকের শাস্তি চাই।" যদিও গোটা ঘটনা অস্বীকার করে মালিক তমাল শেখ। তিনি বলেন, "অ্যাডভান্স বাবদ তাদের কাছ থেকে টাকা নেওয়া ছিলো, এ বাদেও টাকা চাওয়ার জন্য ঝামেলা বাধে আমার ম্যানেজার ঋত্বিকের সাথে।" দুপক্ষই মারামারির ফলে আহত হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

    Mainak Debnath
    First published:

    Tags: Nadia, Santipur

    পরবর্তী খবর