Home /News /local-18 /
Nadia: বৃষ্টি উপেক্ষা করেই নামাজ পড়লেন মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষ

Nadia: বৃষ্টি উপেক্ষা করেই নামাজ পড়লেন মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষ

বৃষ্টি উপেক্ষা করেই নামাজ পড়তে হাজির মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষেরা

বৃষ্টি উপেক্ষা করেই নামাজ পড়তে হাজির মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষেরা

আজ মঙ্গলবার ইসলাম ধর্মের পবিত্র ঈদ। করোনার মহামারীর কারণে গত দু'বছর কোনও উৎসব সেরকম ভাবে পালন করতে পারেননি তাঁরা। এবার সংক্রমনের প্রকোপ অনেকটাই কমার ফলে সরকারি বিধি নিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে৷

  • Share this:

    নদিয়া: আজ মঙ্গলবার ইসলাম ধর্মের পবিত্র ঈদ। করোনার মহামারীর কারণে গত দু'বছর কোনও উৎসব সেরকম ভাবে পালন করতে পারেননি তাঁরা। এবার সংক্রমনের প্রকোপ অনেকটাই কমার ফলে সরকারি বিধি নিষেধ তুলে নেওয়া হয়েছে৷ সেই কারণে ইদ উৎসব পালন করার জন্য এবার আশায় বুক বেঁধেছিলেন মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ। কিন্তু বাদ সাধল প্রাকৃতিক দুর্যোগ।নদিয়ার কৃষ্ণগঞ্জের ভাজনঘাট টুঙ্গি পঞ্চায়েতের পুটিখালী গ্রাম। সীমান্ত লাগোয়া এই গ্রামে প্রচুর মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষের বাস। সীমান্ত লাগোয়া রয়েছে ইদগাঁও। বৃষ্টির মাথায় সকাল সকাল সেখানে মুসলিম ধর্মালম্বী মানুষ একসঙ্গে নামাজ পড়েন। নামাজের পর একে অপরকে ইদের শুভেচ্ছা জানান। বলা যায় বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই ইদের উৎসবে মেতে ওঠেন টুঙ্গী ভাজনঘাট পঞ্চায়েতের সীমান্তবর্তী পুটিখালি গ্রামের বাসিন্দারা। সোমবার গভীর রাত থেকেই নদিয়া সহ দক্ষিণবঙ্গের বেশকিছু জেলায় শুরু হয়েছে মুষলধারে বৃষ্টি। সেই কারণে ভারাক্রান্ত মন নিয়ে সকালে ইদের নামাজ পড়তে গেলেন মুসলিম ধর্মালম্বী মানুষ।সামিল হয়েছে ছোটরাও৷ একই দৃশ্য দেখা গেল সীমান্তবর্তী এলাকাতেও। কিছুদিন ধরেই দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে শুরু হয়েছে ঝড়-বৃষ্টি। গোটা চৈত্র মাস এবং বৈশাখ মাসের শুরুর দিকে সেভাবে দেখা মেলেনি কালবৈশাখীর। বৃষ্টি না হওয়ার কারণে গ্রীষ্মকালীন ফল ও সবজির ক্ষতি হয়েছে। চাষিদের পড়তে হয়েছে লোকসানের মুখে। প্রসঙ্গত, আজ ঈদ উৎসবের পাশাপাশি রয়েছে অক্ষয় তৃতীয়াও। সকাল থেকেই বিভিন্ন দোকানে লক্ষ্মী গণেশের পুজো হচ্ছে। তবে সোমবার গভীর রাত থেকেই জেলায় আকস্মিক বৃষ্টির কারণে ইদের পাশাপাশি অক্ষয় তৃতীয়ার উৎসবেও পড়েছে ভাটা। গত দু'বছর করোনা মহামারীর কারণে সেভাবে উৎসব পালন করা হয়নি। যার প্রভাব সরাসরি পড়েছিল বিভিন্ন বাজার হাট এলাকায়। এবার মহামারী কমার ফলে বাজার হাট চাঙ্গা হয়ে উঠেছিল। তবে হঠাৎ বৃষ্টির কারণে চিন্তার মেঘ ঘনীভূত হয়েছে একাধিক ব্যবসায়ীর মনে। যদিও বেলা বাড়ার সাথে সাথে আকাশ পরিষ্কার হতে দেখা গিয়েছে।

    First published:

    Tags: Nadia

    পরবর্তী খবর