Home /News /local-18 /
Nadia News- শীতে নলেন গুড়ের স্বাদ পেতে মজে উঠেছে আপামর বাঙালি

Nadia News- শীতে নলেন গুড়ের স্বাদ পেতে মজে উঠেছে আপামর বাঙালি

খেজুর গাছ থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করেছেন চাষিরা

খেজুর গাছ থেকে খেজুরের রস সংগ্রহ করেছেন চাষিরা

নলেন গুড় দিয়ে তৈরি হয় বিভিন্ন রকম সুস্বাদু খাবার যার নাম শুনেই জিভে চলে আসে জল

  • Share this:

    #নদিয়া: শীতকালে বাঙালির একটা কথাই মনে পড়ে, তা হল পৌষ পার্বণের পিঠেপুলি। বাঙালি বরাবরই ভোজন রসিক। বাংলার বারো মাসে তেরো পার্বণ, ফলে সারা বছরই উৎসব লেগে রয়েছে। কালীপুজো শেষ হতে না হতেই শীতের আমেজ পরে বাংলার মাটিতে। আর তখন থেকেই শুরু হয়ে যায় বিভিন্ন সুস্বাদু খাবার। এই সময় চাষীরা নতুন ধান ঘরে তোলে। বাঙালি মেতে ওঠে পৌষ পার্বণের নবান্ন উৎসবে। নবান্নের পাশাপাশি, পৌষ পার্বণের দিন খাওয়া হয় বিভিন্ন রকমারি পিঠে পুলি। আর সেই পিঠের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে নলেন গুড়ের স্বাদ। নলেন গুড় দিয়ে তৈরি হয় বিভিন্ন রকম সুস্বাদু খাবার, যার নাম শুনেই জিভে চলে আসে জল।

    নলেন গুড়ের বিভিন্ন রকমের পিঠেপুলিতো রয়েছেই, এছাড়াও রয়েছে নলেন গুড়ের পায়েস, রসগোল্লা, সন্দেশ ইত্যাদি আরো অনেক জিভে জল আনা খাবার। তবে এইসব খাবার করতে লাগে প্রচুর পরিমাণে নলেন গুড়। যার জন্য চাষীদের সংগ্রহ করতে হয় খেজুরের রস। আর শীতকালে এই খেজুরের রস সংগ্রহের পেশাকে বেছে নিয়েছেন অনেক চাষীই। নদিয়ার মাজদিয়ায় রয়েছে বিখ্যাত নলেন গুড়ের হাট (Nadia News)। প্রতিবছর শীতকালে এই হাট বসে মাজদিয়ায়। এই হাট থেকে নলেন গুড় প্রতিবছরই রপ্তানি করা হয় দেশের বিভিন্ন জায়গায়। এছাড়াও নলেন গুড় অত্যাধুনিক যন্ত্রের মাধ্যমে টিউবে সংরক্ষণ করে, তা পাঠানো হয় বিভিন্ন জায়গায়।

    তবে এই খেজুরের গুড় তৈরি করার পদ্ধতিটা অনেকটাই কঠিন। জানা যায়, খেজুর গাছের একটা অংশ প্রথমে কেটে তার নিচে দড়ি দিয়ে বেঁধে দেওয়া হয়(Nadia News)। তারপর করতে হয় সারারাত অপেক্ষা। গাছের কাটা অংশ দিয়ে ফোঁটা ফোঁটা খেজুরের রস জমতে থাকে হাঁড়ির মধ্যে। ভোরবেলা চাষী গিয়ে সেই হাঁড়ি নামিয়ে সংগ্রহ করে রস। একটি গাছ থেকে রস সংগ্রহ হয়ে গেলে সেই গাছকে অন্তত সাত দিন বিশ্রাম দেওয়া হয়, যাকে বলা হয় শুকি। সাবধান বিশ্রাম না দেওয়া হলে, গাছ থেকে পরবর্তী সংগ্রহ করা রসের গুণগত মান ঠিক থাকেনা।

    চাষীদের একাংশের বক্তব্য, বর্তমানে বাজারের সমস্ত কিছুর দাম আকাশছোঁয়া। কিন্তু সেই অর্থে নলেন গুড়ের দাম সেভাবে পাওয়া যায় না বলে আক্ষেপ তাদের(Nadia News)। গতবছর কোভিডের কারণে গুড়ের ব্যবসায় সেরকম লাভ না হলেও, এবার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় লাভবান হচ্ছেন ব্যবসায়ীরা বলে জানা যায়। তবে দাম যাই হোক, শীতকালে নলেন গুড়ের স্বাদ পেতে গুড়ের দোকানে বা মিষ্টির দোকানে মানুষের ভিড় দেখলেই বোঝা যায় নলেন গুড়ের জনপ্রিয়তা!

    Mainak Debnath

    First published:

    Tags: Majdia, Nadia, Nolen Gur

    পরবর্তী খবর