Home /News /local-18 /

Murshidabad- সামশেরগঞ্জে নদী ভাঙ্গন, নদীর গ্রাসে কৃষিজমি, গৃহহীন ১০টি পরিবার 

Murshidabad- সামশেরগঞ্জে নদী ভাঙ্গন, নদীর গ্রাসে কৃষিজমি, গৃহহীন ১০টি পরিবার 

ঘর বাড়ি ভেঙে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন ভাঙন কবলিত এলাকার বাসিন্দারা 

ঘর বাড়ি ভেঙে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন ভাঙন কবলিত এলাকার বাসিন্দারা 

সামশেরগঞ্জে নদী ভাঙ্গন, নদীর গ্রাসে কৃষিজমি, গৃহহীন ১০টি পরিবার 

  • Share this:

    কৌশিক অধিকারীঃ সামশেরগঞ্জঃ শীতের সকালে ভাঙ্গনের কবলে, ভিটে ছাড়া প্রায় ১০ টি পরিবার। নতুন করে ফারাক্কা ব্লকের পর গঙ্গা ভাঙ্গন শুরু হল সামশেরগঞ্জে। ফের ভয়াবহ ভাঙ্গনের কবলে মুর্শিদাবাদ জেলার সামশেরগঞ্জের কামালপুর গ্রাম। গঙ্গা ভাঙ্গনের জেরে গৃহহীন প্রায় ১০টি পরিবার, নদীর গ্রাসে চলে গেল কৃষিজমি।

    মুর্শিদাবাদ জেলার গঙ্গা ভাঙ্গন নতুন কিছু নয়। মুর্শিদাবাদ জেলাতে এই গঙ্গা ভাঙ্গনের ফলে কারো ভিটে মাটি আগেই ভাঙ্গনের গ্রাসে চলে গিয়েছিল, আবার কারোর কিছুটা অবশিষ্ট ছিল। চোখের সামনে ঘর ভিটে তলিয়ে গেল কামালপুর গ্রামে। এই ভাঙ্গনের কবলে পড়ে প্রায় প্রতিবছরই গৃহহীন হন বহু পরিবার। বর্ষার সময় এই গঙ্গার ভাঙ্গনের প্রবনতা চরম রূপ নেয়। ভাঙ্গনের কবলে পড়ে গঙ্গাবক্ষে তলিয়ে যায় বেশ কিছু বাড়ি ফলে গৃহহীন ১০টি পরিবার। গ্রামের বাসিন্দাদের দাবি, ভাঙ্গন রোখা না গেলে গঙ্গাবক্ষে তলিয়ে যেতে পারে আরও অনেক বাড়ি। গৃহহীন পরিবাররা বাধ্য হয়ে ঘর বাড়ি হারিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ।

    আগামী বুধবার মুর্শিদাবাদ জেলাতে প্রশাসনিক বৈঠকে যোগদান করতে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগে আশায় বুক বাঁধছেন ভাঙন কবলিত এলাকার বাসিন্দারা। মুখ্যমন্ত্রী কি আশ্বাস বানীদেন এই ভাঙন নিয়ন্ত্রণে, তার দিকে তাকিয়ে রয়েছেন স্হানীয় বাসিন্দারা। স্হানীয় বাসিন্দা বীরেন মন্ডল জানান, ভাঙ্গনের কবলে পড়ে গঙ্গাবক্ষে তলিয়ে যায় প্রায় অনেকগুলি গৃহস্থ বাড়ি ও জমি। গত বছর গঙ্গাৎ বাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় আশ্রয় নিতে হয়েছিল। এবা ফের ভাঙ্গন শুরু হয়েছে তাই দুশ্চিন্তা ফের মাথাচাড়া দিচ্ছে। এলাকার অন্য বাসিন্দা বিধান কুমার রায় বলেন, "আমরা গঙ্গা পাড়ের মানুষজন এখন উৎকন্ঠায় দিন কাটাচ্ছি, যে কোন মুহুর্তে গঙ্গার গ্রাসে চলে যেতে পারে আরও বেশ কিছু এলাকা। আমারও নিজের বাড়ি ছিল যা চোখের সামনে ভেঙে যেতে দেখলাম। কিছু জিনিস সরাতে পারিনি এখন খোলা আকাশের নীচে নেমে এসেছি। কি খাবো, কোথায় থাকব, কিছু জানি না"। অন্যদিকে ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ঘরবাড়ি হারিয়ে গৃহহীন অবস্থায় থাকলেও এখনও কোন প্রশাসনিক আধিকারিকদের দেখা মেলেনি বলে অভিযোগ করেন গ্রামবাসীরা ।

    মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসন জানিয়েছে, "আমরা খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে গিয়ে পর্যবেক্ষণ করে গৃহহীন পরিবারদের ত্রান সামগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। নদী ভাঙ্গন কীভাবে রোধ করা যায় তারও ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়েছে ।"

    First published:

    Tags: Farmers, Ganga, Ganges, Murshidabad, River erosion

    পরবর্তী খবর