• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • MORE THAN LAKH RUPEES LOOSE AFTER FISH DIES BY INSECTICIDE AT NORTH 24 PARGANA HAROA SDG

মাছের ভেড়িতে বিষ! মরে ভেসে উঠল কাতলা-পোনা-রুই-গলদা চিংড়ি...

মাছের ভেড়িতে বিষ, প্রচুর মাছের মৃত্যু, ক্ষতির পরিমাণ লক্ষাধিক টাকা।

মাছের ভেড়িতে বিষ, প্রচুর মাছের মৃত্যু, ক্ষতির পরিমাণ লক্ষাধিক টাকা।

  • Share this:

    #রাতুল ব্যানার্জি, উত্তর ২৪ পরগনা: মাছের ভেড়িতে বিষ, প্রচুর মাছের মৃত্যু, ক্ষতির পরিমাণ লক্ষাধিক টাকা। রাতের অন্ধকারে ভেড়িতে বিষ, মাথায় হাত ভেড়ি মালিকের। বিষক্রিয়া হয়ে কাতলা, পোনা, রুই, গলদা চিংড়ি সমেত বিভিন্ন প্রকারের মাছ মরে জলে ভাসছে। কে বা কারা রাতের অন্ধকারে এমন কাজ করেছে তা জানা এখনো যায়নি। তবে অনুমান কোন ব্যাবসায়িক শত্রুতা থেকেই এমন কাজ কেউ করে থাকতে পারে।

    দেগঙ্গা থানার অন্তর্গত সাতহাতিয়া গ্রামের বাসিন্দা মনিরুল ইসলাম। তিনি হাড়োয়া থানা কচুরহুলা গ্রামের বন্দী রাম গ্রামের তিন বিঘা জমিতে তৈরি করেছিলেন মাছের ভেড়ি। বাজার থেকে ঋণ নিয়ে মাছ চাষ শুরু করেছিলেন। তারপর ভেড়ির মাছ ধরার সময় হয়ে এসেছিল, সেখানে রবিবার গভীর রাতে কে বা কারা কীটনাশক ঢেলে দেয় ওই ভেড়িতে। ঐ‌ ভেড়ির মালিক গতকাল রাতে ভেড়িতে ডিউটি দিতে গেলে দেখতে পায় অসংখ্য মাছ মরে ভেসে রয়েছে পুকুরে। বড় বড় গলদা চিংড়ি, ছোট ছোট রুই-কাতলা সমেত বিভিন্ন প্রজাতির মাছ মরে ভেসে আছে। এই ঘটনার পর মাথায় হাত মৎস্যচাষী মনিরুল ইসলামের। তিনি জানান বাজার থেকে মোটা টাকা ঋণ নিয়ে মাছ চাষ করছিলেন। পাশাপাশি জমির মালিকদের লীজের টাকাও দেয়া হয়নি এখনো পর্যন্ত। সব মিলিয়ে কয়েক লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানান। এত ঋণের বোঝা মাথায় মনিরুলের আগামীদিনে কিভাবে চলবে তা বুঝে উঠতে পারছেন না। খুব কষ্ট করে এই ব্যবসা শুরু করেছিলেন মনিরুল।

    ইতিমধ্যে হাড়োয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে ভেড়ীর মালিক মনিরুল ইসলাম। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে হাড়োয়া থানার পুলিশ। পুলিশ খতিয়ে দেখছে এর পেছনে অন‍্য কনো কারণ রয়েছে কিনা। নাকি রাজনৈতিক কোনো কারণ আছে সেটাও খতিয়ে দেখছে হাড়োয়া থানার পুলিশ। খুব তাড়াতাড়ি তদন্তের মাধ্যমে দোষীকে গ্রেফতার করবে বলে আশ্বাস দিয়েছে হাড়োয়া থানার পুলিশ এবং আগামীদিনেও এমন ঘটনা যাতে না ঘটে তার জন্য নজরদারি চলবে বলেও জানায় হাড়োয়া থানার পুলিশ।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: