Home /News /local-18 /
Malda News- মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়া হল না সদ্য মা হওয়া পরীক্ষার্থীর, হাসপাতালের বেডে কান্নায় ভেঙে পড়লেন ফরিদা

Malda News- মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়া হল না সদ্য মা হওয়া পরীক্ষার্থীর, হাসপাতালের বেডে কান্নায় ভেঙে পড়লেন ফরিদা

পরীক্ষা [object Object]

সময়ের মধ্যে পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড ও তার শারীরিক পরীক্ষা না হওয়ায় পরীক্ষা দিতে পারল না ফরিদা

  • Share this:

    #মালদহ- প্রশ্নপত্র হাতের কাছে পেয়েও খোলা হলো না সদ্য মা হওয়া মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ফরিদা খাতুনের। নতুন পেন, পরীক্ষা দেওয়ার বোর্ড পড়ে থাকল হাসপাতালের বেডের এক কোণে। পরীক্ষার সময় পেরিয়ে যাওয়ার পর হাসপাতালের বেডে বসে অঝোরে কান্না শুরু করল এবারের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ফরিদা খাতুন। সদ্য মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মাতৃমা বিভাগে পুত্র সন্তানের জন্ম দিয়েছেন বছর ১৮ র ফরিদা খাতুন। তার শারীরিক অবস্থা অনেকটাই স্বাভাবিক। তাই হাসপাতালের বেডে বসে মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সদ্য মা হওয়া মাধ্যমিকের এই পরীক্ষার্থী। পরিবারের লোকেরা কতৃপক্ষকে জানালে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ তার পরীক্ষার সুব্যবস্থা ও করে। কিন্তু শিক্ষা দফতরের একাধিক নিয়ম আবেদনপত্র পূরণ করে জমা দেওয়ার আগেই পরীক্ষার সময় শেষ হয়। এমনকি নির্দিষ্ট সময়ে শারীরিক পরীক্ষার কাগজপত্র শিক্ষা দফতরের হাতে পৌঁছায়নি। যার জেরে হাতের কাছে প্রশ্নপত্র নিয়ে পরীক্ষকেরা আসলেও পরীক্ষা দিতে পারল না এই পরীক্ষার্থী।

    মালদহর পান্ডুয়া হাইস্কুলের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী ফরিদা খাতুন। পড়াশোনায় ভালো ফরিদা খাতুন, তবে পরিবারের আর্থিক অনটন থাকায় দেড় বছর আগে তার বিয়ে দিয়ে দেয়। বিয়ের পরেও নিজের পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছিল ফারিদা। ইচ্ছে ছিল জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার। তবে পরীক্ষার দিন দশেক আগেই মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় ফরিদা। তখনও ফারিদা ভেবেছিল হয়তো মাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে পারবে। সোমবার পরীক্ষা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিল ফরিদা পরিবারের লোকেদের কাছে। মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও পরিবারের লোকেরা উদ্যোগ গ্রহণ করে। তবে বোর্ডের কিছু জটিল নিয়মে তার পরীক্ষা দেয়া হল না।

     পরীক্ষা দিতে না পেরে হাসপাতালের বেডে বসে কান্নায় ভেঙে পড়েন। ফরিদা খাতুনের বাবা ফাইজুল শেখ অনেক আগেই মারা গিয়েছে। মা রেশমা বিবি সংসারের হাল ধরেছেন। ভালো পাত্র পাওয়ায় দেড় বছর আগে মেয়ের বিয়ে দিয়ে দেন। ২৫ ফেব্রুয়ারি মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম দেয় ফরিদা। তবে সদ্যোজাতের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকায় বর্তমানে তাকে পিকু তে ভর্তি রাখা হয়েছে। পাশের বেডে রয়েছে ফরিদা। তাঁর শারীরিক অবস্থা অনেকটাই স্বাভাবিক। তাই পরীক্ষা দেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করে। তবে সময়ের মধ্যে পরীক্ষার অ্যাডমিট কার্ড ও তার শারীরিক পরীক্ষা না হওয়ায় পরীক্ষা দিতে পারল না এদিন। সরকারি বিভিন্ন নিয়ম নীতি মানতে পেরিয়ে গেল পরীক্ষার সময়।

    First published:

    Tags: Madhyamik 2022, Malda

    পরবর্তী খবর