Home /News /local-18 /
Malda: মাছ চোর সন্দেহে এক যুবককে গণপিটুনি

Malda: মাছ চোর সন্দেহে এক যুবককে গণপিটুনি

জখম যুবককের চিকিৎসা চলছে মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে

জখম যুবককের চিকিৎসা চলছে মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে

রাতে পুকুরপাড় দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন যুবক।তাতেই মাছ চুরির সন্দেহে বেধড়ক মারধরের স্বীকার হলেন। একা গভীর রাতে পুকুরপাড় দিয়ে যাওয়ার সময় জোগানদাররা ধরে মারধর করে বলে অভিযোগ।

  • Share this:

    মালদহ: রাতে পুকুরপাড় দিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন যুবক।তাতেই মাছ চুরির সন্দেহে বেধড়ক মারধরের স্বীকার হলেন। একা গভীর রাতে পুকুরপাড় দিয়ে যাওয়ার সময় জোগানদাররা ধরে মারধর করে বলে অভিযোগ।এমনকি হাঁসুয়া দিয়ে এলোপাতারি কোপায়। বাঁ হাতে গুরুতর আঘাত লাগে হাঁসুয়ার কোপে। জখম অবস্থায় ওই যুবক চিৎকার শুরু করলে আশেপাশের বাসিন্দারা ছুটে আসে।উদ্ধার করে জখম যুবককে। বুধবার গভীর রাতে মালদহের কালিয়াচক থানার রামনগর পঞ্চায়েতের উজিরপুর মহল্লা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই যুবক বর্তমানে মালদহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। পরিবার ও স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্ত যুবকের নাম প্রকাশ মণ্ডল (৩০)। পেশায় শ্রমিক। বুধবার রাতে ঠিকাদারের কাছে পারিশ্রমিকের টাকা নিতে গিয়েছিলেন প্রকাশ। ঠিকাদারদের বাড়ি থেকে রাতে একা ফিরছিলেন। প্রতিদিনের মত এদিন রাতে গ্রামের পাশের পুকুরপাড় দিয়ে হেঁটে ফিরছিলেন। এদিকে পুকুরের জোগানদার লক্ষ করেন কেউ বা কারা তাদের নজর এড়িয়ে পুকুরে মাছ ধরার জাল ফেলে রেখেছে। জাল ফেলার পর দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। সেই সময়েই প্রকাশ পুকুরপাড় দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল। পুকুরের জোগানদার তাকেই সন্দেহ করে মারধোর শুরু করে। অভিযোগ জাল ফেলার কথা অস্বীকার করলে হাঁসুয়া দিয়ে কোপায় তাকে। সেই সময় চিৎকার শুরু করে প্রকাশ।ছুটে আসে গ্রামের বাসিন্দারা।তাকে তড়িঘড়ি উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়।তবে অবস্থার অবনতি হতে থাকলে চিকিৎসকেরা মালদহ মেডিকেলে রেফার করে। পরিবারের পক্ষ থেকে কালিয়াচক থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমেছে।জখম যুবকের মা ভারতি মণ্ডল বলেন, আমার ছেলে শ্রমিকের কাজ করে । এদিন সন্ধ্যায় ঠিকাদারদের কাছে টাকা নিতে গিয়েছিল। রাতে ফেরার সময় পুকুরের পাশ দিয়ে আসছিল। তখন কিছু দুষ্কৃতী পুকুরে জাল ফেলে চুরি করছিল । কিন্তু পুকুরের জোগানদার দুষ্কৃতীদের ধরতে না পেরে আমার ছেলেকে মারধোর ও হাঁসুয়া দিয়ে কোপায়। আমরা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি।

    First published:

    Tags: Malda, North Bengal

    পরবর্তী খবর