• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • JAMALPUR LITTLE SCIENTIST AMAZING MLA AND BDO MADE A MASK WITH DEVICE

ডিভাইস যুক্ত মাস্ক বানালো জামালপুরের ক্ষুদে বিজ্ঞানী, তাজ্জব বিধায়ক ও বিডিও

ডিভাইস যুক্ত মাস্ক বানালো জামালপুরের ক্ষুদে বিজ্ঞানী, তাজ্জব বিধায়ক ও বিডিও

ডিভাইস যুক্ত মাস্ক বানালো জামালপুরের ক্ষুদে বিজ্ঞানী, তাজ্জব বিধায়ক ও বিডিও

  • Share this:

    ছোট থেকেই বিজ্ঞানের বিষয়ে বেশ ঝোঁক। নিজেই নানা জিনিস তৈরি করে আর যে গুলি বেশ আকর্ষণীয় হয় সকলের কাছে। ইতিমধ্যেই \'স্মার্ট হোম\' সম্পর্কিত চারটি জিনিস তৈরি করেছে। এবার আবিষ্কার করে ফেললো একটি সুন্দর 'মাস্ক'।  এভাবেই পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরের বেত্রাগর গ্রামের দেবর্ষি দে নিজের প্রতিভাকে তুলে ধরেছে সকলের সামনে।

    স্থানীয় সেলিমাবাদ হাই স্কুলের দ্বাদশ শ্রেণীর বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র দেবর্ষি

    ২০১৯ সালে ব্লক স্তরে বিজ্ঞান মেলায় প্রথম স্থান লাভ করে দেবর্ষি। এরপর জেলা ও রাজ্যস্তরেও অংশ নেয় সে। দেবর্ষির  পাঠ্য বিষয ছিল "টেকনোলজি ফর এ বেটার লাইফ" এই বিষয়টিকে সামনে রেখে সে 'স্মার্ট হোম' এই সম্পর্কিত চারটি জিনিস তৈরি করে দেবর্ষি।  আর এবার তৈরি করলো একটি 'মাস্ক'। যা ফ্রন্ট লাইন করোনা যোদ্ধাদের কাজে লাগবে।

    মাস্ক পরায় অনীহা আছে আমাদের সকলের। এছাড়াও মাস্ক পরে অনেকে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননা। এছাড়াও যে সমস্ত ডাক্তার ও  নার্সরা করোনা রোগী দেখছেন তাঁদের বেশিরভাগকেই  পিপিই কিট ও মাস্ক পরে থাকতে হয়। তাঁদের জন্য দারুন কার্যকরী হবে এই মাস্ক বলে দাবি দেবর্ষির।

    কী এই অভিনব কায়দায় বানানো'মাস্ক':

    এই মাস্কে রয়েছে পাঁচটি এয়ার সাকার যার মধ্যে রয়েছে ছটি মাইক্রোনের এয়ার ফিল্টার। যা বাতাসকে বিশুদ্ধ করে ডিভাইসটির ভিতরে থাকা এয়ার ফিল্টার পাইপের মাধ্যমে মাস্কের ভিতরে পাঠিয়ে দেবে। তেমনটাই জানাচ্ছেন দেবর্ষি। সে আরও জানায়, তার তৈরি এই ডিভাইসটির ওজন ৪০৫ গ্রাম। অর্থাৎ খুব সহজেই পকেটে র মধ্যে এটে যাবে।

    এদিন নিজের তৈরি ডিভাইস সহ ওই মাস্ক নিয়ে জামালপুরের বিডিও অফিসে আসে দেবর্ষি। উপস্থিত ছিলেন, বিধায়ক অলক কুমার মাঝি,বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান ও ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ঋত্বিক ঘোষ। ডিভাইস সহ মাস্কের কার্যকারিতা কি তা হাতে কলমে বুঝিয়ে দেয় দ্বাদশ শ্রেণীর ওই ছাত্র। দেখে সবাই তাজ্জব বোনে যান।

    এনিয়ে বিধায়ক অলক কুমার মাঝি বলেন, খুবই ভালো একটি জিনিস দেবর্ষি আবিষ্কার করেছে যা এই করোনা পরিস্থিতিতে যথেষ্ট কার্যকরী হবে। এদিকে, বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার বলেন, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নজরে আনবেন বিষয়টি। অন্যদিকে, ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক ডা: ঋত্বিক ঘোষ জানান, পুরো বিষয়টি জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিককে জানাবেন এবং সেখানে গিয়ে যাতে দেবর্ষি হাতে কলমে তার আবিষ্কার দেখানোর সুযোগ পায় সে ব্যবস্থা করা হবে। পাশাপাশি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খান জানান, দেবর্ষি তাঁর ব্লকের ছেলে তাই তিনি বিডিও ও বিধায়কের সঙ্গে কথা বলবেন। যাতে দ্রুত কিছু করা যায় সে বিষয়ে নজর দেবেন। ইতি মধ্যেই দেবর্ষি তার আবিষ্কারের সমস্ত পদ্ধতি লিখিত ভাবে বিধায়ক ও ব্লক স্বাস্থ্য অধিকারিককে জমা দিয়েছে।

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published: