Home /News /local-18 /
Jalpaiguri: দুঃস্বপ্ন কাটিয়ে ছন্দে ফেরার চেষ্টা! স্বাভাবিকের পথে 'অভিশপ্ত' লাইনে রেল পরিষেবা

Jalpaiguri: দুঃস্বপ্ন কাটিয়ে ছন্দে ফেরার চেষ্টা! স্বাভাবিকের পথে 'অভিশপ্ত' লাইনে রেল পরিষেবা

দুঃস্বপ্ন কাটিয়ে ছন্দে ফেরার চেষ্টা!

দুঃস্বপ্ন কাটিয়ে ছন্দে ফেরার চেষ্টা!

ময়নাগুড়ি দুর্ঘটনাস্থল দ্রুত স্বাভাবিক করার চেষ্টা রেল দফতরের

  • Share this:

    জলপাইগুড়ি: ট্রেন দুর্ঘটনার (Train Accident) পর কেটে গিয়েছে চার-চারটে দিন। কিন্তু এখনও ধাতস্থ হতে পারেননি স্বজনহারা মানুষরা। দুর্ঘটনায় আহতের পরিসংখ্যানটাও কম নয়। গত বৃহস্পতিবার বিকানির গুয়াহাটি এক্সপ্রেসের (Bikaner Guwahati Express train) দুর্ঘটনার পর এখনও নিখোঁজ অনেকে। এদিকে দুর্ঘটনার পরই সেই লাইনে ফের ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক করতে উঠে পড়ে লেগেছিল রেল কর্তৃপক্ষ। শেষ পর্যন্ত আলিপুরদুয়ার ময়নাগুড়িতে লাইন পুরোপুরি সাফ করে ট্রেন চলাচলের উপযোগী করতে সক্ষম হল রেল। লাইন সাফ হওয়ার কথা জানান উত্তর-পূর্ব রেলের (NF Railway) মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক (chief Public Relationship Officer - CPRO) গুনীত কউর। শনিবার মধ্যরাত থেকেই এই লাইনকে ফের ট্রেন চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে বলে জানান তিনি। আপাতত এই লাইনে ২০ কিমি প্রতি ঘন্টা বেগে ট্রেন যেতে পারবে। এরই মধ্যে রবিবার ওই লাইনে শুরু হল ট্রেন (Mainaguri Local Train) চলাচল। লাইনের মেরামতির কারণে এখন ২০ কিলোমিটার বেগে এই লাইন দিয়ে ট্রেন চলাচল করছে। রবিবার দোমহানি ও ময়নাগুড়ির মাঝে দুর্ঘটনাস্থলের আপ লাইন দিয়ে ঘন্টায় ২০ কিলোমিটার বেগে ট্রেনটি চালানো হয়েছে। আগামিকাল বা পরশু সম্পূর্ণ ট্র্যাক প্রস্তুত হয়ে যাবে। তাঁর পর থেকে স্বাভাবিক হবে ট্রেন চলাচল। আজ ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে এমনটাই জানিয়েছেন রেলের এক ইঞ্জিনিয়ার। তবে ময়নাগুড়ির দুর্ঘটনাগ্রস্ত এলাকা দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন শুধু রেল আধিকারিকরা নন। ভিড় জমছে স্থানীয় এবং দূর-দূরান্ত থেকে আসা মানুষের। চারচাকা গাড়ি, বাইক, মোটর সাইকেল বিভিন্ন গাড়িগুলি রাখছেন পাশের চাষের জমিতে। আর এর ফলে এলাকার কৃষি জমি নষ্ট হয়ে পড়ছে বলে অভিযোগ স্থানীয় কৃষকদের। এলাকার কৃষকদের অভিযোগ, বিভিন্ন কৃষি জমিতে গাড়ি পার্কিং করে লোকজন দৌড়ে যাচ্ছেন ঘটনাস্থলে। জমির ওপর এভাবে গাড়ি রাখায় সরষে থেকে শুরু করে আলু, বিনস, রসুন প্রভৃতির খেত নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ফলে সংসার চালানো কষ্টকর হয়ে পড়ছে। তাই কৃষি দফতরের কাছে ক্ষতিপূরণের দাবি জানিয়েছেন তাঁরা। ক্ষতিপূরণ না পেলে চরম আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে বলেই দাবি চাষিদের। এ নিয়ে ময়নাগুড়ি কৃষি দফতর জানিয়েছে, কৃষি জমির ক্ষতির হিসেব তারা খতিয়ে দেখছে। ময়নাগুড়ি দোমহানি এলাকায় ট্রেন দুর্ঘটনায় যে ইঞ্জিনটি লাইনে আটকে ছিল সিএনজির দিকে মেরামত করে শনিবার আরেকটি ইঞ্জিন দিয়ে টেনে নিয়ে যাওয়া হয় অন্যত্র। দুর্ঘটনাগ্রস্ত এই ইঞ্জিনটিকে অন্যত্র সরিয়ে লাইন পরিষ্কারের কাজ চলছে বলে রেল সূত্রে খবর। এই ট্রাকলাইন (track line) এবং বৈদ্যুতিক খুঁটি সহ তারের কাজ চলছে দ্রুতগতিতে। রেল সূত্রে খবর আগামী কয়েক ঘন্টার মধ্যেই ট্রায়াল রান (trial run) শেষ করে রেল পরিষেবা শুরু হবে আপ লাইনের কাজ। গত ৪৮ ঘন্টা ধরে যে লাইনটিতে দুর্ঘটনাগ্রস্ত ইঞ্জিনটি পরেছিল লাইনের উপর তা মেরামত করে অন্য একটি ইঞ্জিন দিয়ে সরিয়েও নেওয়া হয় এদিন। অন্যদিকে, ময়নাগুড়ি রেল দুর্ঘটনায় (Bikaner-Guwahati Express Train Accident) আহতদের দেখতে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে এলেন কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটি লতিফ খান। শনিবারই আহতদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। চলে জিজ্ঞাসাবাদও। বিকানের-গুয়াহাটি এক্সপ্রেস দুর্ঘটনায় তদন্তে কোনও ফাঁক থাকবে না এ কথা আগেই জানিয়েছিল রেল দফতর। এবার, সেই মোতাবেক, আহতদের দেখতে হাসপাতালে এলেন কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটি। শনিবার দুপুরে একটি বিশেষ প্রতিনিধি দল নিয়ে হাসপাতালে আসেন সেফটি কমিশনার। দুর্ঘটনায় আহতদের খোঁজখবর নেওয়ার পাশাপাশি তিনি তাঁদের বয়ানও নথিভুক্ত করেন। হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে লতিফ জানান, আহতদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। দুর্ঘটনার মুহূর্তে তাঁরা কী কোনও বিশেষ অবস্থার সম্মুখীন তাঁরা হয়েছিলেন কি না বা তাঁরা কীভাবে প্রাণে বাঁচলেন এই সব কিছু খতিয়ে দেখা হয়েছে। এছাড়াও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তদন্ত শুরু হয়েছে। সময়মতো বিস্তারিত জানানো হবে। যাঁরা আহত তাঁদের সকলকেই নির্ধারিত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। Vaskar Chakraborty

    First published:

    Tags: Jalpaiguri

    পরবর্তী খবর